ঢাকা     বুধবার   ২৪ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ১১ ১৪৩১

১৪ দলের বৈঠকেও সাড়া পেলেন না বাদশা

রাজশাহী প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৫০, ২৭ ডিসেম্বর ২০২৩   আপডেট: ১৬:৫৪, ২৭ ডিসেম্বর ২০২৩
১৪ দলের বৈঠকেও সাড়া পেলেন না বাদশা

ফজলে হোসেন বাদশা

রাজশাহী-২ (সদর) আসনে ১৪ দলীয় জোটের প্রার্থী হিসেবে নৌকা পেয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা। তবে তাঁকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শফিকুর রহমান বাদশা। রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ সভা করে তাঁকে সমর্থনও দিয়েছে।

এরই মধ্যে মহানগর আওয়ামী লীগের নেতারা কাঁচি প্রতীকের প্রার্থী শফিকুর রহমান বাদশার পক্ষে মাঠে নেমেছেন। ফলে নৌকা পেয়েও স্বস্তি পাচ্ছেন না ১৪ দলের প্রার্থী হয়ে পর পর তিন বার এ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়া ফজলে হোসেন বাদশা। সমস্যার সমাধানে তিনি সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) রাতে রাজশাহী ১৪ দলের সঙ্গে বসেন, কিন্তু সাড়া পাননি। এখন অনেকটাই নিঃসঙ্গ হয়ে পড়েছেন তিনি।

সোমবার রাত ৮টা থেকে সাড়ে ৯টা পর্যন্ত নগরীর রানীবাজারে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে রাজশাহী ১৪ দলের বৈঠক হয়। সভায় রাজশাহী ১৪ দলের সমন্বয়ক খায়রুজ্জামান লিটন এবং ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশাও উপস্থিত ছিলেন। রাজশাহীতে ১৪ দলের সবগুলো দলের কার্যক্রম নেই। তবে যে কয়টি দলের কার্যক্রম আছে, সেই দলগুলোর নেতারাও অংশ নিয়েছিলেন। এ আসনে দলীয় প্রতীক মশাল নিয়ে প্রার্থী হওয়া জোটের অন্যতম শরিক জাসদের মহানগরের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মাসুদ শিবলীও উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক সূত্র জানায়, রুদ্ধদ্বার ওই বৈঠকে নেতাদের তোপের মুখে পড়তে হয় ফজলে হোসেন বাদশাকে। আওয়ামী লীগ ও জাসদের নেতারা বলেন, ২০০৮ সাল থেকে পর পর তিন বার ফজলে হোসেন বাদশা জোটের প্রার্থী হয়ে এমপি হলেও কারও সঙ্গে সম্পর্ক রাখেননি। ভোটের আগে কাছে আসেন, ভোট শেষেই দূরে চলে যান। গত ১৫ বছর ধরে তারা এমনটিই দেখেছেন। এবারও নৌকা পেয়ে জোটনেতাদের না ডেকে একা একাই প্রতীক বরাদ্দ নিতে গিয়েছেন। রাজনৈতিক কর্মসূচি পালন করেছেন।

বৈঠকে ফজলে হোসেন বাদশা ও ওয়ার্কার্স পার্টির নেতারা অতীত ভুলে আবারও ঐক্যবদ্ধ হয়ে নির্বাচন শেষ করার অনুরোধ জানান। পাশাপাশি আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থীকে নির্বাচন থেকে সরানোর অনুরোধ করা হয়। তবে তাদের সঙ্গে একমত হয়নি অন্য দলগুলো।

বৈঠক শেষে জাসদের এমপি প্রার্থী ও দলের মহানগরের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মাসুদ শিবলী বলেন, সারা দেশে জোটের ৬ জন প্রার্থী নৌকা নিয়ে নির্বাচন করছেন। নির্বাচন উৎসবমুখর করতে সবখানেই স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছেন। জোটের অন্য দলেরও প্রার্থী আছেন। অন্য ৫টি আসনে এভাবে নির্বাচন হলে রাজশাহীতেও একইভাবে হবে।

মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল বলেন, ‘বৈঠকে আমাদের অনুরোধ করা হয়, যেন স্বতন্ত্র প্রার্থীকে নির্বাচন থেকে সরিয়ে আনি। কিন্তু তিনি তো স্বতন্ত্র প্রার্থী, আমরা তার দায়িত্ব নেব কীভাবে? এটা সম্ভব নয়। সেই কারণে সভায় কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। জোটসঙ্গীদের অন্য ৫টি আসনের চিত্র দেখে পরবর্তীতে আবার সভা হতে পারে। এখন আপাতত সভা মূলতবি করা হয়েছে।’

মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামাণিক দেবু বলেন, ‘রাতের সভার বিষয়ে ১৪ দলের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক আমির হোসেন আমুকে জানানো হয়েছে। আমরা আশা করছি, দু’-একদিনের মধ্যে আবারও সভা হবে। তখন সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে নৌকার পক্ষে মাঠে নামবেন।’
 

কেয়া/বকুল 

সম্পর্কিত বিষয়:

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়