ঢাকা     বুধবার   ২৪ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ১১ ১৪৩১

বগুড়ায় পৌর আ.লীগের ২ নেতাকে অব্যাহতি

বগুড়া প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৩৪, ২৭ ডিসেম্বর ২০২৩  
বগুড়ায় পৌর আ.লীগের ২ নেতাকে অব্যাহতি

ন্দীগ্রাম পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তার হোসেন বকুল

দীর্ঘদিন ধরে সংগঠনের কার্যক্রমে অনুপস্থিত, নিস্ক্রিয় থাকা এবং সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপের অভিযোগে বগুড়া নন্দীগ্রাম পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তার হোসেন বকুল ও সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমানকে দলের পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। অব্যাহতি প্রাপ্তরা বলছেন, মহাজোট প্রার্থী (নৌকা প্রতীক) জাসদ নেতা একেএম রেজাউল করিমের পক্ষে নির্বাচনি প্রচারণায় অংশ নেওয়ায় তাদের অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (২৭ ডিসেম্বর) দুপুরে দলীয় প্যাডে নন্দীগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ফিরোজ কামাল ফারুক স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি বকুল হোসেন ও সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান দীর্ঘদিন ধরে সংগঠনের কার্যক্রমে অনুপস্থিত, নিস্ক্রিয় থাকায় দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ এবং সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপের কারণে পৌর আওয়ামী লীগের এক জরুরি সভায় দলের সব পর্যায়ে নেতাকর্মীরা রেজুলেশনের মাধ্যমে তাদেরকে পদ থেকে অব্যাহতি প্রদানের জোর সুপারিশ করায় তাদেরকে দলের পদ থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হলো। 

তাদের বিরুদ্ধে কেন পরবর্তী সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না তার উপযুক্ত কারণসহ লিখিত জবাব উল্লেখিত ব্যক্তিদের ৭ (সাত) দিনের মধ্যে নন্দীগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সেলে জমা দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হলো।

এদিকে স্থানীয় আ.লীগ সূত্র জানায়, বগুড়া-৪ আসনে নৌকা প্রতীক পেয়েছেন জেলা জাসদ সভাপতি রেজাউল করিম তানসেন। তার পক্ষে আওয়ামী লীগের একটি বড় অংশ প্রচারণায় নামেনি। অনেকে নৌকার বিপক্ষে কাজ করছেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপির সাবেক এমপি ডা. জিয়াউল হক মোল্লার পক্ষে ঈগল মার্কার প্রকাশ্য প্রচারণা করায় গত সোমবার উপজেলার সিমলা বাজারে স্থানীয় আওয়ামী লীগের তিনজন নেতাকে লাঞ্ছিত করে নৌকার কর্মী-সমর্থকরা।

নন্দীগ্রাম পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি বকুল হোসেন বলেন, ‌‘আ‌মি এখনো চিঠি পাইনি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি দেখেছি। 

কি কারণে অব্যাহতি দেওয়া হলো জানতে চাইলে তিনি বলেন,  নৌকার পক্ষে ভোট করছি। পৌর আওয়ামী লীগের সব নেতাকর্মীরা রেজুলেশন অনুযায়ী সিদ্ধান্ত মোতাবেক আমরা নৌকার পক্ষে কাজ করছি। আর সে কারণে যদি আমার অপরাধ হয় তবে সে অপরাধে আমি অবশ্যই দোষী। 

নৌকার পক্ষে কাজ করার কারণেই আপনাকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে এমনটা কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, গতকাল এমপিকে নিয়ে প্রচারণা চালিয়েছি, নির্বাচনী সভা করেছি এরপর আজকেই যখন এরকম চিঠি তখন এটাই প্রমাণ হয় গতকালকের গণসংযোগ এবং নির্বাচনি প্রচারণার কারণে আজকে চিঠি দিয়েছে। উপজেলা আওয়ামী লীগের কেউ মহাজোট প্রার্থীর (নৌকা) পক্ষে কাজ করছে না। আমি বিএনপির সাবেক এমপির ‘ঈগল’ মার্কার বিপক্ষে থাকায় আমার সঙ্গে অন্যায় করা হচ্ছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নন্দীগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ফিরোজ কামাল ফারুক বলেন, দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের কারণেই তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। তার অভিযোগ ভিত্তিহীন। আমরা নিজেরাও মহাজোট প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছি।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মেয়র আনিছুর রহমান বলেন, নৌকার সঙ্গে বিরোধীতা করা হয়নি। দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করায় দুই নেতাকে পদ থেকে অব্যহতি দেওয়া হয়েছে।

এনাম/মাসুদ

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়