ঢাকা     শনিবার   ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||  ফাল্গুন ১১ ১৪৩০

আচরণবিধি লঙ্ঘন

নরসিংদী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কারাগারে

নরসিংদী প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:০৯, ১ ডিসেম্বর ২০২৩   আপডেট: ২১:১৯, ১ ডিসেম্বর ২০২৩
নরসিংদী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কারাগারে

নিবার্চনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করে উসকানি মূলক বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার হওয়া নরসিংদী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আহসানুল ইসলাম রিমনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। শুক্রবার (১ ডিসেম্বর) বিকেল ৫টার দিকে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মাহমুদুল হাসানের আদালত ছাত্রলীগ নেতাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। 

আদালত পুলিশের পরিদর্শক সাফায়েত হোসেন পলাশ বলেন, রিমনকে আজ আদালতে তোলা হয়। এসময় তার আইনজীবীরা জামিনের আবেদন করেন। পরে বিচারক আগামী রোববার শুনানির দিন ধার্য করেন। এরপর রিমনকে কারাগারে পাঠানো হয়।

আরও পড়ুন: নরসিংদী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি গ্রেপ্তার

এদিকে, রিমনকে আদালতে নিয়ে আসা হলে তার মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। তারা আদালতের সামনে সড়কে বসে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন। পরে নরসিংদী মডেল থানা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

গত বুধবার নরসিংদী ক্লাবে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নরসিংদী-১ সদর আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সংসদ সদস্য মো. নজরুল ইসলামের (বীর প্রতীক) মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় নরসিংদী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আহসানুল ইসলাম রিমন তার বক্তব্যে নৌকার বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়া স্বতন্ত্র প্রার্থীদের পেটানোর হুমকি দেন। মুহূর্তে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে তার ওই বক্তব্য ভাইরাল হয়। 

ভিডিওতে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতিকে বলতে শোনা যায়, ‘কোনো স্বতন্ত্র মতন্ত্র আমরা চিনি না, মাইরের ওপর কোনো ওষুধ নেই। ছাত্রলীগের কোনো পোলাপান স্বতন্ত্ররে মানতো না। স্বতন্ত্ররে কেমনে পিডাইতে হয়, হেই দেখাইছে। হেরে আমরা হেমনেই পিডামো। এই শহরে, এই সদরের কোনো এলাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থীদের কোনো জায়গা দেওয়া যাবে না। তারা নৌকার বিরোধী, মুক্তিযুদ্ধের বিরোধী, তারা দেশ বিরোধী।’

ছাত্রলীগ নেতার বক্তব্য ভাইরাল হলে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে নরিসংদীর সহকারী রিটানিং অফিসার ওমর ফারুক বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় আহসানুল ইসলাম রিমনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। একই সঙ্গে জেলা ছাত্রলীগ সভাপতিকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয় ওই আসনের নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটি। বৃহস্পতিবার রাতে এই কারণ দর্শানোর নোটিশ দেন নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটির সদস্য নরসিংদীর যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ নাহিদুর রহমান নাহিদ। নোটিশ পাওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে লিখিত জবাব দিতে বলা হয়েছে।

হৃদয়/মাসুদ

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়