Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ০৬ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ২২ ১৪২৮ ||  ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩

প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শিত হচ্ছে ২১ ঘণ্টা ব্যাপ্তির চলচ্চিত্র

বিনোদন ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০২:১১, ১৯ জুলাই ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শিত হচ্ছে ২১ ঘণ্টা ব্যাপ্তির চলচ্চিত্র

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত নির্মাতা আশরাফ শিশির নির্মিত চলচ্চিত্র ‘আমরা একটি সিনেমা বানাবো’। অবশেষে প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শিত হচ্ছে ২১ ঘণ্টা ব্যাপ্তির এ চলচ্চিত্র।

আজ (১৯ জুলাই) সকাল থেকে পাবনার ঐতিহ্যবাহী রূপকথা সিনেমা হলে প্রদর্শিত হচ্ছে বিশ্বের দীর্ঘতম এই চলচ্চিত্র। আজ দিবাগত রাত ১২টায় প্রথম শো শেষ হবে। 

আশরাফ শিশির রাইজিংবিডিকে বলেন—আজ সকাল ৯টায় প্রথম শোয়ের উদ্বোধন হয়েছে। সিনেমাটি এখন চলছে। রাত ১২টায় শেষ হবে। আগামীকাল সকাল ৯টা থেকে দ্বিতীয় শো শুরু হবে। প্রয়োজনীয় বিরতি দিয়ে ২১ ঘন্টার সিনেমাটি প্রদর্শিত হচ্ছে।

পাবনা ফিল্ম সোসাইটির আয়োজনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন পাবনার জেলা প্রশাসক কবির মাহমুদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পাবনা প্রেস ক্লাবের সভাপতি এ. বি. এম. ফজলুর রহমান। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন রূপকথা সিনেমা লিমিটেড ও ইউনিভার্সাল গ্রুপের কর্ণধার ড. সোহানি হোসেন, পরিচালক আশরাফ শিশির প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পাবনা ফিল্ম সোসাইটির প্রধান সমন্বয়ক খালেদ হোসেন পরাগ। চলচ্চিত্র শিল্পকে বাঁচাতে বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ মহামারি মাথায় রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে প্রদর্শিত হচ্ছে বলে জানান তিনি।

পরিচালক আশরাফ শিশির জানান, বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শনের জন্য চলচ্চিত্রটিকে ৮টি চ্যাপ্টার বা অধ্যায়ে ভাগ করা হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে— চলচ্চিত্রটির প্রথম ও দ্বিতীয় অধ্যায় যেগুলোর দৈর্ঘ্য যথাক্রমে ২ ঘণ্টা ৫৪ মিনিট এবং ২ ঘণ্টা ৪৫ মিনিটের সেন্সর করা হয়েছে। তার আগে ২১ ঘণ্টার চলচ্চিত্রটি বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভে যথাযথ কর্তৃপক্ষ বরাবর জমা দেওয়া হয়।

সম্পূর্ণ সাদাকালোয় নির্মিত চলচ্চিত্রটির কাহিনি গড়ে উঠেছে এমন এক জনপদকে ঘিরে, যেখানে রয়েছে মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময়ে স্বাধীনতাবিরোধী শক্তির আবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠলে রাজনৈতিক ও সামাজিক অবক্ষয়ের মধ্যে কয়েকজন নিষ্পাপ মানুষের সিনেমা নিয়ে বিপ্লবী হয়ে ওঠা, স্বপ্ন ও স্বপ্নভঙ্গের গল্প। এ বিষয়ে পরিচালক বলেন, ‘তৃতীয় বিশ্বের ছোট্ট একটি দেশের ছোট্ট একটি শহরে আমাদের যে জীবন, তা ভীষণ সাদাকালো। আমরা যে স্বপ্নটুকু দেখি তা কিছুটা রঙ্গিন। জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত মানুষ মূলত: নিষ্পাপ, শুধু পরিস্থিতি পারিপার্শ্বিকতার কারণে তারা অনেক অন্যায় করতে বাধ্য হয়। সিনেমা বানানোর বিপ্লবের পাশাপাশি এখানে এমন এক নিষ্পাপ মানুষের গল্প রয়েছে, যে জীবনে একটি পিঁপড়াকেও হত্যা করেনি, অথচ সিনেমার শেষে সে একজনকে খুন করে এমন এক নারীর জন্য যাকে সে কোনোদিন দেখেনি।’

ইমপ্রেস টেলিফিল্ম প্রযোজিত এ চলচ্চিত্রের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন—রাইসুল ইসলাম আসাদ, সুমনা সোমা, স্বাধীন খসরু, মাসুম আজিজ, প্রাণ রায়, আয়শা মুক্তি, তেরেসা চৈতি, এলিনা শাম্মী, অরণ্য রানা, দুখু সুমন, জান্নাত সোমা, ইমরান, স্মরণ, সৈকত, ইয়াসিন, টিটো, সানসি, অর্নব, লিজা, মানিক, সজীব, নুপুর, সুজয়, রাব্বী, উজ্জ্বল, দীপ, সাদ্দাম, তুয়া, তুর্য, মাঈশা, মিমো, সুপ্ত, বিশাল, মিন্টু, মানিক, লিটন, শুভ, অলক, ভাস্কর, সম্রাট, আজাদসহ চার হাজার শিল্পী। চলচ্চিত্রটির সংগীত পরিচালনা করেছেন রাফায়েত নেওয়াজ ও সম্পাদনা করেছেন সাব্বীর মাহমুদ। চিত্রগ্রহণ করেছেন মোহম্মদ আশরাফুল, সমর ঢালী ও সাব্বির। প্রধান শিল্প নির্দেশক সলিল মজুমদার।

 

ঢাকা/শান্ত

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়