ঢাকা     মঙ্গলবার   ০৫ জুলাই ২০২২ ||  আষাঢ় ২১ ১৪২৯ ||  ০৫ জিলহজ ১৪৪৩

ইউক্রেনের মডেল সাবরিনার দু’চোখে শুধুই শূন্যতা

বিনোদন ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:৫৯, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৩:০১, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২
ইউক্রেনের মডেল সাবরিনার দু’চোখে শুধুই শূন্যতা

ইউক্রেনের মডেল সাবরিনা

রাশিয়ার চালানো একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র ও বিমান হামলায় ইউক্রেনে ২৪০ বেসামরিক হতাহত হয়েছে। এদের মধ্যে মারা গেছেন ৬৪ জন। জাতিসংঘের মানবিক বিষয়ক সমন্বয় সংস্থা (ওসিএইচএ) রোববার (২৭ ফেব্রুয়ারি) একথা জানিয়েছে। তবে তাদের ধারণা হতাহতের প্রকৃত সংখ্যা এর চেয়েও অনেক বেশি।

ইউক্রেন যে এমনটা হতে পারে তা গত জানুয়ারিতেও ভাবতে পারেননি দেশটির মডেল সাবরিনা। গত জানুয়ারিতে ভারতে আসেন তিনি। ইচ্ছা ছিল দেশটি ঘুরে দেখবেন। উঠেছেন মুম্বাইয়ে। এর মধ্যেই তার দেশে যুদ্ধ লেগে গেলো। আর মেয়েটির ভারত ভ্রমণের উচ্ছ্বাস ম্লান করে দিলো ‘রাজার দল’।

মডেল সাবরিনার দু’ চোখে আজ কেবলই শূন্যতা। কী হবে তার পরিবারের, কেমন আছেন তারা! আদৌ কি ভবিষ্যতে তাদের সঙ্গে দেখা হবে? এই প্রশ্নেই এখন তোলপাড় সাবরিনার হৃদয়। ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভ থেকে বেশ কিছুটা দূরে কৃষ্ণ সাগরের উপকূলবর্তী এলাকা খেরসনে সাবরিনার বেড়ে ওঠা। এই যুদ্ধ আগে দেখেননি তিনি; দেখেননি মানুষের হাহাকার!

টাইমস অব ইন্ডিয়াকে সাবরিনা বলেন—‘ক্রমাগত খবর দেখে চলেছি। এই কি আমার দেশ! আমার ভয় লাগছে। আমি কি দুঃস্বপ্ন দেখছি? আমার পরিবার ওখানে রয়েছে। ওদের আবার দেখতে পাবো তো?’

এখনো সাবরিনার বাড়িতে ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়নি, পরিবারের সঙ্গে তার কথা হয়েছে। তাও যুদ্ধ শুরুর একেবারে গোড়ার দিকে। কাঁদতে কাঁদতে সাবরিনা বলেন, ‘আমার পরিবারকে এত ভয় পেতে আগে দেখিনি। বোমার শব্দে ঘুম ভাঙছে ওদের। খেরসন ও আমার বাড়ি খুব শান্ত জায়গা। খুব নিরিবিলি ছোট্ট একটি গ্রাম। কিন্তু আজ তাতে বারুদ-বোমার দমবন্ধ করা ধোঁয়া, কান ফাটানো আওয়াজ। আমাদের তো বেসমেন্ট নেই যে সেখানে গিয়েও পরিবার আশ্রয় নেবে। সবাই বাড়িতে নিজেদের বন্দি করেছে। কিন্তু এভাবে কতদিন? খাবারও তো শেষ হয়ে আসছে।’

রাশিয়ার হুঁশিয়ারির বিষয়ে আগে থেকে জানতেন সাবরিনা। কিন্তু হামলা যে হতে পারে তা বোঝেননি তিনি, এই অবস্থায় দেশেও ফিরে যাওয়ার অবস্থা নেই তার। ভারতে তিনি নিরাপদে আছেন, কিন্তু তার গোটা পরিবার বিনিদ্র রজনী কাটাচ্ছে। স্বাভাবিকভাবে মন ভালো নেই সাবরিনার। আপাতত তার একটাই প্রার্থনা—পরিবার যেন নিরাপদে থাকেন।

ঢাকা/শান্ত

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়