ঢাকা     সোমবার   ১৭ জানুয়ারি ২০২২ ||  মাঘ ৩ ১৪২৮ ||  ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

ইন্ডিপেন্ডেন্স কাপেও ওয়ালটন চ্যাম্পিয়ন

ক্রীড়া প্রতিবেদক, সিলেট থেকে || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৮:৫৬, ১৫ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৬:২৮, ১৫ জানুয়ারি ২০২২

ইন্ডিপেন্ডেন্স কাপের ফাইনালে বিসিবি সাউথ জোনকে ৬ উইকেটে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন। শনিবার (১৫ জানুয়ারি) সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সাউথ জোন আগে ব্যাট করে ১৬৪ রানের টার্গেট দেয় ওয়ালটনকে। জবাবে ৪২.৩ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ওয়ালটন। এর আগে সাউথ জোনকে হারিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন।

বিসিবি সাউথ জোন: ১৬৩/১০ (৪৮.৫ ওভার)
ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন: ১৬৪/৪ (৪২.৩ ওভারে; আল-আমিন ৫৩* ও মোসাদ্দেক ৩৩*)।
ফল: ওয়ালটন ৬ উইকেটে জয়ী।

সৈকত- আল আমিনের ব্যাটে জয়ের পথে ওয়ালটন

মাত্র ১১ রানের ব্যবধানে ৪ উইকেট হারানোর পর দলের হাল ধরেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও আল আমিন। পঞ্চম উইকেটে তারা দুজন ইতোমধ্যে ১০৫ বলে ৬২ রানের জুটি গড়েছেন। তাদের দুজনের ব্যাটে ভর করে জয়ের পথে এগিয়ে যাচ্ছে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন। জিততে ৯০ বলে প্রয়োজন ২৬ রান।

সৈকত- আল আমিনের ব্যাটে শতরান পেরিয়ে ওয়ালটন

৭৬ রানেই ৪ উইকেট হারানোর পর ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের হাল ধরেন অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও আল আমিন। পঞ্চম উইকেট জুটিতে তারা দুজন ইতোমধ্যে ৪০ রান তুলেছেন। তাতে দলীয় সংগ্রহে বেড়ে হয়েছে ১২৪। জিততে ১১২ বলে ৪০ রান দরকার।

ভালো শুরুর পর ওয়ালটনের ছন্দপতন

১৬৪ রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা দারুণ হয় ওয়ালটনের। বিনা উইকেটে তোলে ৬৫ রান। এরপর ছন্দপতন ঘটে। ৬৫ থেকে ৭৬ রানে যেতে হারায় ৪টি উইকেট। সৌম্য, মাজিদের পরে আউট হন মোহাম্মদ মিঠুন ও মিজানুর রহমান। ইন্ডিপেন্ডেন্স কাপে দারুণ খেলা মিঠুন দলীয় ৭১ রানে ব্যক্তিগত ৪ রানে নাসুমের দ্বিতীয় শিকার হন। ৭৬ রানের মাথায় ভালো খেলতে থাকা মাজিদকে তৃতীয় শিকারে পরিণত করেন নাসুম। মাজিদ ৫ চার ও ২ ছক্কায় ৩৯ রান করে যান।

ফিরলেন সৌম্য ও মাজিদ

ওয়ালটনকে ভালো সূচনা এনে দিয়ে আউট হয়েছেন সৌম্য সরকার। দলীয় ৬৫ রানের মাথায় নাসুম আহমেদের বলে লং অফে পিনাক ঘোষের হাতে ধরা পড়েন সৌম্য। ২৫ বলে ৪ চারে ২১ রান করে যান তিনি। ৬৬ রানের মাথায় আউট হন আব্দুল মাজিদও। তাকে ফেরান মেহেদী হাসান। তৌহিদ হৃদয়ের হাতে দ্বিতীয় স্লিপে ক্যাচ দেন তিনি। ৬ বল খেলে ১ রান করেন মাজিদ।

রান তাড়া করতে নেমে ওয়ালটনের শুভ সূচনা

রান তাড়া করতে নেমে শুভ সূচনা করেছে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন। ১০ ওভারে কোনো উইকেট না ৪৮ রান তুলেছে তারা। সৌম্য সরকার ২০ ও মিজানুর রহমান ২১ রান নিয়ে ব্যাট করছেন।

বিসিবি সাউথ জোন: ১৬৩/১০ (৪৮.৫ ওভার)

অপু-সৌম্যদের দারুণ বোলিংয়ে ৪৮.৫ ওভারে ১৬৩ রানে অলআউট হয় সাউথ। সাউথের হয়ে সর্বোচ্চ ৩৫ রান করেন পিনাক। ৩১ রান আসে নাহিদুল ইসলামের ব্যাট থেকে। এ ছাড়া কেউ বিশের ঘর পার হতে পারেননি। ওয়ালটন সেন্ট্রালের ৫ বোলার, সৈকত, অপু, সৌম্য, হাসান মুরাদ ও মৃত্যুঞ্জয় নেন দুটি করে উইকেট। একমাত্র রবিউল হক ছাড়া সকলে উইকেটের দেখা পান। আবু হায়দার রনির পরিবর্তে একাদাশে জায়গা পেয়েছিলেন রবিউল।

দারুণ বোলিংয়ে সাউথকে চাপে রেখেছে ওয়ালটন সেন্ট্রাল

অপুর পর মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত-হাসান মুরাদের ঘূর্ণিতে বিসিবি সাউথ জোনকে চাপে রেখেছে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন। দুজনে সাজঘরে ফেরান তিন ব্যাটসম্যানকে। অমিত হাসান (২৯) ও জাকির হাসান (১৪) ফেরেন সৈকতের বলে পরাস্ত হয়ে। আর মুরাদ ফেরান মেহেদী হাসানকে (২)।

অপুর ঘূর্ণিতে ঘুরে দাঁড়ালো ওয়ালটন 

ব্যাটিং করতে নেমে শুরু থেকে দারুণ খেলতে থাকে বিসিবি সাউথ জোনের দুই ওপেনার এনামুল হক বিজয় ও পিনাক ঘোষ। উদ্বোধনী জুটিতে দুজন দলীয় হাফ সেঞ্চুরিও পূর্ণ করে ফেলে। তখনি ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনকে স্বস্তি এনে দেন নাজমুল ইসলাম অপু। বিজয়কে এলবিডব্লিউ করে পাঠান সাজঘরে। তার ব্যাট থেকে আসে ২০ন রান। আরেক ওপেনার পিনাকের ব্যাট চওড়া হচ্ছিল ধীরে ধীরে। তাকে থামিয়ে দেন সৌম্য সরকার। পিনাকের ব্যাট থেকে আসে ৩৫ রান। পিনাকের আউটের পর ক্রিজে এসে নতুন ব্যাটসম্যান তৌহিদ হৃদয় রানের খাতাই খুলতে পারেননি। তাকে ফেরান অপু।

ওয়ালটন সেন্ট্রালের একাদশে মিঠুন 

লিগ পর্বের শেষ দুই ম্যাচে একাদশে ছিলেন না মোহাম্মদ মিঠুন। ফাইনালের মহারণে তিনি ফিরেছেন একাদশে। 

একাদশ:মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত (অধিনায়ক), আবদুল মজিদ, আল আমীন, হাসান মুরাদ, জাকের আলী অনিক, মোহাম্মদ মিঠুন, মিজানুর রহমান, মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী, নাজমুল ইসলাম অপু, রবিউল হক ও সৌম্য সরকার। 

সাউথ জোন একাদশ: জাকির হাসান (অধিনায়ক), অমিত হাসান, এনামুল হক বিজয়, ফরহাদ রেজা, কামরুল ইসলাম রাব্বী, মেহেদী হাসান, মোস্তাফিজুর রহমান, নাহিদুল ইসলাম, নাসুম আহমেদ, পিনাক ঘোষ ও তৌহিদ হৃদয়। 

লাইভ স্কোর দেখুন....

ইন্ডিপেন্ডেন্স কাপেও চ্যাম্পিয়ন হতে চায় ওয়ালটন 

বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) চার দিনের আসরে বিসিবি সাউথ জোনকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন। একই দলের বিপক্ষে এবার ইন্ডিপেন্ডেন্স কাপে খেলতে নেমেছে চার দিনের আসরে চ্যাম্পিয়ন দলটি। তাদের হারিয়ে ৫০ ওভারের টুর্নামেন্টের শিরোপাও ঘরে তুলতে চায় মোসাদ্দেক হোসেন বাহিনী। 

চারদিনের আসর ও ইন্ডিপেন্ডেন্স কাপের ফাইনালে প্রতিপক্ষ একই দল হলেও এতে কোনো চাপ মনে করছেন না ওয়ালটন সেন্ট্রালের অধিনায়ক মোসাদ্দেক। ‘এটা আমি আলাদা চাপ মনে করছি না। গত কালকের ম্যাচ থেকে আমরা শিক্ষা নিয়েছি, যা পরবর্তী ম্যাচে খুবই কাজে দিবে।’চারদিনের আসর ও ইন্ডিপেন্ডেন্স কাপের ফাইনালে প্রতিপক্ষ একই দল হলেও এতে কোনো চাপ মনে করছেন না ওয়ালটন সেন্ট্রালের অধিনায়ক মোসাদ্দেক। ‘এটা আমি আলাদা চাপ মনে করছি না। গত কালকের ম্যাচ থেকে আমরা শিক্ষা নিয়েছি, যা পরবর্তী ম্যাচে খুবই কাজে দিবে।’

টুর্নামেন্টে দুই জয়ে চার পয়েন্ট নিয়ে ওয়ালটন সেন্ট্রাল-বিসিবি সাউথ ফাইনাল নিশ্চিত করে। টানা দুই ম্যাচে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জিতলেও শেষ ম্যাচে হেরে যায় বিসিবি সাউথের কাছে। ফাইনালের লড়াইয়ে এই ম্যাচ থেকে ভুলগুলো শুধরে নামতে চান মোসাদ্দেক-সৌম্যরা।

এদিকে বিসিবি সাউথের ম্যানেজার জামাল বাবু জানিয়েছেন তারা ওয়ালটন সেন্ট্রালকে হারিয়ে প্রতিশোধ নিতে চান, ‘আমরা চারদিনের ম্যাচে তাদের বিপক্ষে হেরেছি। এবার আমরা প্রস্তুতি নিয়ে নেমেছি। শেষ ম্যাচে তাদের হারিয়েছি। আমাদের মোস্তাফিজের মতো বোলার আছে। আশা করি চ্যাম্পিয়ন হবো।’

সিলেট/রিয়াদ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়