ঢাকা     শুক্রবার   ২১ জানুয়ারি ২০২২ ||  মাঘ ৭ ১৪২৮ ||  ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্রে বসানো হলো পোলার ক্রেন ব্রিজ

পাবনা প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৩৫, ৩০ নভেম্বর ২০২১  
পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্রে বসানো হলো পোলার ক্রেন ব্রিজ

পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলায় বাস্তবায়নাধীন রূপপুরে পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের দ্বিতীয় ইউনিটের রিয়্যাক্টর বিল্ডিং-এ চক্রাকার (পোলার) ক্রেন ব্রিজ স্থাপনের কাজ শেষ হয়েছে।

রুশ প্রতিষ্ঠান এনার্গোস্পেকমনতাঝের বিশেষজ্ঞরা ১ হাজার ৩০৫ টন উত্তোলন ক্ষমতাসম্পন্ন বিশেষ ক্রেনের সাহায্যে ৩৮.৫০ মিটার এলিভেশনে অবস্থিত রেল ট্র্যাকের ওপর পোলার ক্রেন ব্রিজটি স্থাপন করেন।

মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) বিকেলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এতথ্য জানান এটমোস্ত্রয় এক্সপোর্ট (এএসই) ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং রূপপুর এনপিপি নির্মাণ প্রকল্পের পরিচালক আলেক্সি দেইরি এতথ্য জানান।

বিবৃতিতে আলেক্সি দেইরি বলেন, ‘রূপপুর এনপিপি’র দ্বিতীয় ইউনিটের কাজে আর একটি মাইলস্টোন অর্জিত হলো। পোলার ক্রেনের স্থাপন, পাওয়ার ইউনিটের নির্মাণ ক্ষেত্রে একটি জটিল কাজ। ক্রেনটির এডজাস্টমেন্ট এবং পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর রিয়্যাক্টর কম্পার্টমেন্টে মূল ভারী যন্ত্রপাতি এবং পাইপলাইন বসানোর কাজ শুরু হবে। ক্রেন ট্র্যাকে বর্তমানে ক্রেনের বিভিন্ন স্ট্রাকচার এবং মেকানিজম স্থাপনের কাজ এগিয়ে চলছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘দ্বিতীয় ইউনিটের রিয়্যাক্টর ভবন-এর অভ্যন্তরীণ কন্টেইনমেন্ট ডোমের নিচে পোলার ক্রেনটি বসানো হচ্ছে। ক্রেনটির উত্তোলন ক্ষমতা ৩৬০ টন এবং এর মাধ্যমে রিয়্যাক্টর ভেসেল, বাষ্প জেনারেটরসহ সব ভারী যন্ত্রপাতি বসানো হবে। বিদ্যুৎ প্রকল্প চালু হবার পর এই ক্রেনটি বিভিন্ন মেরামত কাজ এবং জ্বালানী পরিবহনে ব্যবহার করা হবে।’

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, পোলার ক্রেন ব্রিজের কংক্রিটিং-এর কাজ ডিসেম্বরের শেষ নাগাদ শেষ হবে এবং এর মাধ্যমে দ্বিতীয় ইউনিটের অভ্যন্তরীণ কন্টেইনমেন্টের পঞ্চম স্তরের আরসিসি কাঠামো স্থাপনের কাজের সমাপ্তি ঘটবে। এছাড়া দ্বিতীয় ইউনিটের অভ্যন্তরীণ কন্টেইনমেন্টের ডোমের জন্য রেইনফোর্সড কাঠামোর সংযোজন এবং ওয়েল্ডিং-এর কাজ এগিয়ে চলছে।

রূপপুর এনপিপি’র নকশা প্রনয়ন এবং নির্মাণের দায়িত্বে রয়েছে রসাটমের প্রকৌশল শাখা। রূপপুর প্রকল্পে দু’টি বিদ্যুৎ ইউনিট নির্মিত হচ্ছে। যার প্রতিটিতে থাকবে তৃতীয় প্রজন্মের ভিভিইআর-১২০০ রিয়্যাক্টর। প্রতিটি ইউনিটের আয়ু ৬০ বছর ধরা হয়েছে। কিন্তু তা আরো ২০ বছর বাড়ানোর সুযোগ থাকবে।’

শাহীন/ মাসুদ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়