Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ১৯ জুন ২০২১ ||  আষাঢ় ৫ ১৪২৮ ||  ০৬ জিলক্বদ ১৪৪২

ইউরোপে আবার উড়বে ইংলিশদের বিজয় নিশান

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:২২, ৬ মে ২০২১   আপডেট: ১১:২৪, ৬ মে ২০২১
ইউরোপে আবার উড়বে ইংলিশদের বিজয় নিশান

ইউরোপিয়ান ফুটবলের চূড়ায় এবার উঠবে ইংল্যান্ডের ঝান্ডা। ইউরোপে যে ইংলিশদের একচ্ছত্র আধিপত্য চলছে তা চোখ এড়িয়ে যাওয়ার মতো নয়। প্রমাণ এই মহাদেশের দুটি শীর্ষ ক্লাব প্রতিযোগিতা। চ্যাম্পিয়নস লিগে অল ইংলিশ ফাইনালে মুখোমুখি হবে নবাগত ম্যানসিটি ও একবারের চ্যাম্পিয়ন চেলসি। আর ইউরোপা লিগেও শিরোপার ম্যাচ নিশ্চিত করার পথে ম্যানইউ ও আর্সেনাল।

কদিন আগে উয়েফা র‌্যাংকিংয়ে লা লিগার ৯ বছরের রাজত্ব গুঁড়িয়ে শীর্ষে জায়গা করে নেয় ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ। চ্যাম্পিয়নস ও ইউরোপা লিগের চারটি সেমিফাইনালে ৪ প্রিমিয়ার লিগ ক্লাব ওঠায় নিঃসন্দেহে এই স্বীকৃতির দাবি তারা রাখে।

তাও আবার শেষ চারে সেরা দুই দলকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে ম্যানসিটি ও চেলসি। সেমিফাইনালের দুই লেগে গতবারের রানার্সআপ পিএসজিকে ২-১ ও ২-০ গোলে হারিয়ে বিদায় করেছে সিটিজেনরা। সব মিলিয়ে ৪২তম ও ইংল্যান্ডের নবম দল হিসেবে শীর্ষ ইউরোপিয়ান ক্লাব প্রতিযোগিতার ফাইনালে তারা।

চেলসি থামিয়ে দিয়েছে ১৩ বারের রেকর্ড চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদকে। সেমিফাইনালের দুই লেগে তাদের স্কোর ১-১ গোলে ড্র ও ২-০ গোলের জয়। তাতে ৯ বছর পর ফাইনালে ব্লুরা। ২০১২ সালে নিজেদের সবশেষ ফাইনালে বায়ার্ন মিউনিখকে তাদের মাটিতেই হারায়। নির্ধারিত ও অতিরিক্ত সময় ১-১ গোলে শেষ হওয়ার পর জার্মান জায়ান্টদের বিপক্ষে টাইব্রেকারে ৪-৩ গোলে জিতে প্রথম শিরোপার স্বাদ পায় চেলসি। তাদের হাত ধরে ইংল্যান্ডে ১৩তম চ্যাম্পিয়নস লিগ ট্রফি ফিরেছিল।

এই চেলসির সঙ্গে জড়িয়ে আছে আরেকটি অল ইংলিশ ফাইনাল। ২০০৮ সালে ইউরোপিয়ান কাপ ও চ্যাম্পিয়নস লিগ সব মিলিয়ে ফাইনালে প্রথমবার হয়েছিল ইংল্যান্ডের দুই ক্লাবের লড়াই। ওই আসরে স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসনের ম্যানইউর মুখোমুখি হয়েছিল চেলসি। মৌসুমের মাঝপথে হোসে মরিনহোকে বরখাস্ত করার পর গ্র্যান্ট আভ্রামের অধীনে প্রথমবার ফাইনালে ওঠে ব্লুরা। অভিজ্ঞতা ও কাগজে কলমে পিছিয়ে থেকে জেতা হয়নি তাদের শিরোপা। মস্কো ফাইনালে ১-১ গোলে নির্ধারিত ও অতিরিক্ত সময় শেষে টাইব্রেকারে ৬-৫ গোলে চেলসিকে হারিয়ে তৃতীয়বার চ্যাম্পিয়ন হয় ম্যানইউ।

তারপর থেকে ইউরোপে চলেছে জার্মান ও স্প্যানিশদের আধিপত্য। ২০১৩ সালে চ্যাম্পিয়ন হয় বায়ার্ন। পরে টানা পাঁচ মৌসুম শিরোপা জিতেছে স্পেনের কোনও ক্লাব- চারবার রিয়াল ও একবার বার্সেলোনা। প্রায় এক যুগের অপেক্ষার পর ইউরোপ সেরার লড়াইয়ে দেখা যায় দ্বিতীয় অল ইংলিশ ফাইনাল। সেমিফাইনালে বার্সা ও আয়াক্সের বিপক্ষে অবিস্মরণীয় প্রত্যাবর্তনের নজির গড়ে শিরোপা নির্ধারণী মঞ্চে ঠাঁই পায় লিভারপুল ও টটেনহ্যাম হটস্পার।

এই অল ইংলিশ ফাইনাল হয়েছে একপেশে। প্রথম ফাইনালে ওঠা স্পারদের ২-০ গোলে হারিয়ে ১৪ বছর পর ইউরোপের চ্যাম্পিয়ন হয় লিভারপুল। চেলসি ও ম্যানসিটি সেমিফাইনালের বাধা পেরোনোয় তিন বছরে দ্বিতীয়বার হচ্ছে অল ইংলিশ ফাইনাল। এবার দেখার পালা ইউরোপিয়ান ফুটবল ইতিহাসের তৃতীয় অল ইংলিশ ফাইনালে প্রথম সুযোগেই সিটিজেনরা বাজিমাত করে নাকি ইস্তানবুলের কামাল আতাতুর্ক স্টেডিয়ামে দ্বিতীয়বার ট্রফি উঁচু করে ধরবে চেলসি! আগামী ২৯ মে পাওয়া যাবে এই প্রশ্নের উত্তর। তবে যেই জিতুক না কেন এটা নিশ্চিত যে ইউরোপ সেরার মঞ্চে আবারও উড়বে ইংল্যান্ডের নিশান।

ঢাকা/ফাহিম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়