ঢাকা     শনিবার   ১৩ জুলাই ২০২৪ ||  আষাঢ় ২৯ ১৪৩১

বসিক নির্বাচন: মেয়র প্রার্থীদের মুখে প্রতিশ্রুতির ফুলঝুরি

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৪৯, ৩০ মে ২০২৩   আপডেট: ১০:৪৯, ১ জুন ২০২৩
বসিক নির্বাচন: মেয়র প্রার্থীদের মুখে প্রতিশ্রুতির ফুলঝুরি

আগামী ১২ জুন বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন। নির্বাচনের দিন যত ঘনিয়ে আসছে, ততই বাড়ছে মেয়র প্রার্থীদের প্রচারণার দৌড়ঝাপ। দিনভর প্রখর রোদে ঘামে শরীর ভিজিয়ে ভোটদের বাড়ি বাড়ি ছুটছেন তারা। 

প্রতিনিয়তই নতুন নতুন প্রতিশ্রুতি দিতে প্রতিযোগিতা চলছে প্রার্থীদের মধ্যে। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত প্রচার-প্রচারণার নির্বাচনী মাঠ দখলের চেষ্টা করছেন আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আবুল খায়ের আব্দুল্লাহ খোকন সেরিনয়াবাত, জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী ইকবাল হোসেন তাপস, ইসলামী আন্দোলনের হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম, জাকের পার্টির গোলাপফুল প্রতীকের মিজানুর রহমান বাচ্চু, টেবিল ঘড়ি প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী কামরুল হাসান রুপন, হাতি প্রতীকের আসাদুজ্জামান ও হরিণ প্রতীকের আলী হোসেন হাওলাদারের। 

আজ মঙ্গলবার (৩০ মে) সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আবুল খায়ের আবদুল্লাহ খোকন সেরনিয়াবাত বরিশাল নগরীর চকের পোল, বাজার রোড এবং বাকলা এলাকায় গণসংযোগ করেন। এ সময় তিনি নতুন বরিশাল গড়তে ১২ জুন নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, এবারে বরিশাল সিটি নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের ব্যাপক সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। তিনি স্বাভাবিকভাবেই বিপুল ভোটে জয়ী হবে বলে আশা প্রকাশ করেন। তিনি নির্বাচিত হলে বিগত কয়েক বছরে বরিশালে যে উন্নয়ন হয়নি, তার চেয়ে বেশি উন্নয়ন করে দেখাবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন।  

সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত জাতীয় পার্টির প্রার্থী ইকবাল হোসেন তাপস বরিশাল নগরীর বাকলার মোড়, বাজার রোড, চকবাজারসহ ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন। গণসংযোগকালে বরিশালকে ডিজিটাল এবং আইটি নগরী সৃষ্টির জন্য লাঙ্গলে ভোট দিতে তরুণ প্রজন্মসহ সকলের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ২০১৮ সালে বরিশাল সিটি নির্বাচনের পুনরাবৃত্তি জনগণ আর দেখতে চায় না। বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ প্রার্থী পরিবর্তন করেছে, তবে যাকে দিয়েছে তিনিও একই পরিবারের সদস্য। সেক্ষেত্রে সুষ্ঠু ভোট নিয়ে শঙ্কা থাকে যায়। তবে মনে রাখতে হবে বয়স্ক মানুষের সাথে যুবকরা দৌড়ে হেরে গেলে মানুষ সেটা ভালোভাবে নেবে না। তবে জনগণ সুষ্ঠু ভোট দিতে পারলে তারা আমাকে বেছে নিবেন।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ’র হাতপাখা প্রতীকের মেয়রপ্রার্থী মুফতী সৈয়দ মুহাম্মাদ ফয়জুল করীম নগরীর বান্দরোডস্থ শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এলাকাতে গণসংযোগ করেন। এ সময় তিনি বলেন, ‘বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিবেশগত দুরবস্থা এবং সেবার মান ভুক্তভোগী মাত্রই অবহিত আছেন। আমি মেয়র নির্বাচিত হলে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিশেগত দুরবস্থারোধ এবং চিকিৎসার মানোন্নয়নের মাধ্যমে আধুনিক ও উন্নত হাসপাতালে রূপান্তরের লক্ষ্যে মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সমন্বয়ে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করবো ইনশাআল্লাহ।’ 

বিএনপি’র সাবেক প্রয়াত মেয়র আহসান হাবিব কামালের ছেলে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী কামরুল আহসান রূপনও নগরীর আমতলা, সাগরদী, ব্রাঞ্চ রোড এবং কারিকর বিড়ি ফ্যাক্টরিতে গণসংযোগ করেন। গণসংযোগকালে তিনি বলেন, ‘আমার বাবা পৌর সভার চেয়ারম্যান এবং সিটি করপোরেশনের নির্বাচিত মেয়র ছিলেন। এই শহরের উন্নয়নে তার অনেক অবদান রয়েছে। তার ছিলো ভোট ব্যাংক। ওই ভোট ব্যাংক আমাকে ভোট দিলে আমি বিজয়ী হবো।’ 

বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিসিসি নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী জাকের পার্টির গোলাপফুল প্রতীকের মিজানুর রহমান বাচ্চু, স্বতন্ত্র প্রার্থী হাতি প্রতীকের আসাদুজ্জামান ও হরিণ প্রতীকের মোঃ আলী হোসেন হাওলাদার কোন ভাবে নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন বলে জানাগেছে।  
 

স্বপন/বকুল 

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়