ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২০ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৬ ১৪৩১

কিশোরের পায়ুপথে ব্রাশ ঢুকিয়ে নির্যাতন

ফেনী প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:৪৫, ২১ মে ২০২৪  
কিশোরের পায়ুপথে ব্রাশ ঢুকিয়ে নির্যাতন

ফেনীতে এক কিশোরের পায়ুপথে ব্রাশ ঢুকিয়ে নির্যাতন করেছেন দুই যুবক। এ ঘটনায় মামলা করেছেন ভুক্তভোগী কিশোরের মা। তবে, এখনও অভিযুক্তদের আটক করতে পারেনি পুলিশ।

সোমবার (২০ মে) দুপুরে ছাগলনাইয়া উপজেলার জমদ্দার বাজারের আহম্মদ শপিং সেন্টারে ওই কিশোরকে নির্যাতন করা হয়। বিকেলে বিষয়টি জানাজানি হয়। তবে, কারা কী কারণে তার ওপর এমন নির্যাতন করেছেন, তা এখনও জানা যায়নি।

ভুক্তভোগী ফজর আলী নয়নকে (১৪) চট্টগ্রাম মেডিক্যাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নয়ন ছাগলনাইয়া উপজেলার মহামায়া ইউনিয়নের মজলহক সওদাগর বাড়ির কোরবান আলীর ছেলে। 

এলাকাবাসী জানিয়েছেন, ছাগলনাইয়ার জমদ্দার বাজারের আমিন স্টোরের কর্মচারী নয়নকে  (১৪) আহম্মদ শপিং সেন্টারের সামনে থেকে ডেকে নিয়ে যান এক অজ্ঞাত যুবক। নয়ন তার কথামতো ভবনটির দ্বিতীয় তলায় গেলে সেখানে উপস্থিত আরও এক অজ্ঞাত যুবক নয়নের হাত-পা ও চোখ বেঁধে তৃতীয় তলায় নিয়ে যান। এর পর কিছু বুঝে ওঠার আগেই নয়নের ওপর নির্যাতন শুরু করেন তারা। শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টার পর বাথরুমে নিয়ে ওই কিশোরের পায়ুপথে টয়লেট পরিষ্কার করার ব্রাশ ঢুকিয়ে দেন দুই অজ্ঞাত যুবক। 

নয়ন গণমাধ্যমকে বলেছেন, দুপুরে দোকানে যাওয়ার সময় মাথায় বস্তা তুলতে সাহায্য করার জন্য এক যুবক আমাকে ডেকে আহমেদ শপিং সেন্টারের দোতলায় নিয়ে যান। সেখানে আগে থেকে অবস্থান করা অপর এক অজ্ঞাত যুবকসহ আমার চোখ-হাত-পা বেঁধে ফেলেন। তৃতীয় তলায় নিয়ে ওই দুই যুবক শ্বাসরোধ করে মেরে ফেলার চেষ্টা করেন। পরে তারা আমাকে ভবনের একটি বাথরুমে নিয়ে যান। সেখানে প্যান্ট খুলে জোরপূর্বক আমার পায়ুপথে বড় আকৃতির কিছু একটা ঢুকিয়ে দেন। পরে আমি আমার দোকান মালিককে ফোন করে সাহায্য চাই। তিনি লোকজন নিয়ে এসে আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। হাসপাতালে জানতে পারি, আমার পায়ুপথে টয়লেট পরিষ্কার করার ব্রাশ ঢোকানো হয়েছে। 

এ ঘটনায় নয়নের মা শাহেনা আক্তার অজ্ঞাত দুই যুবকের বিরুদ্ধে ছাগলনাইয়া থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। তিনি সাংবাদিকদের বলেছেন, যারা আমার ছেলের ওপর নির্যাতন করে হত্যা করতে চেয়েছে, তাদের শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। 

ছাগলনাইয়ায় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাসান ইমাম বলেন, এ ঘটনায় কারা জড়িত, তাদের খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে পুলিশ। 

সাহাব উদ্দিন/রফিক

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়