ঢাকা     সোমবার   ২৮ নভেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ১৪ ১৪২৯ ||  ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

মৃত্যু নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণীর ক্ষমতা ছিল যে বিড়ালের!

অন্য দুনিয়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৪:২৪, ২ সেপ্টেম্বর ২০২২   আপডেট: ১৪:৩২, ২ সেপ্টেম্বর ২০২২
মৃত্যু নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণীর ক্ষমতা ছিল যে বিড়ালের!

অক্টোপাস পল। ২০১০ ফুটবল বিশ্বাকাপে একের পর এক অব্যর্থ ভবিষ্যদ্বাণী করে সাড়া ফেলেছিল। এরপর রাশিয়ায় অনুষ্ঠিত ২০১৮ সালের বিশ্বকাপে একইভাবে চমকে দিয়েছিল উট শাহীন। আবার অনেক মানুষকে রাস্তার পাশে টিয়া পাখি দিয়ে ভাগ্য পরীক্ষাও করাতে দেখাতে যায়।

তাই প্রাণীদের যে ভবিষ্যদ্বাণী করার ক্ষমতা রয়েছে তা অনেকেই হয়তো বিশ্বাস করেন। সেই বিশ্বাসে আরো একটু জোর দেয় ‘অস্কার-দ্য হসপিস ক্যাট’। এই বিড়াল মানুষের মৃত্যুর আগেই বুঝতে পারত। মৃত্যু নিয়ে তার শতাধিক ভবিষ্যদ্বাণী সবাইকে চমকে দিয়েছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রোড আইল্যান্ডের ‘স্টিয়ার হাউস নার্সিং অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন সেন্টার’-এ থাকত এই বিড়াল। অসুস্থ রোগীদের সুস্থ করতে অনেক সময় বিড়ালের সহায়তা নিতেন চিকিৎসকরা। অস্কারও তেমনি ছিলেন। এদের বলা হয় ‘থেরাপি ক্যাট’।

অস্কার এই রিহ্যাবিলিটেশন সেন্টার’-এ আসে ২০০৫ সালে। সেই সময় মোট ছয়টি ‘থেরাপি ক্যাট’ আনা হয়েছিল। কিন্তু দুই বছর না যেতেই বোঝা গেলো আট দশটা সাধারণ বিড়ালের মতো অস্কার নয়। ২০০৭ সালে ‘নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অফ মেডিসিন’-এ ‘জেরিয়াট্রিশিয়ান’ (যারা বয়স্কদের চিকিৎসা করেন) ডেভিড ডোসার একটি নিবন্ধে লেখেন। এতে অস্কারের একটি অদ্ভুত বিষয় প্রকাশ্যে আসে।

ডেভিড ডোসার দাবি করেন, রোগীদের মৃত্যুর বিষয়টি আগে থেকেই টের পান অস্কার। অসুস্থ রোগীর মৃত্যুর কয়েক ঘণ্টা আগে তার বিছানায় গিয়ে ঘুমাত এই বিড়াল। প্রথম প্রথম এটিকে কাকতালীয় ঘটনা বলে মনে করা হতো। কিন্তু পরবর্তী সময়ে কর্মীরা অস্কারকে কোনো রোগীর বিছানায় দেখলেই বুঝে যেতেন রোগীর মৃত্যুর সময় হয়েছে।

সাধারণত অন্য সময়গুলোতে একাই থাকত অস্কার। কেউ তাকে কোলে নিতে চাইলে বিরক্তিরভাব স্পষ্টভাবেই বোঝা যেতো। কিন্তু কোনো রোগীর মৃত্যুর আগে নিজে থেকেই তার বিছানায় চলে যেতো অস্কার। ধারণা করা হয়, রোগীদের নড়াচড়ার ক্ষমতা এবং তাদের শরীরের মৃত কোষ থেকে নিঃসৃত জৈব রাসায়নিক পদার্থের গন্ধ পেত এই বিড়াল। হাসপাতালের কর্মীদের দাবি, ২০১৫ সাল পর্যন্ত প্রায় ১০০ জনের মৃত্যুর ভবিষ্যদ্বাণী করেছে অস্কার।

যদিও অনেকেই অস্কারের এই বিষয়টি নিছক কাকতালীয় বলেই মনে করেন। কেউ কেউ দাবি করেছেন, গল্পগুলো বানোয়াট। হাসপাতাল কর্মীরা বিষয়টি বাড়িয়েই প্রচার করেছেন। 

চলতি বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি অস্কারের মৃত্যু হয়। তার বয়স হয়েছিল ১৭।

/মারুফ/

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়