ঢাকা, রবিবার, ১০ আষাঢ় ১৪২৫, ২৪ জুন ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

ভয়ংকর সব দাবানল

আহমেদ শরীফ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৮-০৫-২২ ৯:৪১:০৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৫-২২ ৯:৪১:০৭ পিএম

আহমেদ শরীফ : বনাঞ্চলে বজ্রপাতের কারণে বা কোনো শিকারির অসতর্কতায় অথবা বনে কোনো দুর্বৃত্ত আগুন লাগালে তা ছড়িয়ে পড়ে দ্রুত। আমেরিকা, কানাডা ও অস্ট্রেলিয়ায় বেশি দাবানলের ঘটনা ঘটে।

ইতিহাসে অনেক দেশের বনাঞ্চলে ভয়াবহ দাবানল বা আগুন লাগার ঘটনায় পুড়ে ছাই হয়েছে বিশাল সব বনাঞ্চল। সেসব নিয়ে এ প্রতিবেদন।

* গ্রেট পেশটিগো ফায়ার : আমেরিকার ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ দাবানলের ঘটনা ঘটে ১৮৭১ সালের ৮ অক্টোবর। উইসকোনসিন ও মিশিগান স্টেটের বনাঞ্চলে ছড়িয়ে পড়া ওই আগুনে দুই হাজারের মতো মানুষ মারা যায়। অসংখ্য গাছপালা, ঘর-বাড়ি পুড়ে ক্ষতি হয় কয়েক মিলিয়ন ডলার।

* দ্য বিগ বার্ন : ১৯১০ সালে আমেরিকায় দ্য গ্রেট ফায়ার নামে যে ভয়াবহ দাবানলের ঘটনা ঘটে, তা ইতিহাসে দ্য বিগ বার্ন, বিগ ব্লো আপ, ডেভিলস ব্রুম ফায়ার নামেও পরিচিত। দাবানলের আগুনে মন্টানা, ইডাহো এবং ওয়াশিংটনের প্রায় ৩ মিলিয়ন একর এলাকার গাছপালা, বাড়িঘর পুড়ে যায়। দুই দিন ধরে জ্বলতে থাকা আগুনে ৮৭ জন মানুষ মারা যায়, তাদের বেশিরভাগই ছিলেন ফায়ার সার্ভিস কর্মী। খুব ক্ষতিকর না হলেও আমেরিকার ইতিহাসে দাবানলে সবচেয়ে বড় অগ্নিকান্ডের ঘটনা ছিল এটি।

* গ্রেট মিরামিচি ফায়ার : ১৮২৫ সালে ৭ অক্টোবর কানাডার নিউ বার্নসউইকে ইতিহাসের অন্যতম ভয়ংকর দাবানলের আগুনে পুড়ে মারা যায় ১৬০ জন। প্রায় ৩০ লাখ একর বনাঞ্চল পুড়ে যায়।

* দ্য ওয়ালো ফায়ার : ২০১১ সালের ১১ মে আমেরিকান স্টেট অ্যারিজোনার ইতিহাসে ঘটে বনাঞ্চলে ভয়াবহ আগুনের ঘটনা। হোয়াইট মাউন্টেন এলাকায় ক্যাম্পফায়ারের পর এই আগুন লেগে ছড়িয়ে পড়ে নিউ মেক্সিকো স্টেটে। আগুন জ্বলতে থাকে ৮ জুলাই পর্যন্ত। এতে ৫ লাখ ৩৮ একরের বেশি বনাঞ্চল পুড়ে ছাই হয়। তার মাঝে ৫ লাখ ২২,৬৪২ একর ছিল অ্যারিজোনার। তবে এই আগুনে ভাগ্যক্রমে কেউ মারা যায়নি।

* দ্য গ্রেট পরকিউপাইন ফায়ার : কানাডার ইতিহাসে আরেকটি ভয়াবহ দাবানলের ঘটনা ঘটে ১৯১১ সালে। অন্টারিও নর্থল্যান্ডের ওই আগুনে ৫ লাখ একরের বেশি বন পুড়ে ছাই হয়। এতে প্রথমে কয়েকশ জন মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেলেও পরে সরকারি হিসেবে অন্তত ৭০ জন মারা যাওয়ার কথা বলা হয়।

* দ্য ব্ল্যাক ড্রাগন ফায়ার : ১৯৮৭ সালে চীন ও সোভিয়েত ইউনিয়নের বনাঞ্চলে দেখা দেয় দাবানলের ভয়ংকর আগুন। চীনের ৩০০ বছরের ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ ছিল ওই আগুন। এতে ২০০ জনের বেশি মারা যায়, দগ্ধ হয় কয়েক শ’ মানুষ। আগুনে ১৮ মিলিয়ন একরের বন পুড়ে যায়। বড় ধরনের অর্থনৈতিক ক্ষতি হয় এই আগুনে।

* দ্য গ্রেট থাম্ব ফায়ার : আমেরিকার মিশিগানে ১৮৮১ সালের ৬ সেপ্টেম্বর এক দাবানলের কারণে অন্তত ২০টি গ্রাম পুড়ে যায়। মারা যায় কমপক্ষে ২৮২ জন।

* দ্য গ্রেট ম্যাথেসন ফায়ার : ১৯১৬ সালের ২৯ জুলাই কানাডার অন্টারিওতে দাবানলের আগুন ছড়িয়ে পড়লে প্রায় ৫ লাখ একর বন পুড়ে যায়। মারা যায় ২৭৩ জন।

* গ্রিক ফরেস্ট ফায়ার : ২০০৭ সালে গ্রিসে দাবানলের আগুন ছড়িয়ে পড়ে। জুন থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তিন মাস স্থায়ী হয় এই আগুন। এতে মারা যায় অন্তত ৯১ জন। আর ৬ লাখ ৭০ হাজার একরের মতো বনাঞ্চল পুড়ে যায়।

* দ্য গ্রেট হিনকলে ফায়ার : আমেরিকার মিনেসোটার হিনকলে এলাকায় ১৮৯৪ সালের সেপ্টেম্বর এক আগ্রাসী দাবানলে পুড়ে যায় অন্তত ২ লাখ একর বনভূমি। মারা যায় অন্তত ৪১৮ জন।

* ক্লোকেট ফায়ার : আমেরিকার মিনেসোটায় ১৯১৮ সালে ঘটে যায় আরেকটি ভয়াবহ দাবানল। মোট ৪৫৩ জন এতে মারা যায়। আহত হয় প্রায় ৫২ হাজার মানুষ। সে সময়ের হিসেবে ৭৩ মিলিয়ন ডলার (বর্তমান হিসেবে ১০০ কোটির বেশি) ক্ষয় ক্ষতি হয়।

* ব্ল্যাক সেটার ডে বুশ ফায়ার : অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়াতে ২০০৯ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি এক দাবানলে মারা যায় ১৭৩ জন, আহত হয় ৪০০ জনের বেশি। দুই হাজারের বেশি বাড়ি ঘর, ১১ লাখ একর এলাকার গাছপালা পুড়ে যায়। এটি অস্ট্রেলিয়ায় আধুনিক ইতিহাসের সবচেয়ে বড় প্রাকৃতিক বিপর্যয়।

* মাউন্ট কারমেল ফরেস্ট ফায়ার : ইসরায়েলের উত্তরে মাউন্ট কারমেলের বনাঞ্চলে ২ ডিসেম্বর ২০১০ সালে দাবানল ছড়িয়ে পড়ে। ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত আগুনে পুড়ে যায় ৫০ বর্গ কিলোমিটার এলাকা। মারা যায় ৪৪ জন।

তথ্যসূত্র : লিস্ট টুয়েন্টি ফাইভ, উইকিপিডিয়া

 

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/২২ মে ২০১৮/ফিরোজ

Walton Laptop
 
   
Walton AC