ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৪ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ১০ ১৪২৯ ||  ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

করোনা মুক্তির পর ছন্দে ফেরার লড়াইয়ে আগ্রাসী সোহান

ক্রীড়া প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম থেকে: || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৪২, ২৭ জানুয়ারি ২০২২  
করোনা মুক্তির পর ছন্দে ফেরার লড়াইয়ে আগ্রাসী সোহান

নিউ জিল্যান্ড থেকে ফিরে ফুরফুরে থাকার কথা ছিল নুরুল হাসান সোহানের। কেননা দেশটি থেকে প্রথম জয়ের সুখস্মৃতি নিয়ে ফিরেছিল বাংলাদেশ, তাও আবার ক্রিকেটের অভিজাত সংস্করণ টেস্টে। সেই দলের সদস্য ছিলেন তিনি। অথচ দেশে ফিরেই করোনায় আক্রান্ত হন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান।

সংক্রামক এই ভাইরাসে আক্রান্তের পর আইসোলেশনে থাকতে হয়েছে সোহানকে। যার কারণে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) তার দল ফরচুন বরিশালের হয়ে প্রথম ম্যাচে খেলা হয়নি তার। যদিও অল্প সময়ে ভাইরাস থেকে মুক্তি মিলেছে সোহানের, তবে এখনো পুরোপুরি ছন্দে ফেরা হয়নি ডান হাতি এই ব্যাটসম্যানের। 

বিপিএলে চলতি আসরে দুই ম্যাচে বরিশালের হয়ে মাঠে নেমেছিলেন সোহান। প্রথম ম্যাচে মাত্র ১ রানের পর দ্বিতীয় ম্যাচে করেন ১৭ রান। থিতু হয়েও বেশিদূর যেতে পারেননি তিনি। এর প্রধান কারণ করোনার ধকল, যার কারণে দ্রুত ছন্দে ফেরার লক্ষ্য নিয়ে অনুশীলন করে যাচ্ছেন সোহান।

বিপিএলে চট্টগ্রাম পর্বে তিন ম্যাচ খেলবে ফরচুন বরিশাল। এই তিন ম্যাচেই উইকেটের পেছনে বা মিডল অর্ডারে ভরসা হতে পারেন সোহান৷ যার কারণে চট্টগ্রাম পর্বের অনুশীলনে বেশ আগ্রাসী মেজাজে দেখা মিলেছে তার। অনুশীলনের শুরু থেকেই নেটে ঝড়ো শট খেলতে দেখা গেছে সোহানকে। পেসার শফিকুল ইসলাম কিংবা স্পিনার তাইজুল ইসলাম, জ্যাক লিনটট কাউকে সমীহ করেননি তিনি৷ একের পর এক শট আছড়ে পড়েছে গ্যালারিতে। 

ঢাকা পর্বে রান না পাওয়ায় সোহানের এমন আগ্রাসী ব্যাটিং? জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আসলে সত্যিকার অর্থে কোভিড হওয়ার পর আমার কাছে মনে হয় ছন্দে ফেরাটা আমার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। ওটাই আসলে চেষ্টা করছি। আমার কাছে মনে হয় যে দল হিসেবে আমাদের খেলাটা গুরুত্বপূর্ণ। আমার মনে হয় যে যেহেতু লেট-মিডল অর্ডারে (নীচের দিকে) আমি ব্যাটিং করি, তো আমার ছন্দ আসাটা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ দলের জন্য।’

ব্যাটিং নিয়ে নিজের প্রত্যাশার কথা জানাতে গিয়ে সোহান বললেন দলের প্রয়োজনীয়তার কথা৷ তিনি বলেন, ‘যেকোন দলেই যখন খেলি, আমার কাছে সব থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ থাকে দলের জয়ে অবদান রাখা। কারণ আমার কাছে ১০০ বা ৫০ রান গুরুত্বপূর্ণ না। আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ হলো দলের জন্য ১০-২০ রান বা পেছন থেকে কিপিং করে রান বাঁচিয়ে করে যতটুকু অবদান রাখা যায়।’

চট্টগ্রাম/রিয়াদ  

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়