ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ১৮ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৫ ১৪৩১

নির্বাচনকে আমরা ভালো বললে হবে না, বহির্বিশ্বকেও বলতে হবে: ইসি আনিছুর

ফেনী সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:২৩, ২০ ডিসেম্বর ২০২৩   আপডেট: ১৬:৪৩, ২০ ডিসেম্বর ২০২৩
নির্বাচনকে আমরা ভালো বললে হবে না, বহির্বিশ্বকেও বলতে হবে: ইসি আনিছুর

নির্বাচন কমিশনার (ইসি) মো. আনিছুর রহমান বলেছেন, ‌‘নির্বাচন নিয়ে বহির্বিশ্ব আমাদের দিকে তাকিয়ে আছে। এই নির্বাচনকে আমরা শুধু ভালো বললে হবে না, বহির্বিশ্বকে বলতে হবে একটি ভালো ভোট হয়েছে। ভোট ভালো না হলে আমাদের ভবিষ্যৎ খুব একটা ভালো না। প্রার্থীদের বলেছি, ভালো ভোট যদি আপনারা না করেন তাহলে নির্বাচনে আপনি এমপি হবেন, সরকার গঠন করতে পারেন, কিন্তু ক্ষমতা পেয়ে কিছু করতে পারবেন না। বহির্বিশ্ব যদি আমাদের ওপর বিভিন্ন বিধিনিষেধ আরোপ করেন তাহলে কিন্তু আমরা কেউ সুখে থাকবো না।’

বুধবার (২০ ডিসেম্বর) দুপুরে ফেনী জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে নির্বাচন কর্মকর্তা, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও প্রার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

নির্বাচন কমিশনার আনিছুর রহমান বলেন, সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন বলতে যা বুঝায় সেটি করতে নির্বাচন কমিশন প্রস্তুত। আগামী ২৯ ডিসেম্বর থেকে ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত সেনাবাহিনী, বিজিবিসহ সব বাহিনী মাঠে থাকবে। সব জায়গায় নিরাপত্তা দেওয়া হবে। প্রয়োজনীয় সংখ্যক ম্যাজিস্ট্রেটও তাদের সঙ্গে থাকবেন। পুলিশের পাশাপাশি এবার ব্যাটালিয়ন আনসারও থাকবে। সবমিলিয়ে সারাদেশে ৭ লাখ ফোর্স ভোটের মাঠে কাজ করবে।

বিগত নির্বাচন নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা ব্যালট পেপার এবারই প্রথম সকালে দিচ্ছি। এটির নিশ্চয়ই কোনো কারণ আছে। আমরা যদি আগের মতো সেই অবস্থানে থাকতাম তাহলে এ কাজটি করতাম না। দুর্গম এলাকা বাদে সকাল ৮টার আগে কেন্দ্রে ব্যালট পেপার পাঠানো হবে। এতোদিন আমরা বলে আসছি, কিন্তু এখন এবিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

নির্বাচন কমিশনার বলেন, নির্বাচনের জন্য সুষ্ঠু পরিবেশ সৃষ্টি করে দেব। ভোটার আনার দায়িত্ব কমিশন, রিটার্নিং কর্মকর্তা বা সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার না। সেই দায়িত্ব প্রার্থীদের। প্রার্থী নিজে, কর্মী-সমর্থক ও দলীয় নেতাকর্মীদের মাধ্যমে ভোটারদের কেন্দ্র আনার জন্য উদ্বুদ্ধ করবেন। ভোটার যত বেশি আসবে নির্বাচন তত অংশগ্রহণমূলক হবে। 

নির্বাচন কমিশনে বহির্বিশ্বের চাপ নেই উল্লেখ করে ইসি আনিছুর রহমান বলেন, ভোট সুষ্ঠু, সুন্দর ও অবাধ করতে চেষ্টার কমতি নেই। আমাদের ওপর কোনো চাপ নেই। আমেরিকা, ইউরোপ জানতে চেয়েছে শুধু। তবে কোনো চাপ নেই। কেউ এবিষয়ে প্রশ্নও তোলেনি। নির্বাচনে এবার সর্বোচ্চ সংখ্যক বিদেশি পর্যবেক্ষক আসছে। আমরা তাদের সবধরনের আথিতেয়তা দেবো। পর্যবেক্ষকদের আবেদনের সময়সীমাও আমরা বাড়িয়েছি। তারা মূল্যায়ন করবেন ভোট কেমন হলো।

আগামী কয়েকদিনের মধ্যে অনেককিছু ঘটবে এমন ইঙ্গিত দিয়ে আনিছুর রহমান বলেন, আগামী একসপ্তাহের মধ্যে বিভিন্ন জায়গায় অনেককিছু দেখবেন। যারা অবৈধ হস্তক্ষেপ করতে চায় ওইসব প্রার্থীর বিরুদ্ধে অনেক জায়গায় অনেককিছু ঘটবে। ভোটের পরিবেশ সৃষ্টিতে আমরা কাজ করছি। এখানে ছোট-বড় কেউ না। যতক্ষণ পর্যন্ত নির্বাচনের মাঠে থাকবে সবাই প্রার্থী। ভোট সুষ্ঠু না হওয়ার কোনো কারণ নেই।

বিএনপির অসহযোগ আন্দোলনের ডাক প্রসঙ্গে ইসি আরও বলেন, অসহযোগ বলতে কি বুঝাচ্ছে সেটি আপনি আমি কেউই জানি না। অসহযোগ, অবরোধে অর্থ আপনার কাছে একরকম আবার আমার কাছে আরেকরকম। কতটুকু অসহযোগ, কি অসহযোগ দেখা যাক কি হয়। দেখেন কর্মসূচি কোনদিকে কি যায়।

সভায় ফেনীর জেলা প্রশাসক মুছাম্মৎ শাহীনা আক্তারের পরিচালনায় তিনটি আসনে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা, পুলিশ সুপার জাকির হাসান, ৪ বিজিবি অধিনায়ক রকিবুল হাসান, আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ করিমসহ জেলা প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সাহাব/মাসুদ

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়