ঢাকা     শুক্রবার   ১৯ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৬ ১৪৩১

লালমনিরহাট-৩

নৌকা সমর্থকদের হামলায় লাঙ্গলের ১৪ নেতাকর্মী আহতের অভিযোগ

লালমনিরহাট সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৪৮, ২৭ ডিসেম্বর ২০২৩  
নৌকা সমর্থকদের হামলায় লাঙ্গলের ১৪ নেতাকর্মী আহতের অভিযোগ

লালমনিরহাট-৩ (সদর) আসনে ‘নৌকা’ প্রতীকের প্রার্থীর সমর্থকদের হামলায় জাতীয় পার্টির ‘লাঙ্গল’ প্রতীকের ১৪ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার (২৭ ডিসেম্বর) দুপুরে লালমনিরহাট শহরের আলোরুপা মোড়ে জাতীয় পার্টির জেলা কার্যালয়ের সামনে ঘটনাটি ঘটে।

আহতরা হলেন- জেলা ছাত্র সমাজের সাধারণ সম্পাদক আনিছুর রহমান, পৌর ছাত্র সমাজের মেহেদি, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আতিক, ১ নম্বর ওয়ার্ডের সভাপতি রাকিব, জেলা ছাত্র সমাজের সদস্য রবিউল, রাশেদুল, পৌর ছাত্র সমাজের ১ নম্বর ওয়ার্ডের ফরিদুল, ৯ নম্বর ওয়ার্ডের আল-আমিন, সদস্য মুরাদ, অন্ত, সাগর, শামছুল ইসলাম শাহিন ও মাসুদ।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বুধবার সকালে জেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে মাদরাসা শিক্ষক যারা সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করবেন তাদের সঙ্গে লালমনিরহাট-৩ আসনের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মতিয়ার রহমান মতবিনিময় করছেন এমন খবর নির্বাচন অনুসন্ধান কমিটিকে অবগত করেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী জাহিদ হাসান। পরে তিনি স্বশরীরে বিষয়টি দেখতে জেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে যান। প্রথমে তাকে বসতে দিলেও পরে তার সঙ্গে অশ্লীল ভাষায় কথা বলা হয়। পরে জাহিদ হাসান নিজ দলের কার্যালয়ে ফিরে আসেন। দলীয় কার্যালয়ে বসে বিষয়টি মোবাইলে নেতাকর্মীদের অবগত করছিলেন জাহিদ হাসান। এ সময় ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা ওই কার্যালয়ে হামলা চালায়। এতে জাতীয় পার্টির ১৪ নেতাকর্মী আহত হন। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। আহতদের মধ্যে কয়েকজনকে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

লালমনিরহাট পৌর আ.লীগের সভাপতি মোফাজ্জল হোসেন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘তারা দোকানদার-দোকানদারে মারামারি করেছে। এটির সঙ্গে আ.লীগের কোনো সম্পৃক্ততা নেই।’ 

জাতীয় পার্টির প্রার্থী জাহিদ হাসান অভিযোগ করে বলেন, ‘নির্বাচনের সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্বে থাকা মাদরাসার শিক্ষকদের নিয়ে মিটিং করছিলেন নৌকার প্রার্থী ও সমর্থকরা। বিষয়টি নির্বাচন অনুসন্ধান কমিটিকে অবগত করে কোনো কাজ না হওয়ায় নিজেই গিয়েছি সেই মিটিংয়ের খবর নিতে। সেখানে আমাকে লাঞ্চিত করা হয়। পরে দলীয় কার্যালয়ে চলে আসলে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা অতর্কিত হামলা চালিয়ে জাতাীয় পার্টির ১৪ জনকে আহত করেছে।’

লালমনিরহাট সদর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুক বলেন, ‘খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করা হয়েছে।’ 

জামাল/মাসুদ

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়