ঢাকা     সোমবার   ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||  ফাল্গুন ১৪ ১৪৩০

মনোনয়ন পাননি এমপি, খুশিতে সাবেক ছাত্রলীগ নেতার সিজদা

রাজশাহী প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৩২, ৩০ নভেম্বর ২০২৩  
মনোনয়ন পাননি এমপি, খুশিতে সাবেক ছাত্রলীগ নেতার সিজদা

রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনের এমপি আয়েন উদ্দিন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাননি। এজন্য খুশিতে আল্লাহর প্রতি শুকরিয়া জানিয়ে সিজদা করেছেন মোহনপুরের একটি কলেজের শিক্ষক। এই শিক্ষকের নাম আহসান হাবিব রনি।

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ঘোষণার পর থেকেই রনি ঢাকায় ছিলেন। বুধবার রাত ৯টায় তিনি মোহনপুরে ফেরেন। এরপর উপজেলা সদরে রাজশাহী-নওগাঁ মহাসড়কে তিনি একটি সিজদা দেন। রনি মোহনপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন। জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদকও ছিলেন তিনি। এখন স্থানীয় একটি কলেজে শিক্ষকতা পেশায় আছেন।

সিজদা দেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে আহসান হাবিব রনি বলেন, ‘এমপি আয়েন উদ্দিন একজন জুলুমকারী। তিনি ভূমি দখলকারী, রাজাকারের সন্তান। একজন রাজাকারের সন্তান এবার মনোনয়ন পাননি। মোহনপুরের মাটি কলঙ্কমুক্ত হয়েছে। সেই খুশিতে আল্লাহর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সিজদা দিয়েছি। মহান মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানী বাহিনী থেকে আমাদের দেশ মুক্ত হয়েছিল ৯ মাসে, আর রাজাকারের সন্তান থেকে মোহনপুরের মাটি মুক্ত হলো ১০ বছর পর।’

তিনি বলেন, ‘আয়েন উদ্দিন ২০১৪ সালে প্রথম এমপি হয়েই আগে আমাদের ছাত্রলীগের কমিটি ভেঙেছিলেন। আমিই প্রথম তার নির্যাতনের শিকার। ২০১৪ সালে এমপি হওয়ার পরে তিনি আমাকে প্রথম পুলিশ দিয়ে আটক করান। সারাদিন থানা কাস্টডিতে রাখেন, যেন আমাকে দেখে অন্যরা অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে ভয় পায়। এতদিন পর আমরা আওয়ামী লীগ করার অধিকার ফিরে পেয়েছি।’

আহসান হাবিব রনি আরও বলেন, ‘আমি কলেজের শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেছি। এই কলেজের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি এমপির দুলাভাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুস সালাম। তিনি আমাকে সাসপেন্ড করার জন্য তিন বার মিটিং করেছেন। এবার যদি এমপি আয়েন উদ্দিন মনোনয়ন পেতেন, তাহলে এতক্ষণে আমি সাসপেন্ড হয়ে যেতাম।’

এমপি আয়েন উদ্দিন এখন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। ২০১৪ সাল থেকে পর পর দুইবার নৌকার টিকিটে তিনি এমপি নির্বাচিত হন। এবার এ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ। তবে নৌকার বিপক্ষে স্বতন্ত্র প্রার্থী হতে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন এমপি আয়েন উদ্দিন।

সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আহসান হাবিব রনির অভিযোগের বিষয়ে কথা বলতে এমপি আয়েন উদ্দিনকে ফোন করা হয়। তবে তিনি রিসিভ করেননি। আর সংযোগ পাওয়া যায়নি এমপির দুলাভাই উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুস সালামের মোবাইলে। এজন্য তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

কেয়া/এনএইচ

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়