ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ১১ আগস্ট ২০২২ ||  শ্রাবণ ২৭ ১৪২৯ ||  ১২ মহরম ১৪৪৪

নেত্রকোনায় নবজাতক শিশুসহ এক পাগলিকে উদ্ধার

নেত্রকোনা সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৪০, ১০ জানুয়ারি ২০২২  
নেত্রকোনায় নবজাতক শিশুসহ এক পাগলিকে উদ্ধার

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে নবজাতক কন্যা শিশুসহ নাম পরিচয় না জানা এক পাগলিকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে পুলিশ ও ফায়ার সর্ভিসের কর্মীরা। কিন্তু পাগলির মতো তার সন্তানের বাবার পরিচয় সম্পর্কে কারো কোনো ধারনা নেই।

রোববার (৯ জানুয়ারি) ভোরে উপজেলার কলুঙ্কা গ্রামের একটি জঙ্গলের ভেতর থেকে ওই পাগলিকে নবজাতকসহ উদ্ধার করা হয়। এদিকে শিশুটিকে দত্তক নিতে অনেকেই আগ্রহ প্রকাশ করেছেন বলে জানা গেছে।

মোহনগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সিনিয়র নার্স রিনা পাল বলেন, ‘শিশুটিকে আমরা সবাই মিলে পরিচর্যা করছি। পুরোপুরি সুস্থ্য আছে শিশুটি। শিশুটির মাকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু রোববার দুপুরের দিকে তিনি হাসপাতাল থেকে পালিয়ে গেছেন।’

কলুঙ্কা গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম জানান, ‘রাতে জঙ্গলের ভেতর থেকে একটি শিশুর কান্নার শব্দ শুনতে পান আল আমিন নামের এক ব্যক্তি। পরে এলাকার লোকজনকে ডেকে নিয়ে তিনি জঙ্গলে যান। এ সময় পাগলিটিকে ওই নবজাতকসহ পাওয়া যায়। পরে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা এসে দুইজনকে উদ্ধার করে মোহনগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।’ 

সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য ফারজানা হক হেনা বলেন, ‘ওই নারী পুরোপুরি মানসিক ভারসাম্যহীন। নিজের নাম ঠিকানাও বলতে পারে না। তাকে আমাদের এলাকায় এর আগে কেউ দেখেনি। তবে ঘটনার আগের দিন বিকেলে তাকে এই এলাকায় একজন ঘুরাঘুরি করতে দেখেছেন।’

মোহনগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশনের ইনচার্জ রবিউল ইসলাম বলেন, ‘ফুটফুটে একটা বাচ্চা, দেখলেই মন ভরে যায়। শিশুটিকে হাসপাতালে পৌঁছে দিয়েছি। নার্সদের অনুরোধ করেছি যেন তারা শিশুটির পরিচর্যা করেন।’

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সাব্বির আহমেদ আকুঞ্জি বলেন, ‘অনেক নিঃসন্তান দম্পতি শিশুটি দত্তক নেওয়ার জন আগ্রহ দেখিয়েছেন। তবে এ ক্ষেত্রে দীর্ঘদিন ধরে সন্তানরা অগ্রাধিকার পাবেন। তবে সমাজ সেবা কর্মকর্তাকে বলেছি এ বিষয়ে কি নিয়ম কানুন আছে দেখার জন্য। তাছাড়া অন্য এলাকায় এরআগে এই রকম শিশুর বেলায় তারা কি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সেটাও বিবেচনায় নেওয়া হবে। নিয়ম অনুযায়ীই এ বিষয়টা সমাধান করা হবে।‘

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মাসুল তালুকদার বলেন, ‘শিশুটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আছে। এই মুহূর্তে আমাদের কাছে প্রথম অগ্রাধিকার তার সুস্থতা। শুনেছি অনেক নিঃসন্তান সম্পতি শিশুটিকে দত্তক নেওয়া জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে এ বিষয়ে করণীয় ঠিক করা হবে।’

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা  নুর মোহাম্মদ শামছুল আলম বলেন, ‘শিশুটির পরিচর্চা চলছে। তবে সমাজসো কর্মকর্তা ও ইউএনও’র সঙ্গে পরামর্শ করে নিয়ম অনুযায়ী শিশুটির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

জুয়েল/ মাসুদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়