Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ২৫ অক্টোবর ২০২১ ||  কার্তিক ৯ ১৪২৮ ||  ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বিসিবির এফডিআর ৯০০ কোটি টাকার মতো: নাজমুল হাসান

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৩৪, ৪ সেপ্টেম্বর ২০২১   আপডেট: ২১:৩৫, ৪ সেপ্টেম্বর ২০২১
বিসিবির এফডিআর ৯০০ কোটি টাকার মতো: নাজমুল হাসান

করোনার ধাক্কায় ইংল্যান্ড, ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার মতো দেশগুলোর বোর্ডের মাথায় যখন চিন্তার ভাঁজ তখন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড স্বস্তিতে। স্বস্তিতে থাকার কারণ, বড় ধরনের আর্থিক ক্ষতি হয়নি দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থার। উল্টো বিসিবির আয় বেড়েছে অনেকগুণ।

শনিবার রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে ক্রিকেট বোর্ডের প্রয়াত পরিচালক আফজালুর রহমান সিনহার স্মরণে এক অনুষ্ঠানে নাজমুল হাসান জানান, বিসিবির এফডিআর ৯০০ কোটি টাকার মতো। তিনি বলেন,‘বিসিবির অনেক টাকা বেড়েছে। যা বিসিবির আয় থেকেই এসেছে। আমাদের সব স্পনসর স্থানীয়, দেশের বাইরের না। আমরা টাকা অনেক কম পাই। তবু এই দুই মেয়াদে আমাদের এফডিআর-এ প্রায় ৯০০ কোটি টাকার মতো আছে।’

সম্প্রচার স্বত্ব, টিম স্পনসরশিপ, আন্তর্জাতিক সিরিজ আর টুর্নামেন্ট থেকে মোটা অঙ্কের অর্থ আয় করে বিসিবি। জাতীয় ক্রিকেট দলের ভালো পারফরম্যান্সও আইসিসি এবং এসিসির টুর্নামেন্ট থেকে বিশাল অর্থ এনে দেয় তাদের। ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট বিপিএলও আয়ের একটি বড় উৎস।

বিসিবির খরচের বড় অংশ আসে এই এফডিআর থেকে। এছাড়া প্রতিটি সিরিজ, আইসিসি ইভেন্ট, এশিয়া কাপ ও অন্যান্য খাত থেকে যে আয় হয় তা বিসিবির কোষাগারে পৃথক জমা হয়। প্রতি বছর-বছর বাড়ছে বিসিবির মুনাফা।

গত ২৬ আগস্ট বিসিবির এজিএম শেষে নাজমুল হাসান বলেছিলেন,‘২০১২ থেকে ২০১৮, এই ছয় বছরে ৩৩ মিলিয়ন ডলারেরও বেশি আমরা বোর্ড পেয়েছি স্পন্সরশিপ এবং রাইটস থেকে। সেটা শেষ তিন বছরে ২৯ মিলিয়ন পেয়ে গেছি। কোভিড পরিস্থিতির পরও আমরা এটা করতে পেরেছি। এটা প্রমাণ করে যে, স্পন্সর এবং রাইটস হোল্ডারদের বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ওপর আস্থা আছে। যা আমাদের জন্য খুব প্রয়োজনীয়।’

একসময় জাতীয় দলের কোচ, ফিজিওর বেতন-ভাতাসহ অন্যান্য খরচ অনেক কষ্টে জোগাড় করতে হতো বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে। প্রায়ই জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের দ্বারস্থ হতো বিসিবি। এখন বিসিবি উল্টো সব ফেডারেশনকে সাহায্য করে আসছে। গত বছর ২৩টি ফেডারেশনকে ৫০ লাখ ১০ হাজার টাকা দিয়ে করোনাকালীন সময়ে সাহায্য করেছিল বিসিবি।

জানা গেছে, এবারের এজিএমে ৮৯৭ কোটি ৫৭ লাখ টাকা খরচের হিসাব অনুমোদন করেছে বিসিবি। আয়ের অংক বেড়ে যাওয়ায় বিসিবির ফিক্সড ডিপোজিটের জমাকৃত অর্থের অঙ্কও আকাশ ছোঁয়া।

 

ঢাকা/ইয়াসিন

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়