ঢাকা, রবিবার, ২১ আষাঢ় ১৪২৭, ০৫ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:
লন্ডন বাদে আন্তর্জাতিক সব রুটে বিমানের ফ্লাইট স্থগিত        কুড়িগ্রামে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি        আইসিটি বিভাগের ৮৮.২৯ শতাংশ এডিপি বাস্তবায়ন        ছাঁটাই ও বেতন কমানো বন্ধ না হলে বৃহত্তর আন্দোলন: ডিইউজে        পাটকল শ্রমিকদের মজুরি পরিশোধে ৫৮ কোটি টাকা বরাদ্দ        ওয়ারী লকডাউন: দ্বিতীয় দিনে ঢিলেঢালা, সোমবার থেকে কড়া নজরদারি        হারিয়ে যাওয়া শিশুকে বাবা-মায়ের কাছে ফিরিয়ে দিলো পুলিশ        ‘প্রশিক্ষণ নিয়ে ইলেক্ট্রিশিয়ানরা রেমিটেন্সে ভূমিকা রাখতে পারে’        সাউথ ক্যারোলিনার নাইট ক্লাবে গোলাগুলিতে নিহত ২, আহত ৮        ফেসবুকসহ ওটিটি প্ল্যাটফর্মকে নিয়মের মধ্যে আনার তাগিদ       

১৫ বছর নিঃস্বার্থ সমর্থনের জন্য ধন্যবাদ : মুশফিক

ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৫-২৭ ১২:২৩:১৫ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৫-২৮ ৭:২৪:১৯ এএম

বাংলাদেশের ৪১তম টেস্ট ক্যাপ নিয়ে মুশফিকুর রহিমের পথ চলা শুরু। সময়টা ছিল ২০০৫ সালের ২৬ মে। যখন যাত্রা শুরু করেছিলেন তখন আবীরমাখা মুখে কৈশরের ছাপ। বয়স তখন সতের ছুঁই ছুঁই।

মুশফিক এখন ৩২ পেরিয়ে। ক্রিকেটের অলিগলি পেরিয়ে তিনি এখন হাইওয়েতে। বেড়েছে বয়স, বেড়েছে অভিজ্ঞতা। ২২ গজে বাংলাদেশের জার্সি গায়ে জড়িয়ে কাটিয়ে দিয়েছেন ১৫ বছর। ধুমকেতু হয়ে এসেছিলেন। সময়ের পরিক্রমায় হয়েছেন ধ্রুবতারা। সেই উজ্জ্বল আলোয় এখন উদ্ভাসিত বাংলাদেশ ক্রিকেট।

২২ গজে তাঁর পদচারণা মানেই রানের ফোয়ারা। দুঃসময়ে তাঁর ব্যাট যেন তরবারি। প্রতিপক্ষকে দুমড়ে মুচড়ে দেওয়ার অসম্ভব ক্ষমতা ছোট্ট পকেট ডায়নামোর। নিজের যোগ্যতা ও প্রতিভার প্রমাণস্বরূপ খ্যাতি যেমন পেয়েছেন, ঠিক তেমনি একজন নির্ভরযোগ্য মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান হিসেবেও দলে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

পাশাপাশি তৈরি করেছেন নিজের ভক্ত। হয়েছেন তারুণের আইকন। যেখানেই গিয়েছেন সেখানেই নিঃস্বার্থ সমর্থন পেয়েছেন। ভক্তদের দোয়া ও সমর্থনই তাকে আজকের মুশফিকুর রহিমের বানিয়েছে বলে বিশ্বাস করেন। সেজন্য আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের দীর্ঘ যাত্রায় যাদের পাশে পেয়েছেন তাদের ধন্যবাদ জানালেন।

মঙ্গলবার রাতে ফেসবুক লাইভে মুশফিক বলেন, ‘১৫ বছর আগে আজকের দিনেই বাংলাদেশের হয়ে লর্ডস মাঠে প্রথম খেলতে নেমেছিলাম। দেখতে দেখতে ১৫ বছর কেটে গেল। আলহামদুলিল্লাহ। আপনাদের দোয়া ও আল্লাহর অশেষ রহমতে আমি যতটুকুই হয়েছি, এজন্য আপনাদের প্রাণ থেকে, অন্তর থেকে ধন্যবাদ জানাই।’

মুশফিক আরও বলেন, ‘এ সফর সহজ ছিল না আপনারা সবাই জানেন। এটাই স্বাভাবিক। এ সফরে আমার সাথে যারা ছিলেন, যারা সাপোর্ট করেছেন, নিঃস্বার্থভাবে তাদেরকে আমি ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আমার পরিবারের সদস্য, শিক্ষক, সকল কোচদের, আমার টিমমেট, মিডিয়া, বিসিবিকে অনেক ধন্যবাদ...যারা আমার উপর আস্থা রেখেছেন।’

‘সমর্থকদের ধন্যবাদ যারা আমার জন্য দোয়া করেছেন, বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য দোয়া করেছেন। আপনাদের দোয়া ও ভালোবাসা আগে যেমন ছিল, এখন যেভাবে আছে, আশা করছি সামনেও অব্যাহত থাকবে।’

‘বাংলাদেশ ক্রিকেট আগে যেরকম ছিল, সামনে যেন আরও উন্নত হতে পারে এ জন্য অবশ্যই দোয়া করবেন। শেষ ১৫ বছর আপনাদের যতটুকু দিতে পেরেছি সামনে যেন আরও ভালো কিছু ইনিংস আপনাদের উপহার দিতে পারি এবং বাংলাদেশকে আরও বিশ্ব দরবারে সম্মানিত করতে পারি। আপনাদের দোয়া ও ভালোবাসা একান্ত কাম্য।’

মুশফিকের ক্যারিয়ারের পরিসংখ্যানটা বাংলাদেশের হিসেবে এক কথায় তাক লাগানো।  টেস্টে ৭০ ম্যাচে ১৩০ ইনিংসে ৪৪১৩ রান করেছেন। ওয়ানডেতে ২১৮ ম্যাচে রান ৬১৭৪। টি-টোয়েন্টিতে ৮৬ ম্যাচে করেছেন ১২৮২ রান।  তিন ফরম্যাট মিলিয়ে মোট ১১,৮৬৯ রান নিয়ে বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক মুশফিক। ১৪ সেঞ্চুরি ও ৬৪ হাফ সেঞ্চুরিতে মুশফিক ভাস্বর নিজের আঙিনায়।

 

ঢাকা/ইয়াসিন/আমিনুল