ঢাকা     বুধবার   ২৫ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯ ||  ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

মার্কার সাক্ষাৎকারে মেসি, ‘একদিন বার্সেলোনায় ফিরব’

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:২৮, ২৩ নভেম্বর ২০২১  
মার্কার সাক্ষাৎকারে মেসি, ‘একদিন বার্সেলোনায় ফিরব’

গত মৌসুমে বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তি শেষ হওয়ার পর ফ্রি ট্রান্সফারে প্রিয় ক্লাব ছেড়ে প্যারিস সেন্ট জার্মেইতে পা রেখেছেন লিওনেল মেসি। অন্য দেশের অন্য ক্লাবে চলে গেলেও বার্সার খোঁজ খবর নিয়মিত রাখেন ৩৪ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড। সপ্তাহখানেক আগে জানান, কোনো একদিন ন্যু ক্যাম্পে ফেরার ইচ্ছা আছে তার। এবার স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক মার্কাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারেও জোর গলায় সেই কথা বললেন তিনি।

প্রথমবার প্যারিসে নিজের নতুন বাসায় মার্কাকে স্বাগত জানান মেসি। ফ্রান্সের রাজধানীতে মানিয়ে নেওয়া, চ্যাম্পিয়নস লিগে পিএসজির সম্ভাবনা, সাবেক ক্লাব নিয়ে ভাবনা ও সাবেক চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী সার্জিও রামোসের সঙ্গে ড্রেসিংরুম ভাগাভাগি নিয়েও আলোচনা করেন তিনি।

মার্কা: অষ্টম পিচিচি অ্যাওয়ার্ড জিতেছেন, যা লা লিগায় রেকর্ড...

মেসি: সত্যিটা হলো এতগুলো পিচিচি জেতা বিস্ময়কর। ছয়বারের বিজয়ী (তেলমো) জারাকে ছোঁয়া এবং এমনকি তাকে টপকে যাওয়া মনে হয়েছিল অসম্ভব। এটা দর্শনীয় ব্যাপার।

আপনি লা লিগা ছেড়েছেন, কিন্তু সেটিসহ আরো অনেক রেকর্ড গড়েছেন যা হয়তো কেউ ভাঙতে পারবে না, আপনিও কি তাই মনে করেন না?

মেসি: এখন আমি প্যারিসে, আমি আসলে প্রাপ্য মূল্যটা দিতে পারি না। আসলে সময় পাই না। তিন দিনে একটি করে ম্যাচ খেলতে হয় এবং এসব নিয়ে ভাবার সময় নেই। যখন অবসর নিবো, তখন হয়তো যথেষ্ট সময় পাব এবং নিজেকে বলব আমি যথেষ্ট ভাগ্যবান যে এত কিছু অর্জন করেছি।

প্যারিসে আপনি বেশ ভালোভাবে মানিয়ে নিয়েছেন, একটি বাসা, বাচ্চাদের স্কুল সমস্যাও আর নেই। আমরা দেখেছি আন্তোনেলাকে নিয়ে ডিনারে গেছেন। সত্যিই মানিয়ে নিয়েছেন।

মেসি: এখন আমি খুব ভালো আছি। আমাদের নতুন বাসায় ঢোকার পর থেকে পুরোপুরি মানিয়ে নিয়েছি এবং বাচ্চারা স্কুলে যাওয়া শুরু করেছে, নিত্যদিনের কাজ করছে। বাছাই খেলতে কয়েকবার আর্জেন্টিনায় যেতে হয়েছিল। কিন্তু আমি ঠিকঠাক থিতু হতে পেরেছি।

আপনি তো আছেনই, কিলিয়ান এমবাপ্পে ও নেইমার এবং আরো কয়েকজন আছেন। তারপরও কি মনে হয় পিএসজি চ্যাম্পিয়নস লিগে ফেভারিট নয়?

মেসি: প্রত্যেকে বলে যে আমরা ফেভারিট। আমিও সেটা অস্বীকার করব না যে আমরা অন্যতম শিরোপাপ্রার্থী। কিন্তু সত্যিকারের শক্তিশালী দল হতে এখনো অনেক কিছু করতে হবে। দল হিসেবে আমাদের একত্রিত হতে হবে এবং সেটা অর্জনে আমাদের সেরা কয়েকজন খেলোয়াড় আছে। কিন্তু আমরা শুধু একা নয়, আরো দারুণ সব দল আছে প্রার্থী হিসেবে। চ্যাম্পিয়নস লিগ খুব কঠিন প্রতিযোগিতা, এটাই একে সুন্দর ও বিশেষ করে তুলেছে। সেরা দল আছে এই প্রতিযোগিতায় এবং অনেক বেশি জটিল হয়ে উঠছে এটি। হ্যাঁ, আমরা ফেভারিটদের একটি।

চ্যাম্পিয়নস লিগে আপনার চোখে শিরোপা প্রার্থী কোন কোন দল?

মেসি: এখন লিভারপুল ভালো করছে। চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ী লিভারপুল দলটির মতোই লাগছে তাদের। এছাড়া ম্যানচেস্টার সিটি, বায়ার্ন মিউনিখ, রিয়াল মাদ্রিদ, অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ....। এছাড়া অনেক দল চ্যাম্পিয়নস লিগের জন্য লড়াই করবে।

ক্রিস্টিয়ানোর পারফরম্যান্স নিয়ে কী বলবেন?

মেসি: (ম্যানচেস্টার) ইউনাইটেড খুব শক্তিশালী দল, তাদের সেরা খেলোয়াড়রা আছে। ক্রিস্টিয়ানো এই দলকে ভালোভাবে জানে এবং সে দারুণভাবে দলটিতে মানিয়ে নিয়েছে। শুরু থেকে গোল করেছে সে, সবসময়ে মতো এবং মানিয়ে নিতে কোনো সমস্যা হয়নি। প্রিমিয়ার লিগে আমরা যেমনটা ভেবেছিলাম তেমন ভালো অবস্থায় নেই (ম্যানইউ)। কিন্তু এটা খুব কঠিন প্রতিযোগিতা যেখানে অনেক কিছু পাল্টে যেতে পারে। ডিসেম্বরের পর অনেক কিছু বদলে যাবে এবং যে কোনো কিছু ঘটতে পারে।

সত্যি করে বলুন তো, রোনালদোর সঙ্গে দ্বৈরথ মিস করেন না?

মেসি: অনেক দিন হয়ে গেল একই লিগে আমাদের প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয় না। আমরা একই লক্ষ্যের জন্য আলাদাভাবে ও একটি দল হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছি। আমাদের জন্য এটা (দ্বৈরথ) ছিল খুব সুন্দর সময় এবং ভক্তদের জন্যও, কারণ তারা এটা খুব উপভোগ করত। এটা একটি সুন্দর স্মৃতি যা ফুটবল ইতিহাসে অক্ষয় হয়ে থাকবে।

স্পেনে প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন, কিন্তু এখন সার্জিও রামোসের সঙ্গে একই ড্রেসিংরুমে। অনুভূতি কেমন?

মেসি: এখন কিছুই মনে হয় না। প্রথম দিকে অদ্ভুত লাগত কারণ অনেক বছর ধরে আমরা প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলাম বার্সেলোনা ও মাদ্রিদে। অনেক ক্লাসিকোয় আমরা মুখোমুখি হয়েছি। কিন্তু ওসব তো অতীত এবং আমরা সবসময় একে অন্যকে শ্রদ্ধা করেছি, ওইসব ক্লাসিকোতে আমাদের মধ্যে কতটা প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছিল তা কোনো ব্যাপার নয়। তাকে আজ সতীর্থ হিসেবে পাওয়া দারুণ। ধীরে ধীরে সে নিজের ক্ষিপ্রতা ফিরে পাচ্ছে এবং আশা করি দ্রুত খেলতে পারবে সে কারণ আমাদের লক্ষ্য পূরণের যুদ্ধে সে হতে পারে মৌলিক খেলোয়াড়।

জাভি বার্সেলোনাকে কী দিতে পারে?

মেসি: সে অনেক অবদান রাখতে পারে। সে এমন কোচ যে অনেক জানে এবং জায়গাটি খুব ভালোভাবে চেনাজানা তার। ছোটবেলা থেকে বার্সেলোনায় সে থেকেছে। বার্সেলোনাকে আশা ফিরিয়েছে সে, কারণ ভক্ত ও খেলোয়াড়দের মধ্যে সে পূজনীয় এক ব্যক্তি। তরুণ খেলোয়াড়দের জন্য সে খুব গুরুত্বপূর্ণ কোচ কারণ তারা তার কাছ থেকে শিখতে যাচ্ছে। তাকে সঙ্গে নিয়ে দল অনেক উন্নতি করবে, কোনো সন্দেহ নেই।

লাপোর্তা একদিন বলেছিলেন, তিনি বিশ্বাস করেন আপনি ও ইনিয়েস্তা বার্সেলোনায় ফিরতে পারেন। আপনি কি স্বপ্ন সত্যি করবেন?

মেসি: একজন খেলোয়াড় হিসেবে?

ওই সময় তিনি সুনির্দিষ্ট করে কিছু বলেননি, যদিও পরে আরেক সাক্ষাৎকারে তাকে বলতে শোনা গেছে হয়তো খেলোয়াড় হিসেবে যাবেন না আপনি।

মেসি: আমি সবসময় বলেছি কোনো একটি সময় আমি বার্সেলোনায় ফিরব। কারণ সেটা আমার ঘর এবং সেখানে আমি বাস করতে যাচ্ছি। এবং অবশ্যই আমি যদি অবদান রাখতে পারি এবং ক্লাবকে সাহায্য করতে পারি তাহলে অবশ্যই ফিরতে চাই।  

ঢাকা/ফাহিম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়