ঢাকা, বুধবার, ১ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ অক্টোবর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

চঞ্চল সুদর্শন পাখি চকাচকি

শামীম আলী চৌধুরী : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৯-২১ ১:০৯:৩০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৯-২২ ১১:০২:৩৯ এএম

রাজধানী ঢাকার পূর্বাচলে আমরা কয়েক বন্ধু একটি হোটেলে দুপুরের খাবার শেষে গল্প করছি। এমন সময় কয়েকজন হোটেলে ঢুকলেন। আমাদের সঙ্গে ক্যামেরা এবং আনুষঙ্গিক জিনিসপত্র দেখে তারা জিজ্ঞেস করলেন- আমরা পাখি শিকার করি কি না?

বললাম না। আমরা পাখির ছবি তুলি।

তখন একজন বললেন, পাখির মাংস খুব সুস্বাদু। তারা শিকার করেন। তাদের কাছে পাখি শিকার কেন করেন- কারণ জানতে চাইলাম। তারা এর সন্তোষজনক কোনো উত্তর দিতে পারলেন না। শীতকালে আমাদের দেশে আসা পরিযায়ী পাখি আসার কারণ তাদের জানালাম। জানতে চাইলাম- কোন পাখির মাংস সুস্বাদু? উত্তর দিলেন, চকাচকি বা হাঁস জাতীয় পাখির মাংস সবচেয়ে স্বাদের। তাদের সঙ্গে কথা ওই পর্যন্তই শেষ। 

এরপর থেকে পাখিটি দেখার ইচ্ছে জাগে। পাখিটির খোঁজে একদিন চলে যাই রাজশাহী। পদ্মা নদীতে সারাদিন নৌকায় ঘুরে বেশ কিছু হাঁস জাতীয় পাখির ছবি তুললাম। ফেরার পথে নদীর পাড়ে অনেকগুলো ‘চকাচকি’ দেখলাম। নৌকায় বসেই তাদের ছবি তুললাম। এরা এতই চঞ্চল যে, দূর থেকে দেখামাত্র উড়ে যায়। সামনে যাবার সুযোগ নেই। পাখিটি প্রথম দেখায় আমার নজর কেড়ে নেয়। তারপর যতবার দেখেছি ততবারই ছবি তুলেছি। ওড়ার সময় ডানার দুই পাশের সবুজ-নীল রং মন কেড়ে নেয়।

Ruddy Shelduck ‘চকাচকি’ Anatidae গোত্রের ৬৪ সে.মি. দৈর্ঘ্যের বড় আকারের হাঁস পাখি। এর ওজন ১৫০০-১৭০০ গ্রাম। পুরুষ ও মেয়ে পাখির চেহারায় কিছুটা পার্থক্য আছে। পুরুষ পাখি কমলা-বাদামি ও খয়েরি রঙের। মাথা ও ঘাড় হালকা বাদামি। ডানায় সবুজ রং ও সাদা ঢাকনি। পালকের শেষ অংশ ও লেজ কালো। প্রজননকালে পুরুষ পাখির গলায় সরু কালো বলয় দেখা যায়। মেয়ে পাখি আকারে পুরুষ পাখির চেয়ে সামান্য ছোট। মেয়ে পাখির গলায় বলয় হয় না। উভয়ের চোখ বাদামি। ঠোঁট, পা ও পায়ের পাতা কালো।

চকাচকি পলিময় উপকূল ও নদীর চরে বিচরণ করে। এরা ঝাঁকে দলবদ্ধ হয়ে থাকে। এরা নরম কাঁদামাটিতে ও আদ্র তৃণভূমিতে আহার খোঁজে। খাদ্য তালিকায় আছে শস্যদানা, অঙ্কুরিত জলজ উদ্ভিদ, শেওলা, চিংড়ি ও কাঁকড়া জাতীয় প্রাণী। মাঝে মাঝে পোকামাকড়ও খায়। ভয় পেলে এরা উচ্চ স্বরে ডাকে। ওড়ার সময় পক্‌ পক্‌ শব্দ করে ডাকে। মে ও জুন মাসে এশিয়ার বিভিন্ন দেশে ও তিব্বতে এরা প্রজনন করে। উঁচু ভূমিতে যেখানে জলাশয় আছে তার পাশে মাটির গর্তে পালক দিয়ে বাসা বানায়। নিজেদের বানানো বাসায় মেয়ে চকাচকি ৬-৮টি ডিম পাড়ে। নিজেরাই ডিমে তা দেয়। ৩০ দিনের মধ্যে ডিম ফুটে বাচ্চা বের হয়।

চকাচকি বাংলাদেশের সুলভ পরিযায়ী পাখি। আমাদের দেশে এরা নভেম্বরের শেষ দিকে আসে এবং মার্চ পর্যন্ত অবস্থান করে। শীত মৌসুমে চট্টগ্রাম, বরিশাল, রাজশাহী ও সিলেট বিভাগের হাওর ও নদ-নদীতে দেখা যায়। উপকূলেও ঝাঁক দেখা যায়। এ ছাড়াও এশিয়া ও আফ্রিকার দক্ষিণাংশে এদের বিচরণ আছে। তুরস্ক, চীন, জাপান, কোরিয়া ও মালদ্বীপ ছাড়া ভারত মহাদেশের অন্যান্য দেশেও এদের বিচরণ রয়েছে।

বাংলা নাম: চকাচকি

ইংরেজি নাম: Ruddy Shelduck.

বৈজ্ঞানিক নাম: Tadorna ferruginea

লেখক ছবিগুলো রাজশাহী থেকে তুলেছেন



ঢাকা/হাসনাত/তারা

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন