ঢাকা     শনিবার   ১৩ এপ্রিল ২০২৪ ||  চৈত্র ৩০ ১৪৩০

মায়াকে আবারও শোকজ

চাঁদপুর প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৩০, ১৭ ডিসেম্বর ২০২৩  
মায়াকে আবারও শোকজ

মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া

চাঁদপুর-২ (মতলব দক্ষিণ-উত্তর) আসনের আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়াকে আবারও কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দিয়েছে নির্বাচন অনুসন্ধান কমিটি। আগামী ১৯ ডিসেম্বর সকাল ১১টায় যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ আদালতে স্বশরীরে হাজির হয়ে বা উপযুক্ত প্রতিনিধির মাধ্যমে লিখিতভাবে ব্যাখ্যা দিতে তাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

চাঁদপুর-২ আসনে নির্বাচন কমিশনের গঠন করা অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যান ও যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ সাইয়েদ মাহবুবুল ইসলাম স্বাক্ষরিত নোটিশটি গতকাল শনিবার (১৬ ডিসেম্বর) মায়া চৌধুরীকে দেওয়া হয়। 

নোটিশ বলা হয়, চাঁদপুর-২ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী এম. ইশফাক আহসান একই আসনের আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন, গত ১৪ ডিসেম্বর বৃস্পতিবার সকাল ১১টায় উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার (এ.টি.ই.ও) হাসানুজ্জামান লুলু জরুরি নোটিশের মাধ্যমে শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের নৈমিত্তিক ছুটি বাতিল করেন এবং নৌকার প্রার্থী মায়া চৌধুরীর বাড়িতে সরকারি শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের নিয়ে নির্বাচনী আলোচনা করেন। যা নির্বাচন আচরণবিধি লঙ্ঘন। কেননা, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষিকারাই দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রিজাইডিং ও পোলিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করবেন। ওই আলোচনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এ বিষয়ে তদন্ত করে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে মায়া চৌধুরীর মনোনয়ন বাতিলসহ আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ করেন।

নোটিশে উল্লেখ করা হয়, ওই সভার ভিডিও ক্লিপে দেখা যায়, ফরাজীকান্দি ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তার গাজী নৌকার প্রার্থী মায়া চৌধুরীর উপস্থিতিতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষিকাদের সরাসরি নৌকা প্রতীকের পক্ষে কাজ করার আহ্বান জানাচ্ছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার ব্যক্তিগত সহকারী মো. মামুন বলেন, আমরা এর আগে একটি নোটিশ পেয়েছিলাম। সেটির জবাব দিয়েছি। নতুন কোনো শোকজের কাগজ এখনো আমরা হাতে পাইনি। আদালত শোকজ করলে আমরা সেটিরও জবাব দেব।

উল্লেখ্য, এর আগেও স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের ওপর হামলার ঘটনায় নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার জবাব চেয়ে নোটিশ দেয় নির্বাচন অনুসন্ধান কমিটি। পরে তিনি ৬ ডিসেম্বর আইনজীবীর মাধ্যমে ওই শোকজের জবাব দেন।

অমরেশ/মাসুদ

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়