ঢাকা     বুধবার   ২৯ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪৩১

মৃগীরোগ, প্রেম-বিচ্ছেদ, কোথায় হারালেন ‘কাটা লাগা’ গার্ল

বিনোদন ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১০:২২, ৩ মে ২০২৪   আপডেট: ১০:২৫, ৩ মে ২০২৪
মৃগীরোগ, প্রেম-বিচ্ছেদ, কোথায় হারালেন ‘কাটা লাগা’ গার্ল

‘কাটা লাগা’ গানের ভিডিওটির কথা যাদের মনে আছে, শেফালিকে তারা নিশ্চয়ই ভোলেননি। ১৯৭২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘সমাধি’ সিনেমার জন‌্য এ গানে কণ্ঠ দেন লতা মঙ্গেশকর। ২০০২ সালে এ গানের রিমেক হয়। মাত্র ১৯ বছর বয়সে সেই গানের মডেল হিসেবে প্রথম সবার নজর কাড়েন ভারতীয় মডেল-অভিনেত্রী শেফালি জরিওয়ালা।

২০০৪ সালে ডেভিড ধাওয়ান পরিচালিত ‘মুঝসে শাদি করোগি’ সিনেমা প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায়। সালমান খান, অক্ষয় কুমার এবং প্রিয়াঙ্কা চোপড়া অভিনীত এই সিনেমায় ক্যামিও চরিত্রেও অভিনয় করেন শেফালি। সালমান, অক্ষয় এবং প্রিয়াঙ্কার মতো তারকার সঙ্গে তার ক্যারিয়ারের প্রথম সিনেমা। কিন্তু তারপর আর বড় পর্দায় দেখা যায়নি শেফালিকে। কারণ অসুস্থতা তাকে চেপে ধরে। এক সাক্ষাৎকারে শেফালি জানিয়েছিলেন, ১৫ বছর বয়সে মৃগী রোগে আক্রান্ত হন শেফালি।

সংকটময় সেই সময়ের স্মৃতিচারণ করে শেফালি বলেছিলেন, ‘প্রায় এক দশক এই রোগ বয়ে নিয়ে চলা একটা চ্যালেঞ্জ ছিল। ঘন ঘন মেজাজ বদল, উদ্বেগজনিত সমস্যা আমার স্কুলজীবন এবং সামাজিক মেলামেশার উপর প্রভাব ফেলেছিল। সমস্ত আশা ফুরিয়ে গিয়েছিল। আত্মবিশ্বাসও খুব কমে গিয়েছিল।’

 

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে নতুন ধরনের শারীরিক সমস্যার সম্মুখীন হন শেফালি। এ অভিনেত্রীর ভাষায়— “যখন-তখন যেকোনো জায়গায় মৃগী রোগ আমার মাথায় চেপে বসত। বিশেষ করে ‘কাটা লাগা’ গানের পর যখন আমি মঞ্চে পারফর্ম করতাম, বিভিন্ন জায়গায় প্রচুর ঘুরতে হতো, তখন এই রোগ আমাকে চেপে ধরত।” ধীরে ধীরে মৃগী রোগ থেকে মুক্তি পান শেফালি। এ বিষয়ে তিনি বলেছিলেন, ‘চিকিৎসকদের সহায়তা এবং ইতিবাচক মনোভাব আমাকে সেরে উঠতে সাহায্য করে। মানসিকভাবে আমি শক্তিশালী হয়েছি, শারীরিকভাবেও ফিট হয়েছি।’

 

১৯৮২ সালের ১৫ ডিসেম্বর গুজরাটের আমদাবাদে জন্মগ্রহণ করেন শেফালি। বাবা-মা এব‌ং বোনের সঙ্গে থাকতেন তিনি। স্কুলের পড়াশোনা শেষ করার পর গুজরাটের একটি কলেজে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়াশোনা করেন। কলেজে পড়াকালীন ‘কাটা লাগা’ গানের ভিডিওতে অভিনয়ের প্রস্তাব পান শেফালি। নিজেকে টিভি পর্দায় দেখতে চেয়েছিলেন শেফালি। তাই মিউজিক ভিডিওতে কাজ করতে আগ্রহী হন। কিন্তু তার বাবা-মা রাজি ছিলেন না।

 

এক সাক্ষাৎকারে শেফালি বলেছিলেন, ‘আমার বাবা-মা চেয়েছিলেন আমি যেন পড়াশোনা শেষ করে অভিনয় শুরু করি। কিন্তু পারিশ্রমিক হিসেবে আমাকে সাত হাজার রুপি দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। আমি এই সুযোগ হাতছাড়া করতে চাইনি। প্রথমে মাকে রাজি করাই। তারপর মাকে নিয়ে বাবার কাছে যাই। আমি আর মা দু’জনে মিলে বাবাকে রাজি করাই।’ ‘কাটা লাগা’ গানের ভিডিও মুক্তির পর রাতারাতি জনপ্রিয় হয়ে উঠেন শেফালি। এ প্রসঙ্গে শেফালি বলেছিলেন, ‘ভিডিও মুক্তি পাওয়ার পর যেন এক নিমেষে সব বদলে গেল। আমার মনে হতো আমি যেন রূপকথায় বাঁচছি।’

 

২০০২ সালে ‘কাভি আর কাভি পার’ শিরোনামে একটি রিমেক গানের ভিডিওতে অভিনয় করেন শেফালি। ২০০৪ সালে আরও একটি মিউজিক ভিডিওতে দেখা যায় এই অভিনেত্রীকে। ২০০৪ সালে বড় পর্দায় অভিনয়ের প্রস্তাব পান শেফালি। ‘মুঝসে শাদি করোগি’ সিনেমায় ক্যামিও চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যায় তাকে। তারপর আর কোনো হিন্দি সিনেমায় অভিনয় করেননি শেফালি। ২০১১ সালে ‘হুদুগারু’ নামের কন্নড় ভাষার একটি সিনেমায় অভিনয় করেন তিনি।

 

এরই মাঝে সংগীত পরিচালক হরমিত সিংহের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়ান শেফালি। ২০০৪ সালে হরমিতের সঙ্গে সাতপাকে বাঁধা পড়েন এই অভিনেত্রী। কিন্তু এ সম্পর্ক বেশি দিন টেকেনি। ২০০৯ সালে হরমিতের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ হয় শেফালির। অভিনেত্রীর দাবি— তাকে শারীরিক-মানসিক অত্যাচার করতেন হরমিত। বিবাহবিচ্ছেদের পর হিন্দি ধারাবাহিকের অভিনেতা সিদ্ধার্থ শুক্লার সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন শেফালি। কিন্তু এ সম্পর্কেরও ইতি টানেন তিনি। এরপর টেলিভিশনের খ্যাতনামা তারকা পরাগ ত্যাগীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান শেফালি। ২০১২ সালে নাচের একটি রিয়েলিটি শোয়ে প্রতিযোগী হিসেবে জুটি বেঁধে অংশগ্রহণ করেন এই দুই তারকা। দীর্ঘদিন সম্পর্কে থাকার পর ২০১৪ সালে পরাগের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন শেফালি। বিয়ের এক বছরের মধ্যে আবার জুটি বেঁধে নাচের রিয়েলিটি শোয়ে প্রতিযোগী হিসেবে অংশগ্রহণ করতে দেখা যায় এই তারকা-দম্পতিকে।

 

২০১৬ সালে বোনের সঙ্গে ব্যবসা শুরু করেন শেফালি। দুবাইয়ে দুই বোন মিলে একটি কোচিং চালু করেন। ২০১৯ সালে রিয়েলিটি শো ‘বিগ বস’-এ অংশগ্রহণ করেন শেফালি। কিন্তু চূড়ান্ত পর্বে পৌঁছানোর আগেই শো থেকে বেরিয়ে যান এই অভিনেত্রী। ২০১৮ সালে ওটিটি প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পাওয়া ‘বেবি কাম না’ নামে ওয়েব সিরিজে অভিনয় করেন শেফালি। এই সিরিজে আরো অভিনয় করেন শ্রেয়স তালপাড়ে এবং চাঙ্কি পান্ডের মতো বলিউড অভিনেতারা।

 

২০১৯ সালে আবারও ওটিটি প্ল্যাটফর্মে দেখা যায় শেফালিকে। ‘বু সব কি ফাটেগি’ নামে একটি ওয়েব সিরিজে অভিনয় করেন তিনি। এতে আরো অভিনয় করেন তুষার কাপুর, মল্লিকা শেরাওয়াত, কৃষ্ণ অভিষেক প্রমুখ। এক বছরের ব্যবধানে দু’টি ওয়েব সিরিজে শেফালিকে অভিনয় করতে দেখা গেলেও প্রচারে আসেননি এই অভিনেত্রী। ২০১৯ সালের পর আর অভিনয়ে দেখা যায়নি শেফালিকে। তবে খুব শিগগির ফের অভিনয়ে ফেরার কথা রয়েছে তার।

ঢাকা/শান্ত

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়