ঢাকা     শুক্রবার   ১৯ জুলাই ২০২৪ ||  শ্রাবণ ৪ ১৪৩১

খালেদা জিয়ার কিছু হলে প্রধানমন্ত্রীর বেঁচে থাকা কঠিন হয়ে যাবে: গয়েশ্বর 

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:৩৭, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩   আপডেট: ২০:৩৮, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩
খালেদা জিয়ার কিছু হলে প্রধানমন্ত্রীর বেঁচে থাকা কঠিন হয়ে যাবে: গয়েশ্বর 

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, ডাক্তাররা বারবার বলছেন বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ভালো না। ওনাকে মুক্তি দিয়ে সুচিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানো দরকার। বারবার বলার পরও সরকার শুনছে না। সঠিক চিকিৎসা না পাওয়ার কারণে খালদা জিয়ার যদি খারাপ কিছু হয়, তাহলে শেখ হাসিনার বেঁচে থাকাও কঠিন হয়ে যাবে। 

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, বিদেশেও স্যাংশন দেওয়া আছে, কোথায় পালাবেন আপনি?

বৃহস্পতিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর নয়াপল্টনে একটি রেস্তোরাঁয় জিয়া মঞ্চের ৩০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আব্দুস সালাম।

গয়েশ্বর বলেন, প্রধানমন্ত্রী অনেক খেলেছেন, এবার তিনি ধরা খেয়েছেন। তার একদিকে পশ্চিমারা, আরেকদিকে ভারত। ভারত প্রীতির কারণে হারাতে হবে পশ্চিমাদের। অন্যদিকে, আমেরিকাকে খুশি রাখলে হারাতে হবে ভারতকে। খুব বেশিই বিপদে পড়েছেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলছেন, ভারত ও বাংলাদেশের সম্পর্ক স্বামী-স্ত্রীর মতো। তাহলে চীনের সাথে কি সম্পর্ক পরকীয়ার? প্রশ্ন রাখেন গয়েশ্বর।

তিনি বলেন, বিএনপি গণতন্ত্রে বিশ্বাস করলেও আওয়ামী লীগ করে না। মূলত নিম্ন মধ্যবিত্তরা আওয়ামী লীগ করে। যার কারণে তাদের ক্ষুধা বেশি। এবার তারা এত বেশি খেয়েছে যে তাদের পেটের অবস্থা কাহিল। শুনলাম কিছু ব্যবসায়ী আমোদ ফূর্তি ও কেনাকাটার জন্য আমেরিকা সফরকারীদের টাকা দিয়েছে। কেনার জন্য নাকি কিছু পায়নি।

দেশের দুর্নীতি, গণতন্ত্রহীনতা, ভোট চুরির কারণে আমেরিকা জনগণের পক্ষে দাঁড়ালেও তারা আমাদের ক্ষমতায় বসাবে না বলেও মন্তব্য করেন গয়েশ্বর চন্দ্র। তিনি বলেন, তারা চায় তাদের মতো যেনো সবার অধিকার সকলে ফিরে পায়। ক্ষমতায় আসার জন্য আমাদেরকেই কাজ করতে হবে। তাই জনগণকে সাথে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল মিন্টু বলেন, জিয়াউর রহমান শুধু দেশের স্বাধীনতা ঘোষণাই দেননি, যুদ্ধও করেছেন। বাকিরা সব পালিয়েছেন। আজ ওরা কৃতিত্ব নেন। স্বাধীনতার পর আওয়ামী লীগের চিরাচরিত চরিত্র ফুটে ওঠেছে। জিয়া শুধু দেশ স্বাধীনতায় ভূমিকা রাখেননি, পরে এই আওয়ামী লীগ কর্তৃক লুণ্ঠিত গণতন্ত্র ফিরিয়ে দিয়ে দেশে বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রবর্তন করেছেন। বিএনপি সবসময় দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে দেওয়ার আন্দোলনে জয়লাভ করে, এবারও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করে জনগণের কাছে ফিরিয়ে দিবে ইনশাল্লাহ।

এ সময় আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল মিন্টু, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক হারুনুর রশিদ, জিয়া মঞ্চের আব্দুল হামিদ, অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান, আব্দুল আলীম, প্রচার দলের সভাপতি মাহফুজ কবির মুক্তা প্রমুখ।

/মেয়া/এসবি/

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়