Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ১৪ জুন ২০২১ ||  জ্যৈষ্ঠ ৩১ ১৪২৮ ||  ০২ জিলক্বদ ১৪৪২

ছেলেদের পছন্দ সুতি পাঞ্জাবি, মেয়েদের থ্রি পিস বারিশ

নুরুজ্জামান তানিম || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:২২, ১৩ মে ২০২১   আপডেট: ২০:২৮, ১৩ মে ২০২১
ছেলেদের পছন্দ সুতি পাঞ্জাবি, মেয়েদের থ্রি পিস বারিশ

রাজধানীতে ঈদের কেনাকাটা

রাত পোহালেই শুরু হবে ঈদ আনন্দ। ঈদকে কেন্দ্র করে শেষ মুহূর্তে পোশাক কেনাকাটায় রাজধানীর মানুষগুলো ভিড় জমিয়েছেন ঈদ বাজারে। ক্রেতাদের পদচারণায় মুখর হয়ে উঠেছে পোশাকের  বিপণিবিতানগুলো। ঈদে এ দিনটিতে কোন ডিজাইনের জামা পরবেন তা ঠিক করতে বিপণি বিতানগুলোতে ব্যস্ত ছেলে মেয়েরা।

এবার ঈদের কেনাকাটায় ছেলেদের সবচেয়ে বেশি পছন্দের তালিকায় রয়েছে সুতি পাঞ্জাবি। সেইসঙ্গে থাকছে শার্ট, প্যান্ট ও জুতা। আর মেয়েদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে থ্রি পিস বারিশ ও বিভিন্ন ধরনের শাড়ি।

এছাড়া ছোটদের পছন্দের তালিকায় থ্রিপিস ও ফ্রক। আর জুটিদের ড্রেসের মধ্যে একই রঙ ও বাহারি ডিজাইনের পাঞ্জাবি-পায়জামা এবং থ্রিপিস-শাড়ি।

বৃহস্পতিবার (১৩ মে) এছাড়া রাজধানীর খিলগাঁও তালতলা সুপার মার্কেট, মৌচাক মার্কেট, আনারকলি সুপার মার্কেট, ফরচুন শপিংমল, কনকর্ড টুইন টাওয়ার, আজিজ সুপার মার্কেটসহ বিভিন্ন শপিং মল ঘুরে এমন তথ্য মিলেছে।

ঈদের আগের দিন  বিপণি বিতানগুলোতে সকাল থেকে ক্রেতাদের উপস্থিত কম লক্ষ্য করা গেছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ক্রেতাদের ভিড় বেড়েছে। ভিড়ের কারণে ক্রেতারা সারি বেঁধে মার্কেটে ঢুকছেন। ভিড় ঠেলে সামনে এগোচ্ছেন। দীর্ঘ অপেক্ষার পর বিক্রয়কর্মীর দৃষ্টি আকর্ষণে সক্ষম হচ্ছেন। তেমন দরদাম না করেই একটু বাড়তি দামেই পছন্দের পোশাকটি কিনছেন।  ক্রেতাদের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ক্ষেত্রে চরম উদাসীনতা লক্ষ্য করা গেছে।

বিক্রেতারা বলছেন, ঈদের আগের দিনে ক্রেতাদের আনাগোনা বাড়েছে। সার্বিকভাবে গত বছরের তুলনায় বেচা-কেনার পরিস্থিতি ভালো। তবে প্রথমদিকে লোকসানের যে শঙ্কা ছিল, তা কিছুটা দূর হয়েছে। খুব বেশি লাভ না হলেও খরচ উঠে আসবে বলে ধারণা করছেন ব্যবসায়ীরা।

এবারের ঈদে বিপণিবিতানগুলোতে মান ভেদে ছেলেদের পাঞ্জাবি ৬০০ থেকে ৪ হাজার টাকায়, শেরওয়ানী ৪ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকায়, শার্ট ৩৫০ থেকে ৬০০ টাকায়, জিনস প্যান্ট ৪০০ থেকে ৮০০ টাকায়, টি-শার্ট ২৫০ থেকে ৫০০ টাকায়, বড়দের জুতা ১ হাজার থেকে ৪ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

মেয়েদের থ্রি-পিস  ৪৫০ থেকে ৩ হাজার টাকায়, শাড়ি ৪৫০ থেকে ৫ টাকায়। তবে এবার থ্রি-পিসের মধ্যে বেশি বিক্রি হচ্ছে বারিশ। জামায় ভারি নকশা থাকায় এ মডেলের থ্রিপিস কিনতে বেশি আগ্রহ থাকছে নারী ক্রেতাদের। বারিশ থ্রিপিস মান ভেদে বিক্রি হচ্ছে ২ হাজার থেকে সাড়ে ৩ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বাচ্চদের থ্রি-কোয়ার্টার জিনস প্যান্ট ৩০০ খেবে ৫০০ টাকায়, গেঞ্জির সেট ২০০ থেকে ৫০০ টাকায়, ফ্রক ও টপস ২৫০ থেকে ৫০০ টাকায়, শাড়ি ৫০০ থেকে ১৫০০ টাকায় এবং ছেলে ও মেয়ে শিশুদের জন্য হাতাকাটা গেঞ্জি ২০০ থেকে ৪০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

মৌচাক মার্কেটের নবোঢ়া ফ্যাশনের বিক্রেতা মো ইসমাইল বলেন, গত কয়েকদিন ধরে ক্রেতা ভালোই আসছে। আশা করি চাঁদ রাত পর্যন্ত ক্রেতাদের এমন সমাগম থাকবে। তবে গতবারে তুলনায় খুব ভালো বলা যায় না। এবার মেয়েদের আগ্রহের তালিকায় রয়েছে বারিশ থ্রি পিস। তাই বিক্রিও বেশি বিক্রি হচ্ছে।

খিলগাঁও তালতলা সুপার মার্কেটের সুমনা ফ্যাশনের বিক্রেতা মো. হাসান বলেন, গত বছর ঈদের বিক্রি খুব খারাপ ছিল। প্রায় সব ব্যবসায়ী লোকসানে ছিল। এবার ভালো বিক্রি হবে এই আশা করছি। কয়েকদিন ধরে কিছু ক্রেতা আসছে। চাঁদ রাত পর্যন্ত এই ধারা অব্যাহত থাকলে হয়তো খরচের টাকা উঠে আসতে পারে।

আনারকলি মার্কেটে ঘুরতে আসা জেসমিন আক্তার বলেন, ছেলে মেয়েদের জন্য ঈদ বাজার করতে এসেছি। গত বছর কারও জন্য কিছু কেনা হয়নি। এবার কিছু কিনে না দিলে হয় না। তাই ছেলের জন্য পাঞ্জাবি ও মেয়ের জন্য থ্রি পিস কিনেছি।

ঢাকা/এনটি/এমএম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়