ঢাকা     বুধবার   ২৪ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ১১ ১৪৩১

সুনামগঞ্জের ২৯ প্রার্থীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৩৫, ১৮ ডিসেম্বর ২০২৩  
সুনামগঞ্জের ২৯ প্রার্থীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র বৈধ হওয়ায় সুনামগঞ্জের ৫টি আসনের ২৯ জন প্রার্থীর প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে।

আজ সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় সুনামগঞ্জ রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে এই কার্যক্রম শুরু হয়। সুনামগঞ্জের ৫টি আসনের প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দিচ্ছেন নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্বে থাকা সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাশেদ ইকবাল চৌধুরী।

সুনামগঞ্জের পাঁচটি সংসদীয় আসনের মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় আওয়ামী লীগ, জা‌তীয় পা‌র্টি, বি‌ভিন্ন দল ও স্বতন্ত্রসহ মোট ৪১ জন প্রার্থী ছিলেন। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে বাদ পড়েন ৮ জন। মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাইয়ের পর নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার যোগ্যতা অর্জন করেন ৩৩ জন প্রার্থী। আর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন রোববার (১৭ ডিসেম্বর) চার জন প্রত্যাহার করায় সুনামগঞ্জের পাঁচটি আসনে নির্বাচন করতে মোট প্রার্থী আছেন ২৯ জন।

সুনামগঞ্জ-১ (জামালগঞ্জ, তাহিরপুর, ধর্মপাশা, মধ্যনগর) আসনে বাংলাদেশ কংগ্রেসের ডাব প্রতীক পেয়েছেন নবাব সালেহ আহমদ, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোয়াজ্জেম হোসেন রতন পেয়েছেন কেটলি, জাতীয় পার্টির লাঙ্গল পেয়েছেন মো. আব্দুল মন্নান তালুকদার, তৃণমূল বিএনপির সোনালী আঁশ পেয়েছেন মো. আশরাফ আলী, গণফ্রন্টের মাছ পেয়েছেন মো. জাহানুর রশিদ, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. সেলিম আহমদ প্রতীক পেয়েছেন ঈগল, বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির একতারা প্রতীক পেয়েছেন মো. হারিছ মিয়া, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকা পেয়েছেন রণজিত চন্দ্র সরকার। 

সুনামগঞ্জ-২ (দিরাই শাল্লা) আসনে আওয়ামী লীগের নৌকা পেয়েছেন চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মাহমুদ, স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়া সেনগুপ্তা প্রতীক পেয়েছেন কাঁচি, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মিজানুর রহমান পেয়েছেন ঈগল প্রতীক।

সুনামগঞ্জ-৩ (শান্তিগঞ্জ জগন্নাথপুর) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক পেয়েছেন এম এ মান্নান, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির কাঁঠাল পেয়েছেন তালুকদার মো. মকবুল হোসেন, জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীক পেয়েছেন তৌফিক আলী, তৃণমূল বিএনপির প্রতীক সোনালী আঁশ পেয়েছেন মোহাম্মদ শাহীনুর পাশা চৌধুরী। 

সুনামগঞ্জ-৪ (সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা-বিশ্বম্ভরপুর) আসনে জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীক পেয়েছেন পীর ফজলুর রহমান, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) আম প্রতীক পেয়েছেন মোহাম্মদ দিলোয়ার, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক পেয়েছেন মোহাম্মদ সাদিক, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. এনামুল কবীর ইমন প্রতীক পেয়েছেন ঈগল, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মোবারক হোসেন প্রতীক পেয়েছেন কাঁচি।

সুনামগঞ্জ-৫ (ছাতক-দোয়ারাবাজার) আসনে গণফোরামের উদীয়মান সূর্য প্রতীক পেয়েছেন আইয়ুব করম আলী, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) আম প্রতীক পেয়েছেন আজিজুল হক, বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির (বিএসপি) একতারা পেয়েছেন আবু সালেহ, জাতীয় পার্টি-জেপির বাইসাইকেল প্রতীক পেয়েছেন মনির উদ্দিন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক পেয়েছেন মুহিবুর রহমান মানিক, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট-বিএনএফের টেলিভিশন প্রতীক পেয়েছেন মো. আশরাফ হোসেন, জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীক পেয়েছেন মো. নাজমুল হুদা, স্বতন্ত্র প্রার্থী শামীম আহমদ চৌধুরী প্রতীক পেয়েছেন ঈগল, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের গামছা প্রতীক পেয়েছেন হাজী আব্দুল জলিল।

এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাশেদ ইকবাল চৌধুরী বলেন, ‘আমরা সুষ্ঠুভাবে সুন্দরভাবে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দিয়েছি। আপিলের পর মোট প্রার্থী ছিলেন ২৯ জন। এরমধ্যে দলীয় প্রার্থী আছেন ২২ জন আর স্বতন্ত্র প্রার্থী ৭ জন। আমরা দলীয় প্রার্থীকে দলীয় প্রতীক বরাদ্দ দিয়েছি আর স্বতন্ত্র প্রার্থীকে তাদের পছন্দের প্রতীক দেওয়া হয়েছে এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মধ্যে একই প্রতীক একাধিক স্বতন্ত্র প্রার্থী চেয়েছিলেন, সেই ক্ষেত্রে লটারির মাধ্যমে প্রতীক দেওয়া হয়েছে।
 

মনোয়ার/বকুল 

সম্পর্কিত বিষয়:

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়