ঢাকা     শনিবার   ২২ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৮ ১৪৩১

আনসার আল ইসলামের আড়ালে নতুন জঙ্গি সংগঠন ‘শাহাদাত’

জ্যেষ্ঠ প্রতি‌বেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:০২, ২৫ মে ২০২৪   আপডেট: ১৫:১২, ২৫ মে ২০২৪
আনসার আল ইসলামের আড়ালে নতুন জঙ্গি সংগঠন ‘শাহাদাত’

আনসার আল ইসলামের রিক্রুটিং শাখার প্রধান মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেন ও দুজন আঞ্চলিক প্রশিক্ষককে রাজধানীর গুলিস্তান ও সাইনবোর্ড এলাকা থেকে উগ্রবাদী পুস্তিকাসহ গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।  

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন মো. ইসমাইল হোসেন (২৫), মো. জিহাদ হোসেন ওরফে হুজাইফা (২৪) এবং মো. আমিনুল ইসলাম (২৫)।

শনিবার র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার আরাফাত ইসলাম এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, এদের মধ্যে ইসমাইল হোসেন রিক্রুটিং শাখার প্রধান; অন্য দুইজন আঞ্চলিক প্রশিক্ষক।

কারওয়ান বাজারের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে কমান্ডার আরাফাত বলেন, র‌্যাবসহ অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিয়মিত অভিযানের কারণে আনসার আল ইসলামের কার্যক্রম প্রায় স্তিমিত হয়ে পড়েছে। 

এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল র‌্যাব সদর দপ্তরের গোয়েন্দা শাখা ও র‌্যাব-৩ এর একটি দল গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে রাজধানীর গুলিস্তান ও সাইনবোর্ড এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে উল্লিখিত তিনজনকে গ্রেপ্তার করে। এ সময় উগ্রবাদী বইও উদ্ধার করা হয়। 

গ্রেপ্তারকৃতদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে তারা নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন ‘আনসার আল ইসলাম’ এর সদস্য। আনসার আল ইসলামের নামে নতুন সদস্য সংগ্রহসহ কার্যক্রম পরিচালনা ব্যাহত হচ্ছে বিধায় তারা ‘শাহাদাত’ নামে নতুন একটি জঙ্গি সংগঠন তৈরি করে দাওয়াতী কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এই সংগঠনের সদস্যসংখ্যা শতাধিক। 

গ্রেফতারকৃত ইসমাইল আনসার আল ইসলামের রিক্রুটিং শাখার প্রধান এবং ‘শাহাদাত’ গ্রুপেরও প্রধান। ইসমাইলের বরাত দিয়ে সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব জানায়, গ্রুপটি সালাহউদ্দিন নামে এক ব্যক্তির মাধ্যমে পরিচালিত হচ্ছে; যিনি বর্তমানে বিদেশে অবস্থান করছেন। তাদের মূল উদ্দেশ্য বাংলাদেশে ইসলামী খেলাফত প্রতিষ্ঠা করা। তারা বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্ত বিশেষত চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, যশোর, সাতক্ষীরাসহ ঢাকার আশেপাশের বিভিন্ন এলাকাকে প্রশিক্ষণ প্রদানের জন্য নির্ধারণ করেছে বলেও র‌্যাব জানায়।  

জিজ্ঞাসাবাদে আরো জানা যায়, এ সংগঠনের অধিকাংশই মাদ্রাসার ছাত্র ও শিক্ষক। সাধারণ লেখাপড়ায় শিক্ষিত উগ্র মনোভাবাপন্ন লোকজনকে আকৃষ্ট করার জন্য দেশ বিরোধিতাকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করতো। এ সংগঠনে মাদ্রাসা শিক্ষক সদস্যগণ অত্যন্ত সু-কৌশলে মাদ্রাসা পড়ুয়া কোমলমতি ছাত্রদের এ বিষয়ে অনুপ্রাণিত করতো। এ জন্য তারা সংগঠনের সদস্যদের গোপনে শারীরিক প্রশিক্ষণ প্রদান করতো বলেও জানা যায়। 

মাকসুদ/তারা

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়