Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শুক্রবার   ২৩ এপ্রিল ২০২১ ||  বৈশাখ ১০ ১৪২৮ ||  ০৯ রমজান ১৪৪২

রচনা আক্তারের খাদি পণ্যে সাফল্য 

ইসমাইল হোসেন || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:৩৯, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১৫:১৫, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১
রচনা আক্তারের খাদি পণ্যে সাফল্য 

একজন উদ্যোক্তা হিসেবে যেমন আমি আমার পণ্য নিয়ে সবার সামনে ভিন্নতার সঙ্গে উপস্থিত হচ্ছি, ঠিক তেমন করে আমি মনে করি অন্য উদ্যোক্তাদের পণ্য সবার কাছে পরিচয় করিয়ে দেওয়াও আমার দায়িত্ব। কারণ, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে বাংলাদেশের অংশগ্রহণ এটা রীতিমত একটি অর্থনৈতিক আন্দোলন। 

আজ আমি যাকে নিয়ে লিখছি তার নাম রচনা আক্তার। তার ফেসবুক ব্যবসা ভিত্তিক পেজের নাম ‘খাদি পয়েন্ট’। রচনা আক্তার কাজ করছেন কুমিল্লার খাদি ও মোমবাটিক নিয়ে।

রচনা আক্তারের জন্ম কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্টে ও পড়ালেখা করেছেন আছিয়া গনি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও ইস্পাহানী পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজে। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে মাস্টার্স করেছেন। 

তার সিগনেচার পণ্য খাদি। এখন পযর্ন্ত রচনা আক্তার খাদিতে নতুন নতুন ফিউশন এনেছেন এবং আরো আনার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা হচ্ছে হ্যান্ডলুম খাদি কাপড়ের চাহিদা বৃদ্ধি করা। তাই প্রতিটি ফিউশনে চেষ্টা করে যাচ্ছেন পাওয়ারলুম খাদির সঙ্গে হ্যান্ডলুম খাদির সংমিশ্রণ ঘটিয়ে এর ব্যবহার করার জন্য সবার মধ্যে ইতিবাচক পরিবর্তন তৈরি করা। 

উইতে এসেই রচনা আক্তার উদ্যোক্তা কী, তা সম্পর্কে জেনেছেন ও শিখেছেন, নিজের হতাশাকে ছাড়িয়ে কিছু করার চিন্তা করেছেন। তাই উই রচনার কাছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও নিজেকে তুলে ধরার উপযুক্ত প্ল্যাটফর্ম।

রচনা আক্তারের সঙ্গে আমার পরিচয় অনেক দিন আগে থেকেই, ব্যবসা নিয়ে অনেক কথা হয় তার সঙ্গে। অবাক হয়েছি তার মধ্যে এত গুণ আর দক্ষতার সমাহার দেখে। কত নিখুঁত কাজ উঠে এসেছে তার দক্ষ ও নিপুণ কাজের মধ্যে দিয়ে। 

রচনা আক্তার বলেন, খাদি আমাদের দেশের সম্পদ এবং আমার জেলা কুমিল্লার ঐতিহ্য। তাই আমি চাই খাদিকে বিশ্বের কাছে পরিচয় করাতে, তাঁতীদের কাজ করার আগ্রহ বাড়াতে। এতে যেমন তাঁতীরা স্বাবলম্বী হবে, সঙ্গে আমিও নিজের একটা পরিচয় তৈরি করতে পারবো।

আমি যদি আমাদের অর্থনীতিতে স্বল্প হলেও অবদান রাখতে পারি, এতে নিজেকে ধন্য মনে করবো। আমি চাই দেশি পণ্যের চাহিদা বাড়াতে, এতে আমাদের যোগান বাড়বে এবং দেশীয় পণ্যের উৎপাদন বাড়বে, আমাদের গ্রামীণ অর্থনীতি স্বাবলম্বী হবে।

আজ পর্যন্ত আমি উইতে সব মিলিয়ে ১,৯৫,৫৭৫ টাকার অর্ডার পেয়েছি। উই আমাকে শিখিয়েছে কীভাবে উঠে দাঁড়াতে হবে এবং ঘর-সংসার সামলিয়েও কীভাবে নিজের একটা পরিচয় তুলে ধরা যায়। তাই আমি উইর সঙ্গে থাকতে চাই সবসময়ই। কারণ, আমরা মেয়েরা নিজেকে তুলে ধরতে পেরেছি উইতে এসেই। 

লেখক: উদ্যোক্তা, জামদানি কাব্য। 

ঢাকা/মাহি 

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়