ঢাকা     রোববার   ২৬ জুন ২০২২ ||  আষাঢ় ১২ ১৪২৯ ||  ২৫ জিলক্বদ ১৪৪৩

উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় ছাত্রীকে মারধর

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:০৩, ১১ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ১৮:১০, ১১ অক্টোবর ২০২১
উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় ছাত্রীকে মারধর

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় ১০ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে প্রকাশ্যে মারধরের করেছে বখাটেরা। পরে বাঁশের বেড়া দিয়ে ওই ছাত্রীর পরিবারকে অবরোধ করার অভিযোগ উঠেছে। 

রোববার (১০ অক্টোবর) দুপুরে তাড়াশ উপজেলার নওগাঁ ইউনিয়নের কালুপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

সোমবার (১১ অক্টোবর) বিকাল ৫ টার দিকে তাড়াশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফজলে আশিক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, তাড়াশ আজিমনগর মহিলা কারিগরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের ১০ম শ্রেণির ছাত্রীকে মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) সকালে অটোভ্যানে করে স্কুলে যাওয়ার পথে উত্ত্যক্ত করেন নওগা ইউনিয়নের কালুপাড়া গ্রামের রুবেল হোসেন (১৮), নয়ন আলী (১৯) ও নাজমুল হক (২০)। পরে অভিযুক্তরা ওই ছাত্রীকে আজিমনগর মহিলা কারিগরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের অদূরে অটোভ্যান থেকে নামিয়ে রাস্তার ওপর তাকে উত্ত্যক্ত করে। এসবের প্রতিবাদ করলে তারা ছাত্রীকে প্রকাশ্যে মারধর করেন।  

ওই ঘটনায় স্কুল ছাত্রীর বাবা বুধবার (৬ অক্টোবর) সকালে তিন বখাটের বিরুদ্ধে তাড়াশ থানায় অভিযোগ করেন। এতে বখাটেরা ক্ষিপ্ত হয়ে শনিবার (১০অক্টোবর) বাঁশের বেড়া দিয়ে ওই ছাত্রী ও তার পরিবারের লোকজনকে বাড়ি থেকে বের হতে বাধা দেয়।

ভুক্তভোগী ছাত্রীর এক প্রতিবেশী বলেন, ওই ছাত্রী সহায় সম্বলহীন বাবা-মার সন্তান। জায়গা না থাকায় তাদের আমাদের পুকুর পারে থাকতে দিয়েছি। ওই ছাত্রী অসহায় বিধায় তার ও তার পরিবারের লোকজনের উপর অমানবিক নির্যাতন করেছে অভিযুক্তরা। ছাত্রীর বাড়ির বাইরে বের হওয়ার একমাত্র রাস্তায় বাঁশের বেড়া দিয়েছে তারা।

আজিমনগর মহিলা কারিগরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত সুপারিনটেনডেন্ট মিজানুর রহমান বলেন, ওই ছাত্রী আমাদের বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করে। আগেও বিদ্যালয়ে আসা যাওয়ার সময় রাস্তার মধ্যে নয়ন, রুবেল ও নাজমুল ওই ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করেছেন বলে জানতে পেরেছি।

তাড়াশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফজলে আশিক বলেন, বাঁশের বেড়া কেটে ওই ছাত্রী ও তার পরিবারের লোকজনের চলাচল বাধামুক্ত করা হয়েছে। আসামিরা পলাতক আছেন। তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

অদিত্য/মাসুদ 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়