Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২৮ অক্টোবর ২০২১ ||  কার্তিক ১২ ১৪২৮ ||  ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

Risingbd Online Bangla News Portal

প্রিন্সের টিপস ও মেহেদীর প্রত্যাশা

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:০৯, ২৯ আগস্ট ২০২১   আপডেট: ২২:৩৫, ২৯ আগস্ট ২০২১

ব্যাট হাতে ইনডোরের নেটে ঢুকতেই শেখ মেহেদী হাসান কে থামালেন ব্যাটিং কোচ অ্যাশওয়েল প্রিন্স। ছায়া ব্যাটিং করে দেখিয়ে দিচ্ছেন পজিশন-প্লেসমেন্ট। তখন ব্যাট ধরাও শেখালেন হাতে-কলমে। মেহেদীর তীক্ষ্ণ নজর প্রিন্সের ব্যাটিং ক্লাসে। বাংলাদেশের ক্রিকেট নিয়ে যারা নিয়মিত খোঁজ খবর রাখেন তাদের হয়তো জানারাই কথা মেহেদীকে নিয়ে কেনো ব্যাটিং কোচের এমন তোড়জোড়।

নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে ৫ ম্যাচের সিরিজকে কেন্দ্র করে চলা অনুশীলন ক্যাম্পের তৃতীয় দিন রোববারের (২৯ আগস্ট) দৃশ্য এটি। এখন পর্যন্ত ১৪টি টোয়েন্টির ক্যারিয়ারে  ব্যাটিং করেছেন ৫টি পজিশনে। সবশষ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওপেনিংয়ে নেমেছিলেন প্রথমবারের মতো। ৫ টি-টোয়েন্টির এই সিরিজে এদিনই ওপেনিংয়ে সর্বোচ্চ রান (৪২) আসে। মেহেদীর ব্যাট থেকে আসে ১৩ রান। এ ছাড়া তৃতীয়, চতুর্থ, সপ্তম ও অষ্টম পজিশনেও ব্যাটিং করেছেন। সর্বোচ্চ ৪ ম্যাচ খেলেছেন সপ্তম পজিশনে। এই পজিশনে ১০৬.৮১ স্ট্রাইকরেটে করেছেন ৪৭ রান।

এদিন ব্যাটিং অনুশীলনে নামার আগে গণমাধ্যমে পাঠানো ভিডিও বার্তায় জানিয়েছেন ব্যাট হাতে তিনি দলের জন্য ভূমিকা রাখতে চান।  'অবশ্যই ব্যাটিংয়ের ভূমিকা (নিজের) দলের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। সেটা ১০ রান হোক বা ৫ রান বা ২০ রান। আমি যে পজিশনে ব্যাট করি আসলে তখন ১০০ মারার সুযোগ থাকে না, ৫০ মারারও সুযোগ থাকে না। তখন ১০ রানই খুবই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে যায়। যদি ৫ বলে বা ৬ বলে ১০ করি, দলকে অনেক এগিয়ে দেয়।'

প্রিন্সের টিপস পেয়ে ব্যাট হাতে বেশ কিছুক্ষণ নিজেকে ঝালিয়ে নেন মেহেদী। স্পিনার থ্রোয়ারদের বিপক্ষে খেলতে থাকেন হাত খুলে। সামনেই দাঁড়িয়ে নজর রাখছিলেন ব্যাটিং কোচ। পাশে ছিলেন প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোও। এখন পর্যন্ত ১৪ ম্যাচে মেহেদীর ব্যাট থেকে ১৩.২২ গড়ে আসে ১১৯ রান। স্ট্রাইক রেট ৯৯.১৬। সর্বোচ্চ ২৩ রানের ইনিংস খেলেন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে চার নম্বরে ব্যাটিং করতে নেমে। মেহেদীকে যে উপরে অর্থাৎ টপ অর্ডারে ব্যাটিং করতে হয় সেটিও বেশ ভালো করেই জানেন মেহেদী। তাই জানালেন সুযোগ পেলে লাগাতে চান কাজে।

মেহেদী বলেন, 'বাংলাদেশ দলে মাঝেমধ্যে ওপরেও খেলতে হয়, তখন একটা সুযোগ থাকে, যে সুযোগটা আমি এখনও পর্যন্ত কাজে লাগাতে পারিনি। একটা সুযোগ থাকে ওইখানে টি-টোয়েন্টিতে বেশ কিছু রান করার। আমি সবসময় চেষ্টা করি নিজের সেরাটা দেওয়ার জন্য। দলের পছন্দমতো যেখানে ম্যানেজমেন্ট থেকে বলা হয়, আমি চেষ্টা করি সেখান থেকে উন্নতি করার।'

সবশেষ অস্ট্রেলিয়া সিরিজে এই স্পিন অলরাউন্ডার বল হাতেও দারুণ করেছেন। বল হাতে ইনিংসের সূচনা হয়েছে তার হাত ধরেই। প্রথম ম্যাচে ওপেনার অ্যালেক্স ক্যারিকে ফিরিয়েছিলেন প্রথম বলেই। তিন ম্যাচে এনে দিয়েছেন ব্রেক-থ্রো। ৫ ম্যাচে ওভার প্রতি ৫.৮৮ রান দিয়ে নিয়েছেন ৪ উইকেট। পাওয়ার প্লে-তে উইকেট নেওয়ার সঙ্গে তার আঁটসাঁট বোলিংয়ে শুরুতেই চাপে পড়ে প্রতিপক্ষ অজিরা। এই সিরিজে ১৭ রান দিয়ে সর্বোচ্চ ২ উইকেট নিয়েছেন।

নতুন বলে সূচনা করা উপভোগ করেন জানিয়ে মেহেদী বলেন,  'নতুন বলে বল করলে উপভোগ তো করতেই হয়। তবে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট, মাঝেমধ্যে মার খেলে তো উপভোগটা থাকে না। যেহেতু টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট, অনেক চিন্তা ভাবনা করে বল করতে হয়। কম সময়ের খেলা। তাৎক্ষনিক অনেক কিছু করতে হয়। সেক্ষেত্রে নতুন বলের ভূমিকাটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। যদি আমি সফল হতে পারি, হাতলে দলের জন্য ভালো। পাওয়ারপ্লে ভালোভাবে পার করে দেওয়া যায়।' 

ঢাকা/রিয়াদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়