ঢাকা, রবিবার, ৭ কার্তিক ১৪২৪, ২২ অক্টোবর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

জলবায়ু অর্থায়নে সুশাসন চায় টিআইবি

মোহাম্মদ নঈমুদ্দীন : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৭-২১ ৩:৩৭:১৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৯-১৪ ৯:২৮:২৩ পিএম

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : জলবায়ু অভিযোজন অর্থায়নে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও শুদ্ধাচার নিশ্চিত করে সুশাসন প্রতিষ্ঠার দাবি জানিয়েছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)।

শুক্রবার সংস্থাটির (আউটরিচ অ্যান্ড কমিউনিকেশন বিভাগ) পরিচালক রিজওয়ান উল আলমের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ক্লাইমেট ফিন্যান্স পলিসি ইন্টেগ্রিটি প্রোগ্রামের আওতায় দুদিনব্যাপী দক্ষিণ এশীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করে টিআইবি। মালদ্বীপ, নেপাল, শ্রীলঙ্কা, ভুটান ও বাংলাদেশের মোট আটটি দলের ১৬ জন বিতার্কিক এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন।

বৃহস্পতিবার চ্যানেল আইয়ের স্টুডিওতে দুদিনব্যাপী দক্ষিণ এশীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতার শেষ দিনের চূড়ান্ত পর্বে অংশগ্রহণকারী বিতার্কিকগণ জলবায়ু অভিযোজন অর্থায়নে সুশাসন প্রতিষ্ঠার এ দাবি জানান।

ব্রিটিশ পার্লামেন্ট পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত এ প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বে স্পিকারের দায়িত্ব পালন করেন মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ও প্রাক্তন বিতার্কিক আব্দুন নূর তুষার। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন টিআইবির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য অধ্যাপক সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম। উপস্থিত ছিলেন টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান ও অধ্যাপক ড. সুমাইয়া খায়ের প্রমুখ।

অধ্যাপক সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম বলেন, ‘দূষণকারী দেশগুলোকে অবশ্যই জবাবদিহিতার আওতায় আনতে হবে এবং অভিযোজন কার্যক্রমে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।’

ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়টি শুধু উন্নয়নশীল, স্বল্পোন্নত বা উন্নত দেশের বিষয় নয়। বাস্তবতা হলো বিশ্বের কিছু দেশ জলবায়ু দূষণের জন্য দায়ী এবং কিছু দেশ এই দূষণের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত। দূষণের জন্য দায়ী দেশগুলো ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোকে পর্যাপ্ত ক্ষতিপূরণ প্রদান করবে, এটাই আমাদের দাবি।’

অধ্যাপক ড. সুমাইয়া খায়ের বলেন, ‘দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে কার্যকর জলবায়ু অভিযোজন অর্থায়নের জন্য স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও শুদ্ধাচারই প্রধান শর্ত।’

‘অভিযোজন অর্থায়নের কার্যকর আহরণ ও ব্যবহার নিশ্চিতে প্রয়োজন স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা এবং শুদ্ধাচার’ এই প্রতিপাদ্যে ১৯ ও ২০ জুলাই আয়োজিত এ প্রতিযোগিতায় ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি বাংলাদেশ দল চ্যাম্পিয়ন এবং শ্রীলঙ্কার বিতার্কিক দল রানার-আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করে।

প্রতিযোগিতায় শ্রেষ্ঠ বিতার্কিকের পুরস্কার লাভ করেন ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি বাংলাদেশ দলের বিতার্কিক মোহাম্মদ ইবনে এনায়েত।

উল্লেখ্য, গত ১৯ মে টিআইবি কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এ প্রতিযোগিতার  বাংলাদেশ রাউন্ডে ১২টি দল অংশগ্রহণ করে এবং বিজয়ী চারটি দল দক্ষিণ এশীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের সুযোগ পায়।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২১ জুলাই ২০১৭/নঈমুদ্দীন/সাইফুল

Walton
 
   
Marcel