ঢাকা     সোমবার   ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||  ফাল্গুন ১৪ ১৪৩০

ফেনীর ৩ আসনে নৌকার প্রার্থী হতে চান ৩০ জন

মো. সাহাব উদ্দিন, ফেনী || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:০১, ২২ নভেম্বর ২০২৩   আপডেট: ১৭:১৬, ২২ নভেম্বর ২০২৩
ফেনীর ৩ আসনে নৌকার প্রার্থী হতে চান ৩০ জন

ফেনী-৩ আসনে প্রার্থী হতে চান অভিনেত্রী রোকেয়া প্রাচী ও শমী কায়সার

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে নির্বাচনি দৌঁড়ঝাপ শুরু হয়েছে ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের মাঝে। নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করতে দলীয় আবেদন সংগ্রহ করেছেন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা। তবে এ বছর পুরনোদের পাশাপাশি নির্বাচনে অংশ নিতে নতুন মুখের ছড়াছড়িও দেখা যাচ্ছে।

মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের শেষ দিনে প্রাপ্ত সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী ফেনীর ৩টি আসনে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে জমা দিয়েছেন ৩০ নেতা।

প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, ফুলগাজী, পরশুরাম ও ছাগলনাইয়া নিয়ে গঠিত ফেনী-১ আসনে ১১ জন; ফেনী-২ সদর আসনে ৮ জন এবং দাগনভূঞা ও সোনাগাজী উপজেলা নিয়ে গঠিত ফেনী-৩ আসনে ১১ জন আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে জমা দিয়েছেন। তবে চূড়ান্ত মনোনয়ন কে পাচ্ছেন তা সিদ্ধান্ত হবে দলীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভায়। বৃহস্পতিবার (২৩ নভেম্বর) দলের সভাপতি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মনোনয়ন বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ফেনী-১ আসনে ১১ প্রার্থী দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে জমা দিয়েছেন। তারা হলেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সাবেক সদস্য আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিম, ছাগলনাইয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও ঢাকাস্থ ফেনী সমিতির সভাপতি শেখ আব্দুল্লাহ, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মিজানুর রহমান মজুমদার, সুপ্রিম কোর্টের সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট সাহাব উদ্দিন টিপু, আবদুল মতিন ভূঁইয়া, আবদুল্লা হারুন ভূঁইয়া রাসেল, ইলিয়াস জাকারিয়া জুয়েল, আবদুল কাদির ভূইয়া বাবু ও রোকেয়া সাফদার।

ফেনী-২ আসনে মোট ৮ নেতা দলীয় মনোনয়ন সংগ্রহ করেছেন। তারা হলেন,  বর্তমান সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ও সাংবাদিক নেতা ইকবাল সোবাহান চৌধুরী, ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও ফেনী পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন মিয়া হাজারী, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা সাইফুদ্দিন আহমেদ ভূঁইয়া নাসির, আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য সাইফ মাহমুদ, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় আইন উপ-কমিটির সদস্য ও যুবলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা কাজী ওয়ালী উদ্দিন ফয়সাল, আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শাখাওয়াত হোসেন ভূঁইয়া ও বঙ্গবন্ধুর একান্ত সহচর শফিউদ্দিন আহমেদের ছেলে দুলাল।

ফেনী-৩ আসনে ১১ নেতা জাতীয় নির্বাচনে অংশ নিতে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। তারা হলেন, আওয়ামী যুবলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও প্রেসিডিয়াম সদস্য বায়রার সভাপতি বিশিষ্ট শিল্পপতি আবুল বাশার, আওয়ামী যুবলীগ ফেনী জেলা সভাপতি ও দাগনভূঞা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান দিদারুল কবির রতন, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সোনাগাজী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপটন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আকরাম হোসেন হুমায়ুন, সোনাগাজী পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম খোকন, সোনাগাজী উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা জেড. এম. কামরুল আনাম, ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই'র পরিচালক অভিনেত্রী শমী কায়সার, অভিনেত্রী রোকেয়া প্রাচী, আওয়ামী লীগের কৃষিবিষয়ক ও সমবায়বিষয়ক কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সদস্য এ কে আজাদ, জেদ্দা আওয়ামী লীগের সাবেক নেতা ও সাবেক সংসদ সদস্য হাজী রহিম উল্যাহ, তার স্ত্রী পারভীন আক্তার, চাকসুর সাবেক জিএম আজিম উদ্দিন, বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সদস্য নিজাম উদ্দিন এবং সাবেক যুবলীগ নেতা আমজাদ হাজারী।

তবে নির্বাচনে ফেনীর তিনটি আসন-ই আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী চায় তৃণমূল নেতাকর্মীরা। শেষ পর্যন্ত কে হচ্ছে নৌকার প্রার্থী এ নিয়ে চলছে নানা আলোচনা ও জল্পনা-কল্পনা। ফেনীর তিনটি সংসদীয় আসনের মধ্যে বর্তমানে ফেনী-১ আসনে জাসদের শিরিন আখতার ও ফেনী-৩ আসনে জাতীয় পার্টির লে. জে. (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী সংসদ সদস্য হিসেবে রয়েছে। শুধু ফেনী-২ আসনে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী সংসদ সদস্য রয়েছেন।  

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী জানান, আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন দেবেন সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি যাকেই নৌকার মনোনয়ন দেবেন, তার পক্ষে সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবেন। অতীতের চেয়ে বর্তমানে জেলা আওয়ামী লীগ অনেক শক্তিশালী ও সুসংগঠিত।  

মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) ছিল আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ ও জমা দেওয়ার শেষ দিন। শনিবার এ কার্যক্রম শুরু করা হয়। আগামী ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ করা হবে। বৃহস্পতিবার (২৩ নভেম্বর) দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত করতে সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভা ডেকেছে আওয়ামী লীগ। দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের তেজগাঁওয়ের কার্যালয়ে এই সভা করার কথা রয়েছে। 

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ৩০ নভেম্বর, বাছাই ১-৪ ডিসেম্বর, রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল ও শুনানি ৬-১৫ ডিসেম্বর এবং ১৭ ডিসেম্বরের মধ্যে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা যাবে। প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে ১৮ ডিসেম্বর। নির্বাচনী প্রচারণা চলবে ১৮ ডিসেম্বর থেকে ৫ জানুয়ারি সকাল ৮টা পর্যন্ত।
 

সাহাব/বকুল

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়