ঢাকা     শনিবার   ১৩ এপ্রিল ২০২৪ ||  চৈত্র ৩০ ১৪৩০

ঢাকা-১৯

দুই স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনি কার্যালয়ে হামলা, ৩ জনকে তলব

সাভার (ঢাকা) প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৩৫, ২০ ডিসেম্বর ২০২৩   আপডেট: ২১:৫০, ২০ ডিসেম্বর ২০২৩
দুই স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনি কার্যালয়ে হামলা, ৩ জনকে তলব

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঢাকা-১৯ (সাভার-আশুলিয়া) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী ও সাবেক সংসদ সদস্য তালুকদার মো. তৌহিদ জং ওরফে মুরাদ এবং আশুলিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ সাইফুল ইসলামের অস্থায়ী নির্বাচনি কার্যালয়ে হামলার অভিযোগে তিনজনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটি।

বুধবার (২০ ডিসেম্বর) এই আসনের নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যান ও সিনিয়র সহকারী জজ জাকির হোসেন স্বাক্ষরিত পৃথক তিনটি কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়। সংশ্লিষ্টদের এবিষয়ে আগামী ২৪ ডিসেম্বর সকাল ১০টার মধ্যে নোটিশে স্বাক্ষরকারীর কার্যালয়ে হাজির হয়ে লিখিত ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে।

আরও পড়ুন: সাভারে দুই স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলার অভিযোগ

নোটিশপ্রাপ্তরা হলেন, সাভার সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম রুবেল, সাভার পৌরসভার কাতলাপুরের সাবেক ছাত্রদল নেতা মো. বাবু ও পলাশ। এদের মধ্যে বাবু ও পলাশ আপন দুই ভাই। মাজহারুল ইসলাম রুবেল সাভার উপজেলা চেয়ারম্যানের মঞ্জুরুল আলম রাজীবের শ্যালক।

নোটিশে বলা হয়েছে, গত সোমবার সন্ধ্যায় নামাগেন্ডা এলাকায় দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ সাইফুল ইসলামের নির্বাচনি কার্যালয়ে এবং একই দিন দিবাগত রাতে পৌরসভার ভাগলপুরে অপর স্বতন্ত্র প্রার্থী তৌহিদ জংয়ের অস্থায়ী নির্বাচনি কার্যালয়ে ১৫-১৬ জনকে সঙ্গে নিয়ে হামলা করে ব্যানার ছিঁড়ে ফেলেন এবং কয়েকটি চেয়ার ও টেবিল ভাঙচুর করেন। এবং তৌহিদ জংয়ের নির্বাচনি প্রচারণায় কেউ অংশ নিলে তাঁকে হত্যার হুমকিসহ কাতলাপুরে সাভার পৌর আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি ও তৌহিদ জংয়ের সাভার পৌরসভার ৭৩টি কেন্দ্র পরিচালনার দায়িত্বে থাকা আবদুল হালিমের ব্যক্তিগত কার্যালয়ে হামলাসহ কার্যালয়ের সাইনবোর্ড, তিনটি সিসিটিভি ক্যামেরা ভাঙচুর করেন মর্মে সংবাদমাধ্যমের অনলাইন সংস্করণে ব্যাপক প্রচারিত ও প্রকাশিত হয়েছে। উক্ত কার্যের দ্বারা আপনি সংসদ নির্বাচনে রাজনৈতিক দল ও প্রর্থীর আচরণ বিধিমালা ২০০৮ এর ১১(গ) বিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন করেছেন।

নোটিশে আরো বলা হয়েছে, উক্ত বিধিমালা লঙ্ঘনের কারণে কেন নির্বাচন কমিশনে আপনার বিরুদ্ধে প্রতিবেদন প্রেরণ করা হবে না এবং শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হবে না মর্মে আগামী ২৪ ডিসেম্বর সকাল ১০টায় নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যান ও সিনিয়র সহকারী জজ জাকির হোসেনের কার্যালয়ে হাজির হয়ে লিখিত ব্যাখ্যা প্রদানের জন্য আপনাকে নির্দেশ প্রদান করা হলো।

কারণ দর্শানোর নোটিশের বিষয়টি নিশ্চিত করে সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ফেরদৌস ওয়াহিদ বলেন, নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটি তিনজনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন। আমরা প্রার্থীসহ সবাইকে নির্বাচনকালীন সময়ে নির্বাচনি আচরণবিধি মেনে চলার অনুরোধ জানাচ্ছি।

সাব্বির/মাসুদ

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়