ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ মাঘ ১৪২৬, ২১ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

তাহলে কি পাকিস্তান সফর করবে বাংলাদেশ?

ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১২-০৯ ১০:১৭:৪১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১২-০৯ ১১:১৬:১১ পিএম

পাকিস্তানের নিরাপত্তা নিয়ে এই মুহূর্তে অভিযোগ নেই বিসিবির। জানিয়েছেন বিসিবির পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস।

আইসিসির ফিউচার ট্যুর প্লান (এফটিপি) অনুযায়ী ২০২০ সালে পাকিস্তান সফরে যাওয়ার কথা বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের। সফরে দুটি টেস্ট ও তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলার কথা রয়েছে বাংলাদেশের।

বাংলাদেশ সফর করবে কিনা তা এখনও নিশ্চিত নয়। সরকার থেকে পাকিস্তান সফরের অনুমতি পাওয়া যাবে কিনা তা এখনও নিশ্চিত নয়। সরকারের থেকে সবুজ সংকেত পেলে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) পাকিস্তানে দল পাঠাবে। নয়তো সিরিজ নিয়ে ভিন্ন কিছু ভাবতে হবে দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ডকে।

তবে পাকিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতি ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে এই মুহূর্তে কোনো অভিযোগ নেই বিসিবির।  কিছুদিন আগে মেয়েদের জাতীয় দল ও বয়সভিত্তিক দল সফর করেছিল পাকিস্তানে।  খেলোয়াড়দের পাকিস্তান সফর এবং নিরাপত্তা প্রতিনিধি দলের রিপোর্ট অনুযায়ী পাকিস্তানকে নিয়ে ভাবনা পাল্টেছে বিসিবির।

‘আমরা এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেইনি। পাকিস্তানে সিরিজ হওয়ার কথা আমরা আগেই জানি। আমাদের মেয়েদের ও জুনিয়র দল গিয়েছিল সেখানে।  নিরাপত্তা নিয়ে এই মুহূর্তে আমাদের কোনো অভিযোগ নেই। ’ – বলেছেন জালাল ইউনুস।

বোর্ডের ইতিবাচক মনোভাব থাকলেও জালাল ইউনুস সাফ জানিয়েছেন সরকারের সিদ্ধান্তই হবে শেষ সিদ্ধান্ত,‘নিরাপত্তা প্রতিনিধি দল সফর করেছেন কয়েক মাস আগে। একেক সময় একেক রকম ‘‘থ্রেট লেভেল’’ থাকে। আমরা আবার নিরাপত্তা পর্যবেক্ষণ করবো। এরপর সরকার সবুজ সংকেত দিলে আমরা চিন্তা ভাবনা করবো যাবো কি যাবো না। ’

‘বাংলাদেশ পাকিস্তান আসবে’ এমনটা ভেবে সিরিজ নিয়ে পরিকল্পনা সাজাচ্ছে পিসিবি। দুই টেস্টের একটি গোলাপি বলে খেলতে চায় পাকিস্তান। করাচি স্টেডিয়ামে দিবারাত্রি টেস্ট খেলার প্রস্তাব বিসিবিকে পাঠিয়েছে পাকিস্তান।  সফর চূড়ান্ত হলে পিসিবির প্রস্তাব বিবেচনা করবে বিসিবি,‘এই মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না। গোলাপি বলেও টেস্ট নিয়ে আলোচনা হয়নি। সিরিজ চূড়ান্ত হলে আমরা চিন্তা করবো। ’

২০০৯ সালে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের উপর সন্ত্রাসী হামলার পর সবগুলো দলই পাকিস্তান সফর বয়কট করে। এরপর টানা ৬ বছর পাকিস্তানে কোনো ধরনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট হয়নি। পাকিস্তান তাদের ‘হোম ম্যাচ’ খেলেছে সংযুক্ত আরব আমিরাতে। দীর্ঘ দশ পর এ বছরের ডিসেম্বরে পাকিস্তান প্রথমবারের মতো টেস্ট ম্যাচ আয়োজন করবে। শ্রীলংকার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়েই পাকিস্তানে ফিরছে টেস্ট ক্রিকেট। দুটি টেস্ট ম্যাচের সূচি ও ভেন্যু চূড়ান্ত করেছে পিসিবি। রাওয়ালপিন্ডিতে ১১ ডিসেম্বর শুরু হবে প্রথম টেস্ট। ১৯ ডিসেম্বর করাচিতে হবে দ্বিতীয় টেস্ট।

শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল পাকিস্তানে টেস্ট খেলতে যাওয়ায় নিঃসন্দেহে বাংলাদেশের ওপরও পাকিস্তানে যাওয়ার চাপ বাড়বে।  শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের পাকিস্তান সফরকে ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখছে বোর্ড। বোর্ড মনে করছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করতে পারবে বিসিবি।

‘শ্রীলঙ্কা খেললে অবশ্যই তাদের (পাকিস্তানের) প্লাস পয়েন্ট।  পুরো সিরিজটা যদি দূর্ঘটনা ছাড়া শেষ করতে পারে তারা তাহলে তাদের জন্য প্লাস পয়েন্ট। আমাদেরও প্লাস পয়েন্ট। আমরা অনেক কিছু দেখার সুযোগ পাবো। ’ – বলেছেন জালাল ইউনুস।

বোর্ড শীর্ষ পরিচালক জানিয়েছেন ডিসেম্বরেই পাকিস্তান সফরের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসবে।


ঢাকা/ইয়াসিন