ঢাকা     শুক্রবার   ১৯ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৬ ১৪৩১

গাজীপুরে দুর্বৃত্তের আগুন দেওয়া ২ বিদ্যালয়েও চলবে ভোট

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:৫৭, ৬ জানুয়ারি ২০২৪   আপডেট: ১৬:২৩, ৬ জানুয়ারি ২০২৪
গাজীপুরে দুর্বৃত্তের আগুন দেওয়া ২ বিদ্যালয়েও চলবে ভোট

গাজীপুর মহানগরীর দুটি ও কালিয়াকৈরে উপজেলার একটি বিদ্যালয়ে গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাতে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। এই তিন বিদ্যালয়ের মধ্যে দুটি বিদ্যালয় দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট কেন্দ্র ছিল। পুড়ে যাওয়া ওই কেন্দ্রগুলোতে ভোট গ্রহণ করা হবে বলে শনিবার (৬ জানুয়ারি) জানিয়েছেন, গাজীপুর জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক আবুল ফাতে মোহাম্মদ সফিকুল ইসলাম। 

রিটার্নিং কর্মকর্তা সফিকুল ইসলাম জানান, পুড়ে যাওয়া বিদ্যালয় তিনটির মধ্যে দুটি ভোট কেন্দ্র ছিল। তবে, ভোট কক্ষগুলো তেমন ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি। এজন্য ওই দুটি কেন্দ্রে ভোট নেওয়া হবে। একই সঙ্গে আগুন দেওয়ার ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: গাজীপুরে ভোটকেন্দ্র ও বিদ্যালয়ে আগুন

গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাত সোয়া ১টার দিকে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ১৭ নম্বর ওয়ার্ডে অবস্থিত পূর্ব চান্দনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। এতে ভোট কেন্দ্রের কয়েকটি কক্ষ পুড়ে যায়। অপর দিকে, রাত সাড়ে ৩টার দিকে ১৮ নম্বর ওয়ার্ডে অবস্থিত টিএনটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আগুন দেওয়া হয়। খবর পেয়ে জয়দেবপুর ফায়ার সার্ভিস ও গাজীপুর মর্ডান ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে। ততক্ষণে স্কুলের ৯টি কক্ষ পুড়ে যায়। এছাড়া, কালিয়াকৈর উপজেলার মৌচাক ইউনিয়নের বাঁশতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। সকালে শিক্ষকরা স্কুলের এসে দেখেন স্কুলের অফিস কক্ষ পুড়ে গেছে। আগুনে বিভিন্ন প্রয়োজনীয় কাগজপত্র এবং অল্প কিছু নতুন বইও পুড়ে গেছে।

টিএনটি স্কুলের প্রধান শিক্ষক ওসমান আলী বলেন, রাত ৩টার দিকে নৈশপ্রহরী আমাকে ফোন দিয়ে জানায় স্কুলে আগুন লেগেছে। তাৎক্ষণিক আমি ৯৯৯ নম্বরে ফোন করি। খবর পেয়ে  জয়দেবপুর ফায়ার সার্ভিস ও গাজীপুর মর্ডান ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে। ততক্ষণে স্কুলের ৯টি কক্ষ পুড়ে যায়। বিদ্যালয়টি দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনের ভোট কেন্দ্র ছিল না।

বাঁশতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি আলতাফ হোসেন জানান, অফিস কক্ষে অনেক মূল্যবান কাগজপত্র ছিল। কিছু ছাত্র অনুপস্থিত থাকায় তাদের নতুন বই অফিস কক্ষে রাখা ছিল। সববই পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

গাজীপুর ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক আবদুল্লাহ আল আরেফিন বলেন, আমরা ১টা ২৪মিনিটে খবর পেয়ে পূর্ব চান্দনা বিদ্যালয়ে যাই। ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। টিএনটি সরকারি বিদ্যালয়ের আগুন নিয়ন্ত্রণে চান্দনা মর্ডাণ ফায়ার স্টেশনের ২টি ইউনিট কাজ করে। ধারণা করা হচ্ছে স্কুলের জানালা দিয়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

রেজাউল/মাসুদ

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়