RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ২৮ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ১৩ ১৪২৭ ||  ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

সাইদুলের লাশ দাফন নিয়ে দুই পরিবারের দ্বন্দ্ব

মামুন খান || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:০১, ২৯ জুন ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
সাইদুলের লাশ দাফন নিয়ে দুই পরিবারের দ্বন্দ্ব

স্ত্রী আর দুই ছেলেকে নিয়ে মুন্সীগঞ্জে বাস করতেন ঝালমুড়ি বিক্রেতা মো. সাইদুল। সোমবার সকালে বুড়িগঙ্গা নদীতে লঞ্চডুবিতে মারা যান তিনি। খবর পেয়ে দুই ছেলে আজিম ও শামীমকে নিয়ে মিটফোর্ড হাসপাতালে আসেন তার স্ত্রী নূরজাহান। ঢাকায় বসবাসরত সাইদুলের বোন নাসিমা তার স্বামী আব্দুল আজিজ হাওলাদারকে নিয়ে সেখানে উপস্থিত হন। সাইদুলের লাশ কোথায় দাফন হবে, এ নিয়ে দুই পরিবারের সদস‌্যরা দফায় দফায় বাকবিতণ্ডায় জড়ান।

সাইদুলের বোন নাসিমা বলেন, ‘আমার ভাইয়ের লাশ বাপের বাড়ি ছাড়া অন্য কোথাও দাফন করতে দেব না। তারা জোর করে লাশ শ্বশুরবাড়িতে নিয়ে দাফন করতে চায়। আমার আব্বা এখনো জীবিত। তিনি সাইদুলের লাশ দেখতে চেয়েছেন। কিন্তু তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন আমার ভাইয়ের লাশ দিতে চাচ্ছে না। বাপের বাড়ি বড় না শ্বশুরবাড়ি বড়, আপনারাই বলেন।’

সাইদুলের শ্বশুরপক্ষের আত্মীয় আব্দুল মোতালেব বলেন, ‘শ্বশুরবাড়ির পাশেই বাস করত সাইদুল। শ্বশুরই তাদের দেখাশোনা করত। সাইদুল এখন নাই। তার স্ত্রী কেমন করে দুই ছেলেকে মানুষ করবে। ’

সাইদুলের দুলাভাই আব্দুল আজিজ বলেন, ‘সাইদুলের দুই ছেলেকে তার দাদা-চাচা, ফুফুরা দেখবে।’ প্রতি উত্তরে মোতালেব বলেন, ‘কতদিন দেখবে? এখন আর কেউ ওইরকম দেখে না। পরে যে ওদের না খেয়ে মরতে হবে। তাছাড়া তার ছেলেরাও চাচ্ছে, তার বাবাকে মামার বাড়িতে দাফন করতে।’ এভাবে কয়েক ঘণ্টা ধরে দুই পরিবারের মধ্যে ঝগড়া চলতে থাকে।

অবশেষে সাইদুলের শ্বশুরবাড়ির লোকজন বলেন, ‘সে অনেকদিন মুন্সীগঞ্জ বসবাস করেছে। অনেকে তাকে দেখতে চায়। লাশ দেখানোর পর তা নিয়ে যাবেন।’

রাত ১০টার দিকে আবার সাইদুলের দুলাভাই আব্দুল আজিজের সাথে কথা হয় এ প্রতিবেদকের। তিনি জানান, তারা পথে আছেন। লাশ নিয়ে শরীয়তপুরের জাজিরায় সাইদুলের বাবার বাড়িতে যাচ্ছেন। সেখানেই তাকে দাফন করা হবে।

সোমবার সকালে ময়ূর-২ লঞ্চের ধাক্কায় মর্নিং বার্ড নামের লঞ্চটি ডুবে যায়। এ ঘটনায় শনিবার রাত পর্যন্ত ৩২ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। অনেকেই নিখোঁজ আছেন।


ঢাকা/মামুন/রফিক

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়