ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২২ ||  মাঘ ৫ ১৪২৮ ||  ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

দু’ সদস্য প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত ২০

মাগুরা প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৫৬, ৩০ নভেম্বর ২০২১  
দু’ সদস্য প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত ২০

মাগুরার শালিখা উপজেলার ধনেশ্বরগাতী ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডে জয়ী এবং পরাজিত দুই সদস্য প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ ১৩ জনকে আটক করেছে।

মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) দুপুরে ধনেশ্বরগাতী ইউনিয়নের বটতলা বাজারে সংঘর্ষ হয়। 

গ্রামবাসী সূত্রে জানা গেছে, গত ২৮ নভেম্বর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ধনেশ্বরগাতী ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডে সাবেক সদস্য প্রমথ বিশ্বাস ঘড়ি প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন ফুটবল প্রতীকে জীবন বিশ্বাস। নির্বাচনে জীবন বিশ্বাস ৯৯৭ ভোট পেয়ে জয়ী হন। ৯৯৬ ভোট পেয়ে মাত্র ১ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন প্রমথ বিশ্বাস। 

পরাজয় মেনে নিতে না পেরে প্রমথ বিশ্বাস সোমবার (২৯ নভেম্বর) পুনরায় ভোট গণনার জন্য মাগুরা জেলা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয়ে লিখিত আবেদন করেন। মূলত এ নিয়ে তাদের মধ্যে পূর্বের বিরোধ চরমে পৌঁছে। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুরে বটতলা এলাকায় জীবন বিশ্বাস তার সমর্থকদের নিয়ে প্রমথ বিশ্বাসের উপরে হামলা চালায়। এ সময় প্রমথ বিশ্বাসের লোকজন এগিয়ে আসলে সংঘর্ষ শুরু হয়।

সংঘর্ষে প্রমথ বিশ্বাস (৫৫), অসীম বিশ্বাস (৪০), বিজন বিশ্বাস (৪৫), রিক্তা বিশ্বাস (৩৫), পলি বিশ্বাস (২৫), বিচিত্র বিশ্বাস (২৭) ও তপু বিশ্বাসসহ (১৮) উভয়পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ সময় পুলিশ এলাকা থেকে ১৩ জনকে আটক করে।

আহতদের মধ্যে যশোর সিটি কলেজের সম্মান প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী পলি বিশ্বাসসহ সাতজনকে মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সংঘর্ষের বিষয়ে জীবন বিশ্বাস এবং প্রমথ বিশ্বাস পরস্পরকে দায়ী করেছেন। পরাজিত প্রার্থী প্রমথ বিশ্বাস বলেন, কোনো ধরনের উস্কানি ছাড়াই জীবন বিশ্বাসের লোকজন হামলা চালায়। তিনি বলেন, ‘আমার বিশ্বাস পুনরায় ভোট গণনা হলে ফলাফল আমার পক্ষে আসবে।’ 

বিজয়ী মেম্বার জীবন বিশ্বাস বলেন, ‘নির্বাচনে হেরে গিয়ে প্রমথ বিশ্বাস আমার লোকজনের সঙ্গে ঝামেলা বাধায়। ফলে মারামারি হয়েছে।’ 

শালিখা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তারেক বিশ্বাস বলেন, নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে দুইপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে উভয় পক্ষের লোকজন আহত হয়েছে। জীবন বিশ্বাস এবং তারাপদ বিশ্বাসসহ ১৩ জন আটক রয়েছে। আরও আটকের চেষ্টা চলছে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। 
 

শাহীন/বকুল 

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়