ঢাকা     রোববার   ২১ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৮ ১৪৩১

নারিন-রাসেল তাণ্ডবে কলকাতার রান পাহাড়

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:০৩, ৩ এপ্রিল ২০২৪   আপডেট: ২২:১৩, ৩ এপ্রিল ২০২৪
নারিন-রাসেল তাণ্ডবে কলকাতার রান পাহাড়

টি-টোয়েন্টির দুনিয়ায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলোয়াড়দের কেন এতো চাহিদা সেটা আরেকবার বুঝিয়ে দিলেন সুনীল নারিন। তার সঙ্গে নামের অর্থ আরেকবার প্রমাণ করলেন আন্দ্রে রাসেল। দুই ক্যারিবিয়ানের তাণ্ডবে আইপিএলে দিল্লির বিপক্ষে ম্যাচে রান পাহাড়ে চড়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। ২০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৭২ রান তুলেছে তারা।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ইনিংসের শুরু থেকেই দিল্লির বোলারদের উপর চড়াও হন কলকাতা নাইট রাইডার্সের দুই ওপেনার সুনীল নারিন ও ফিল সল্ট। প্রথম দুই ওভারে আসে ১৭ রান। তৃতীয় ওভারে আরেকটু চড়াও হয়ে খেলা শুরু করেন নারিন। তাতে এই ওভারে নারিন এবং সল্ট মিলে খলিলকে ৩ চার মেরে তুলে নেন ১৫ রান।

ব্যাট হাতে ক্যারিবীয়রা কতোটা নির্মম হতে পারে, সেটা পরক্ষণেই আরেকবার টের পাইয়ে দেন নারিন। সেই সঙ্গে সল্ট। তাতে চতুর্থ ওভারেই দলীয় পঞ্চাশের ঘর পার হয়ে যায় কলকাতা। ইশান্ত শর্মা চতুর্থ ওভারে বল করতে এলে, তাকে পিটিয়ে ছাতু করেন নারিন। এক ওভারে ৩ ছয় ও ২ চারে তুলেন ২৬ রান।

এই ঝড় খানিক সময়ের জন্য থামে ফিল সল্ট ১২ বলে ১৮ রান করে আউট হলে। পঞ্চম ওভারের দ্বিতীয় বলে সল্টের ক্যাচ ফেলে দিয়েছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার। ২ রান হয় ওই বলে। কিন্তু পরের বলেই এনরিখ নরকিয়ার গতিতে পরাস্ত হয়ে স্টাবসের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন সল্ট। পরিবর্তে ক্রিজে আসেন অংক্রিশ রঘুবংশী।

রঘুবংশী নেমেই পরপর দু'টি চার হাঁকান নরকিয়াকে। এরপর আবার ঝড় শুরু করেন নারিন। ঝড় তুলে ২১ বলে হাফসেঞ্চুরি করে ফেললেন। তার এই ইনিংসে রয়েছে ৪টি ছক্কা এবং ৬টি চার। পাওয়ার প্লে-তে নাইটদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১ উইকেট হারিয়ে ৮৮। এই ধারা বজায় রেখে ম্যাচের অষ্টম ওভারেই ১০০ পার হয়ে যায় কলকাতা। 

নারিন আর রঘুর ঝড় এতোই কঠিন ছিল যে ১০ ওভারেই কলকাতার সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৩৫। সেখান থেকে পরের ওভারেই ১৫০ এর ঘরে পা রাখে শাহরুখ খানের মালিকানাধীন দলটি। নারিনের তাণ্ডব দেখে মনে হচ্ছিল সেঞ্চুরি করেই উঠবেন। তবে সেটা হলো না। ১৫ রান দূরে থাকতে তাকে থামান নরকিয়া। ৩৯ বলে ৮৫ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন এই ক্যারিবিয়ান।

এরপর ক্রিজে আসেন আর এক ক্যারিবিয়ান তারকা আন্দ্রে রাসেল। এর মধ্যেই হাফ সেঞ্চুরি করে ফেলেন রঘুবংশী। ২৫ বলে অর্ধশত রান করে ফেলেন তরুণ ব্যাটার। শেষমেশ ২৭ বলে ৫৪ করে সাজঘরে ফিরেন রঘুবংশী। তার ইনিংসে ছিল ৫টি চার ও ৩টি ছক্কার মার। উইকেট পড়লেও রাসেল তাণ্ডব বজায় রাখেন। তাতে ১৬তম ওভারে কলকাতাও পার করে ফেলে ২০০ রানের ঘর।

বাকি পথটা দিল্লির বোলারদের উপর টর্নেডো চালান রাসেল ও রিঙ্কু সিং। রাসেল মাত্র ১৯ বলে ৪টি চার ও ৩টি ছক্কার মারে করেন ৪১ রান। রিঙ্কু ৩ ছক্কা ও ১ চারের মারে করেন ২৬ রান। আর তাতেই আইপিএলের ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ স্কোর গড়ে কলকাতা।

ঢাকা/বিজয়

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়