ঢাকা, রবিবার, ১৪ চৈত্র ১৪২৬, ২৯ মার্চ ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

কৌশিকের ঘাতকদের নাগাল পাচ্ছে না সিআইডি

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০২-১৮ ৪:৩৭:৪৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০২-১৯ ১১:২৩:২৮ এএম

রাজশাহীর চাঞ্চল্যকর কৌশিক প্রামানিক মিঠু হত্যা মামলার আসামিদের নাগাল পাচ্ছে না পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগও (সিআইডি)। চাঞ্চল্যকর মামলা বলে পুলিশের কাছ থেকে তদন্তের দায়িত্ব নিয়েছে সিআইডি। তবে ১৮ দিনেও কোনো আসামিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি সংস্থাটি।

নিহত কৌশিক প্রামানিক মিঠু ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামানিক দেবুর বড় ভাই। গত ১৬ জানুয়ারি সকালে রাজশাহী নগরীর মতিহার থানার ধরমপুর আমজাদের মোড় এলাকায় সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহত হন তিনি।

এ ঘটনায় দেবাশিষ প্রামানিক দেবু বাদী হয়ে হত্যা মামলা করেন। এতে চারজনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত পরিচয় আরো চার-পাঁচজনকে আসামি করা হয়। এদের মধ্যে পুলিশ শুধু মো. রায়হান নামে এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে। প্রধান আসামিসহ অন্যরা এখনো পলাতক।

প্রধান আসামির নাম সজিবুল হক সজিব। নগরীর ধরমপুরের প্রয়াত আমিনের ছেলে তিনি। এজাহারভুক্ত অন্য তিন আসামির বাড়িও মতিহার থানা এলাকায়। তারা সবাই জামায়াত-শিবিরের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত। মতিহার থানা পুলিশ মামলার তদন্তকালে তাদের নাগাল পাচ্ছিল না।

গত ২৯ জানুয়ারি রাজশাহী সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার মামলাটি তাদের কাছে হস্তান্তরের জন্য মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম মাসুদ পারভেজকে চিঠি দেন। সিআইডি প্রধান মামলাটি গ্রহণের জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন বলে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ৩১ জানুয়ারি পুলিশ সিআইডির তদন্ত কর্মকর্তা আতাউর রহমানের কাছে মামলার নথিপত্র হস্তান্তর করে। তবে এর ১৮ দিন পরেও কোনো আসামি গ্রেপ্তার হয়নি।

ঘাতকরা আইনের আওতায় না আসায় কৌশিকের স্বজনদের মধ্যে হতাশা দেখা দিয়েছে। মামলার বাদী দেবাশিষ প্রামানিক দেবু জানান, মামলার বর্তমান তদন্ত কর্মকর্তা দুই দিন তার সঙ্গে কথা বলেছেন। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন। কিন্তু কেউ ধরা পড়েনি। আসামিরা দেশত্যাগ করতে পারে। তথ্য-প্রযুক্তির এ যুগে আসামিরা গ্রেপ্তার না হওয়া দুঃখজনক।

তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির উপ-পরিদর্শক (এসআই) আতাউর রহমান বলেছেন, তদন্ত চলছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।


রাজশাহী/তানজিমুল হক/রফিক

     
 

আরো খবর জানতে ক্লিক করুন : রাজশাহী, রাজশাহী বিভাগ
ট্যাগ :