ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৬ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৩ ১৪৩১

মিরপুরে পুলিশের লাঠিচার্জ 

‘শুরুর আগেই শেষ, ২৫ হাজার টিকিট গেলো কোথায়’ 

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:৫৬, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪   আপডেট: ১৬:২৫, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
‘শুরুর আগেই শেষ, ২৫ হাজার টিকিট গেলো কোথায়’ 

কেউ এসেছেন ভোর ৪টায়, কেউ ৫টায়। তখন থেকেই লাইনে দাঁড়ানো শুরু। উদ্দেশ্য বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ফাইনালের মহারণের টিকিট। কিন্তু এত আগে এসেও হতাশ হতে হয়েছে দর্শকদের। সাড়ে ৯টায় কাউন্টার খোলার কথা থাকলেও খোলা হয় দুপুরে। 

বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকে অপেক্ষায় থাকা দর্শকদের যথাসময়ে টিকিট দিতে গড়িমসি করা হয় কাউন্টার থেকে। বারবার বলা হয় ‘টিকিট নেই’। এতে দর্শকরা ক্ষুদ্ধ হলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে বসে। এতে ছত্রভঙ্গ হয়ে লাইন থেকে বেরিয়ে যান ভোর থেকে অপেক্ষায় থাকা দর্শকরা। 

এই চিত্র শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের ১ নাম্বার গেইট সংলগ্ন টিকিট কাউন্টারে। তবে কেউ হাল ছাড়েননি। আবারও লাইনে দাঁড়িয়ে যান। শেষ পর্যন্ত দর্শকদের রোষানলে পড়ে পুলিশি পাহারায় দুপুর দেড়টা নাগাদ টিকিট ছাড়তে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ। প্রায় ৫ ঘণ্টা দেরিতে কেন টিকিট ছাড়া হয়েছে এর উত্তর দিতে পারেননি নিরাপত্তায় থাকা পুলিশ সদস্যরাও।

মোহাম্মদপুর থেকে আসা এক দর্শক রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘আমি ভোরে এসে লাইনে দাঁড়াই। কাউন্টার থেকে বলে টিকিট শেষ। বিক্রি শুরুর আগেই শেষ, কিন্তু এত টিকিট গেলো কোথায়?।’

এ ছাড়াও লাইনে থাকা বেশ কয়েকজন দর্শকের সঙ্গে কথা বলে রাইজিংবিডি। একজন এসে এই প্রতিবেদককে হাতে মারের দাগও দেখান।  লম্বা সময় লাইনে থাকলেও তারা আছেন অনিশ্চয়তায়। শেষ পর্যন্ত টিকিট পাবেন কী-না এই সংশয়ে ভুগছেন। 
 
এ দিকে ইনডোরের টিকিট কাউন্টারের চিত্রও একই। অনেকে কারসাজি করে লাইনে দাঁড়িয়ে সাধারণ দর্শকদের বঞ্চিত করছেন বলেও অভিযোগ করেছেন। সেখানকার চিত্র আরও করুণ। দর্শকরা আছেন অনিশ্চয়তার মধ্যে। 

মিরপুরের আগামীকাল শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ফাইনালের মহারণে লড়বে ফরচুন বরিশাল-কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। প্রথম ও দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে দুই দলই রংপুর রাইডার্সকে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট কাটে। 

এর আগে জানানো হয়েছিল, আজ এবং আগামীকাল টিকিট কিনতে পারবে বলে দর্শকরা। কিন্তু টিকিট নিয়ে এমন বাজে অবস্থা কেন? বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সংশ্লিষ্ট বিভাগে যোগাযোগ করেও সাড়া মেলেনি। ফ্র্যাঞ্চাইজির চাহিদাও পূরণ করতে পারছে না বিসিবি। বরিশাল প্রায় দুই হাজার টিকিট চেয়ে পাচ্ছে হাজার খানেকের মতো। 

এ ছাড়া সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, ক্রিকেট ক্লাব, স্টেক হোল্ডার, সরকার দলীয় নেতাদের চাহিদা পূরণ করতে হিমশিম খাচ্ছে বোর্ড। দর্শকরাও পাচ্ছে না, চাহিদামতো ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোও পাচ্ছে না, ২৫ হাজার ধারণক্ষমতা সম্পন্ন এই স্টেডিয়ামের টিকিটগুলো কোথায়? 

সর্বনিম্ন ২০০ টাকায় মিলছে ইস্টার্ন গ্যালারির টিকিট। স্বশরীরে ও অনলাইনে দুভাবেই টিকিট কেনা যাচ্ছে। অনলাইনে টিকিট কেনা গেছে ২১ ফেব্রুয়ারি থেকে। গ্র্যান্ড স্ট্যান্ডের টিকিটের দাম ২ হাজার ৫০০ টাকা। ভিআইপি স্ট্যান্ডের টিকিট পাওয়া যাবে ১ হাজার ৫০০ টাকায়। এছাড়া, ক্লাব হাউজ ৮০০ টাকায় এবং নর্থ ও সাউথ স্ট্যান্ডের টিকিট পাওয়া যাবে ৪০০ টাকায়।

ঢাকা/রিয়াদ/বিজয়

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়