ঢাকা     রোববার   ১৬ জানুয়ারি ২০২২ ||  মাঘ ২ ১৪২৮ ||  ১২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

 ক বর্ণ দিয়ে ৩ গল্পগ্রন্থ, সহায়তা দিলেন জেলা প্রশাসক

মাইনুদ্দীন রুবেল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:১৭, ২১ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ২০:২৫, ২১ জানুয়ারি ২০২১
 ক বর্ণ দিয়ে ৩ গল্পগ্রন্থ, সহায়তা দিলেন জেলা প্রশাসক

কথাশিল্পী ইকবাল সর্দার নাজমুল কবিরকে আর্থিক সহায়তার ঘোষণা দিয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খান এ ঘোষণা দেন।

জেলা প্রশাসক বলেন, দেশের আনাচে কানাচে অনেক প্রতিভাবান কবি, শিল্পী সাহিত্যিক ছড়িয়ে রয়েছেন। যারা পৃষ্ঠপোষকতা পেলে দেশের শিল্প, সাহিত্যাঙ্গন আরও সমৃদ্ধ হবে।

অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক ইকবাল সর্দার নাজমুল কবিরকে (ইসমোনাক) হাতে ২৫ হাজার টাকা আর্থিক প্রণোদন তুলে দেন এবং ভবিষ্যতে তার পাশে থাকার আশ্বাস দেন।

ইকবাল সর্দার নাজমুল কবির বলেন, ‘ক’ দিয়ে গল্প রচনা করতে গিয়ে দীর্ঘ আট বছর ঢাকা কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় লাইব্রেরিসহ ঢাকার বিভিন্ন  বড় বড় লাইব্রেরি থেকে ‘ক’ আদ্যাক্ষরের আড়াই লাখ শব্দ সংগ্রহ করেছি। দীর্ঘ ২৪ বছরের সাহিত্য সাধনায় ক বর্ণ দিয়ে তিনটি গল্পগ্রন্থ রচনা করেছি।  গ্রন্থগুলো হলো-‘কেষ্ট কবির কষ্টগুলো’, ‘কেষ্ট কবির কনফারেন্স’ এবং ‘কেষ্ট কবি’।  এই তিনটি গ্রন্থের প্রথম গ্রন্থের ক বর্ণ দিয়ে ৭ হাজার শব্দ, দ্বিতীয় গ্রন্থের ১০ হাজার এবং তৃতীয় গ্রন্থের প্রায় ১০ হাজার শব্দ ব্যবহার করা হয়েছে।  

এ সময় তিনি সাহিত্য সাধনা করতে গিয়ে চরম সামাজিক বঞ্চনার কথাও তুলে ধরেন।  এমনকি চরম অর্থকষ্টে তার সহধর্মিনী তাকে ছেড়ে চলে যাওয়ার কথাও তিনি আবেগ জড়িত কণ্ঠে বর্ণনা করেন।

উল্লেখ্য, পিতার দেওয়া নাম ইকবাল সর্দার নাজমুল কবির।  নামের আদ্যাক্ষর দিয়ে ইসমোনাক ছদ্মনামে তিনি সাহিত্য রচনা করেন।

ইসমোনাকের জন্ম ১৯৬৭ সালে। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক। নব্বই দশকের প্রথম দিকে কয়েক বছর শিক্ষকতা করলেও সাহিত্যের নেশায় এ পেশায় স্থায়ী হয়নি।

জেলা প্রশাসকের অনুষ্ঠানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাধারণ সম্পাদকসহ জেলার জ্যেষ্ঠ সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন। 

রুবেল/সাইফ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়