Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ১৫ মে ২০২১ ||  জ্যৈষ্ঠ ১ ১৪২৮ ||  ০২ শাওয়াল ১৪৪২

১০ ওভারও খেলতে পারলো না বাংলাদেশ (লাইভ)

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:৩৪, ১ এপ্রিল ২০২১   আপডেট: ১৬:১৩, ১ এপ্রিল ২০২১
১০ ওভারও খেলতে পারলো না বাংলাদেশ (লাইভ)

বৃষ্টিতে অকল্যান্ডে নিউ জিল্যান্ড ও বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টির শেষ ম্যাচটি হওয়া নিয়ে আশঙ্কার মেঘ তৈরি হয়েছিল। শেষ পর্যন্ত দুই ঘণ্টা দেরিতে ম্যাচ শুরু হয়। খেলা নির্ধারণ হয় প্রত্যেক দলের জন্য ১০ ওভার করে। তাতে ফিন অ্যালেন ঝড়ে ৪ উইকেটে ১৪১ রান করে নিউ জিল্যান্ড। বিশাল রানের পাহাড়ে চড়তে গিয়ে একের পর এক উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ১০ ওভারও শেষ করতে পারেনি তারা। ইনিংসের তিন বল বাকি থাকতে অলআউট হয় সফরকারীরা।

প্রথম ওভারের শেষ দুই বলে টানা দুই ব্যাটসম্যানকে ফেরানো টিম সাউদি নবম ওভারে বল করতে আসেন। হ্যাটট্রিকের হাতছানি ছিল তার সামনে। কিন্তু মোসাদ্দেক হোসেন দুটি রান নিয়ে তাকে ব্যর্থ করেন। যদিও পরের বলে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান ১৩ রান করে বিদায় নেন কিউই অধিনায়কের উইল ইয়াংকে ক্যাচ দিয়ে। এর আগের ওভারে লকি ফার্গুসনের বলে ৫ রান করে তাসকিন আহমেদ আউট হন।

শেষ ওভারের তৃতীয় বলে নাসুম আহমেদকে ফিরিয়ে বাংলাদেশকে গুটিয়ে দেন গ্লেন ফিলিপস। ৭৬ রানে অলআউট অতিথিরা এবং হার মানে ৬৫ রানে। অকল্যান্ডে জিতে বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশ করলো নিউ জিল্যান্ড। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর: নিউ জিল্যান্ড- ১০ ওভারে ১৪১/৪; বাংলাদেশ- ৯.৩ ওভারে ৭৬

অ্যাস্টলের ঘূর্ণিতে বিপাকে বাংলাদেশ 

২০২০ সালের জানুয়ারিতে শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা টড অ্যাস্টল তার দ্বিতীয় ওভারেও জোড়া আঘাত হানলেন। তাতে আফিফ হোসেন ৮ রানে স্টাম্পিং হন। ২ বল পর শেখ মেহেদী হাসানকে গ্লেন ফিলিপসের ক্যাচ বানান। ২ ওভারে ১৩ রান দিয়ে চার উইকেট নেন এই লেগস্পিনার।

পরের ওভারে শরিফুল ইসলামকে মাঠছাড়া করেন অ্যাডাম মিলনে। ৬৫ রানে নেই বাংলাদেশের ৭ উইকেট।

চার ওভারে নেই ৪ উইকেট

প্রথম ওভারের শেষ দুই বলে সৌম্য সরকার ও লিটন দাশের আউটের পর হাল ধরতে পারেননি মোহাম্মদ নাঈমও। ১৩ বলে ১ চার ও ২ ছয়ে ১৯ রান করে টড অ্যাস্টলের শিকার হন বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান। চতুর্থ ওভারে কিউই স্পিনারের দ্বিতীয় শিকার হন নাজমুল হোসেন শান্তও (৮)। এসেই চার মেরেছিলেন তিনি, কিন্তু ইনিংস শেষ হয় মাত্র ৩ বলে। তাতে চার ওভারে ৩৭ রানে নেই ৪ উইকেট।

সাউদির টানা বলে আউট সৌম্য-লিটন

১৪২ রানের লক্ষ্যে নেমে প্রথম ওভারের দ্বিতীয় ও তৃতীয় বলে দুটি চার মেরেছিলেন সৌম্য সরকার। কিন্তু পঞ্চম বলে টিম সাউদিকে ফিরতি ক্যাচ দেন। অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক ম্যাচ হলো লিটন দাশের জন্য হতাশার। বোল্ড হয়ে ডাক মারেন তিনি। ১১ রানে নেই ২ উইকেট।

অ্যালেনের ব্যাটিং তাণ্ডব, বাংলাদেশের টার্গেট ১৪২

শুরুটা করেছিলেন মার্টিন গাপটিল। পরে তার চেয়েও বিধ্বংসী হয়ে ওঠেন ফিন অ্যালেন। তৃতীয় ওভারে টানা তিন বলে চার, পরেরটি ছয়; নাসুম আহমেদের ওই ওভারে তার ব্যাট থেকে আসে ১৯ রান। ইনিংসের দুই বল বাকি থাকতে থামেন তিনি। এর আগে শেষ পর্যন্ত ধুমধাড়াক্কা ব্যাটিং করে গেছেন। তাতে বাংলাদেশের বিপক্ষে ১০ ওভারে ৪ উইকেটে ১৪১ রান করে নিউ জিল্যান্ড।

পরের ওভারে শরিফুল ইসলামকে টানা দুটি চার মারেন অ্যালেন। পঞ্চম ওভারে রুবেল হোসেন বল হাতে নিয়েও তোপের মুখে পড়লেন। দুই বছরেরও বেশি সময় পর টি-টোয়েন্টি খেলতে নেমে অ্যালেনের কাছে প্রথম দুই বলে চার ও ছয় হজম করলেন।

গাপটিলের সঙ্গে তার ৮৫ রানের জুটি ভাঙলেও সাবলীলভাবে তাণ্ডব চালিয়ে গেছেন অ্যালেন। চতুর্থ ওভারেই ২১ ও ২৯ রানে রুবেল ও সৌম্য সরকারের ক্যাচ ফসকে জীবন পাওয়া ব্যাটসম্যান সপ্তম ওভারে ১৮ বলে ৮ চার ও ২ ছয়ে করেন প্রথম টি-টোয়েন্টি হাফ সেঞ্চুরি। ২০১৬ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এই অকল্যান্ডেই ১৪ বলে ফিফটি করেছিলেন কলিন, তার পর নিউ জিল্যান্ডের দ্বিতীয় দ্রুততম পঞ্চাশ উদযাপন করলেন অ্যালেন। পরের বলেই সৌম্যর হাতে ফের জীবন পান তিনি।

নবম ওভারের দ্বিতীয় বলে শরিফুল ইসলাম তুলে নেন গ্লেন ফিলিপসের উইকেট। ৬ বলে দুটি ছয়ে ১৪ রান করেন কিউই ব্যাটসম্যান। ওই ওভারে চতুর্থবারের মতো জীবন পান ফিন অ্যালেন, যখন তার রান ৬৮। ফিরতি ক্যাচ ধরতে গিয়ে ছেড়ে দেন শরিফুল।  

ইনিংসের শেষ ওভারে তাসকিন আহমেদ ২ উইকেট পান। অ্যালেনের উইকেটটি নেন তিনি। চারবার জীবন পাওয়া এই ব্যাটসম্যান ক্যাচ হন বদলি ফিল্ডার মেহেদী হাসান মিরাজের হাতে। অ্যালেন ২৯ বলে ১০ চার ও ৩ ছয়ে ৭১ রান করেন অ্যালেন। মার্ক চ্যাপম্যান নেমে একটি বলও খেলেননি। শেষ বলে ড্যারিল মিচেল ১১ রানে রান আউট হন।

বাংলাদেশের পক্ষে একটি করে উইকেট নেন মেহেদী হাসান, শরিফুল ও তাসকিন।

গাপটিল ঝড় থামালেন মেহেদী 

প্রথমবার বল হাতে নিয়ে মার্টিন গাপটিলের তোপের মুখে পড়েন শেখ মেহেদী হাসান। বাংলাদেশের স্পিনারকে প্রথম তিন বলে দুটি ছয় ও একটি চার মারেন। চতুর্থ বলেও বাউন্ডারি মারতে চেয়েছিলেন নিউ জিল্যান্ড ওপেনার। কিন্তু ডিপ কভারে তার ক্যাচ ধরেন আফিফ হোসেন। ১৯ বলে ১ চার ও ৫ ছয়ে ৪৪ রান করে মাঠ ছাড়েন গাপটিল। ভাঙে ফিন অ্যালেনের সঙ্গে ৩৪ বলে গড়া ৮৫ রানের উদ্বোধনী জুটি।

নিউ জিল্যান্ডের ঝড়ো ফিফটি

মাত্র ২২ বলে দলীয় হাফ সেঞ্চুরি হলো নিউ জিল্যান্ডের। চতুর্থ ওভারের চতুর্থ বলে শরিফুল ইসলামকে চার মেরে দলীয় পঞ্চাশ পূর্ণ করেন ফিন অ্যালেন। চারটি চার ও তিনটি ছয়ে নিউ জিল্যান্ড ফিফটি করে।

পাওয়ার প্লেতে গাপটিল-অ্যালেন ঝড়

১০ ওভারের খেলা। তাই শুরু থেকে ধুমধাড়াক্কা ব্যাটিং করতে থাকেন নিউ জিল্যান্ডের দুই ওপেনার মার্টিন গাপটিল ও ফিন অ্যালেন। বাংলাদেশের স্পিনার নাসুম আহমেদ দুই ওভারের কোটা পূরণ করেছেন পাওয়ার প্লেতেই। 

ইনিংসের প্রথম ওভারে বল হাতে নিয়ে গাপটিলকে ৯ রান দেন নাসুম। তৃতীয় ওভারে অ্যালেন টানা তিন চারের পর একটি ছক্কা মারেন। ওই ওভারে ২০ রান দেন বাংলাদেশি স্পিনার। তার ২ ওভারে নাসুম কিউইরা তুলেছে ২৯ রান। পাওয়ার প্লের তিন ওভারে তাদের সংগ্রহ ৪৩ রান।

প্রথম ওভারে ৯ রান দিলো বাংলাদেশ

১০ ওভারের ইনিংসে খেলতে নেমে মার্টিন গাপটিল ও ফিন অ্যালেন ব্যাটিং শুরু করেছেন। নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ টি-টোয়েন্টির প্রথম ওভারে বল হাতে নেন বাংলাদেশের স্পিনার নাসুম আহমেদ। এই ওভারে নিউ জিল্যান্ড করেছে ৯ রান, একটি ছয়সহ যার সবগুলোই এসেছে গাপটিলের ব্যাট থেকে। 

টস জিতে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ

নির্ধারিত সময়ের প্রায় দুই ঘণ্টা পর শুরু হচ্ছে নিউ জিল্যান্ড ও বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি। মাহমুদউল্লাহর অনুপস্থিতিতে ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক লিটন দাশ টস জিতেছেন এবং বাংলাদেশ নামছে ফিল্ডিংয়ে।

ম্যাচটা হবে ১০ ওভার করে। পাওয়ার প্লে প্রথম তিন ওভার। একজন বোলার সর্বোচ্চ দুই ওভার করতে পারবেন। ম্যাচটা শুরুর কথা ছিল বাংলাদেশ সময় বেলা ১২টায়।

বাংলাদেশে তিনটি পরিবর্তন

বাংলাদেশ দলে তিনটি পরিবর্তন আনা হয়েছে। পেসার রুবেল হোসেন দলে এসেছেন সাইফ উদ্দিনের জায়গায়, ২০১৮ সালের আগস্টের পর প্রথমবার টি-টোয়েন্টিতে ডানহাতি বোলার। মাহমুদউল্লাহর জায়গায় খেলবেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। মোহাম্মদ মিথুনকে বাদ দিয়ে নেওয়া হয়েছে নাজমুল হোসেন শান্তকে।

নিউ জিল্যান্ডও একাদশে দুটি পরিবর্তন এনেছে। হামিশ বেনেট ও ইশ সোধির বদলে খেলবেন টড অ্যাস্টল ও লকি ফার্গুসন।

বাংলাদেশ একাদশ: নাজমুল হোসেন শান্ত, নাঈম শেখ, সৌম্য সরকার, লিটন কুমার দাশ (অধিনায়ক ও উইকেটকিপার), আফিফ হোসেন ধ্রুব, শেখ মেহেদী হাসান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, তাসকিন আহমেদ, শরিফুল ইসলাম, রুবেল  হোসেন, নাসুম আহমেদ। 

১টা ৫৫ মিনিটে টস

নিউ জিল্যান্ড ও বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি ম্যাচ নিয়ে অবশেষে স্বস্তির খবর এলো। বৃষ্টির কারণে বিলম্বিত ম্যাচের টস বাংলাদেশ সময় ১টা ৫৫ মিনিটে হবে বলে জানানো হয়েছে।

অপেক্ষা বাড়াচ্ছে অকল্যান্ড..

কেবল অপেক্ষাই বাড়ছে। অকল্যান্ড থেকে আপাতত কোনও সুখবর নেই। বৃষ্টিতে ম্যাচ নির্দিষ্ট সময়ে শুরু হতে পারেনি। আদৌ ম্যাচ হবে কিনা- সেই আশঙ্কাও শুরু হয়েছে। এই বৃষ্টি হচ্ছে। আবার এই থামছে। পিচে কাভার দেওয়া হচ্ছে। আবার খানিকবাদে আম্পায়াররা মাঠ পরিদর্শনে নামছেন। আকাশে মেঘ আছে। বাতাসে বৃষ্টির ছাঁট। মাঠও বৃষ্টিতে ভেজা। এদিকে সময় বয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টা ৪৮ মিনিটের মধ্যে খেলা শুরু করা না গেলে এই ম্যাচ বাতিল হয়ে যাবে। অন্তত পাঁচ ওভারের খেলা শুরুর শেষ সময় সেটাই। 

তিন ম্যাচের টি- টোয়েন্টি সিরিজে নিউ জিল্যান্ড প্রথম দুটিতে জিতে ট্রফি ঘরে তুলেছে। অকল্যান্ডে সিরিজের শেষ ম্যাচ খেলে দেশে ফিরবে বাংলাদেশ। তবে বড় প্রশ্ন ম্যাচটা কি মাঠে গড়াবে?

থেমেছে বৃষ্টি, মাঠে আম্পায়াররা

বৃষ্টি থেমেছে। আম্পায়াররা মাঠে ঢুকেছেন, তারা কথা বলছেন। কভার সরানো হয়েছে পিচ থেকে।

বৃষ্টি অবিরাম, হতে পারে পাঁচ ওভারের ম্যাচ 

অবিরাম বৃষ্টি হচ্ছে। তবে আকাশ পরিষ্কার হয়ে গেলে বাংলাদেশ সময় ২টা ৪৮ মিনিট থেকে পাঁচ ওভার করে ম্যাচ হতে পারে। অবশ্য এখনও তা নিশ্চিত নয়।

ফের শুরু গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি

ফের শুরু হয়েছে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি। এখনও মাঠের মাঝখানে একটি কভার দিয়ে রাখা হয়েছে। অপেক্ষা চলছেই।

সরানো হয়েছে ইডেন পার্কের কভার

টসের নির্ধারিত সময়ের ১৫ মিনিট পর সরানো হয়েছে ইডেন পার্কের কভার। বৃষ্টি চলে গেছে আপাতত। তাতে করে দেরিতে হলেও ম্যাচ শুরুর আশা জেগেছে। কয়েক জন খেলোয়াড়কে মাঠেও দেখা গেছে ঘাম ঝরাতে।

বৃষ্টিতে কভারে ঢাকা ইডেন পার্ক, দেরিতে টস

নেপিয়ারের ম্যাকলিন পার্কে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি বিঘ্নিত হয়েছিল বৃষ্টিতে। বৃষ্টি আইনের মারপ্যাঁচে টার্গেট ছাড়াই বাংলাদেশকে পাঠানো হয়েছিল সমালোচিত। এবার নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টির শুরুতেই বৃষ্টির বাধা।

বাংলাদেশ সময় সাড়ে ১১টায় টস হওয়ার কথা, ম্যাচ শুরু হবে আধঘণ্টা পর। কিন্তু বৃষ্টির কারণে ইডেন পার্ক এখনও কভারে ঢাকা। মাঠের টার্ফ ম্যানেজার ব্লেয়ার ক্রিস্টিয়ানসেন ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। এই অবস্থায় নির্ধারিত সময়ে টস করা সম্ভব হচ্ছে না।

এ ম্যাচে বাংলাদেশ পাচ্ছে না নিয়মিত অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে। ইনজুরিতে তার খেলা হচ্ছে না। লিটন কুমার দাশ এ ম্যাচে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবেন।

জানা গেছে, দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে মাহমুদউল্লাহর বাঁ ঊরুতে টান পড়েছিল। চোট নিয়ে খেলে গেলেও শেষ ম্যাচ খেলার মতো পুরোপুরি ফিট নন তিনি।

ঢাকা/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়