ঢাকা     শনিবার   ১৩ এপ্রিল ২০২৪ ||  চৈত্র ৩০ ১৪৩০

বান্দরবানে প্রচার-প্রচারণায় শুধুই নৌকা

বান্দরবান প্রতিনিধি  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৪৭, ২৭ ডিসেম্বর ২০২৩  
বান্দরবানে প্রচার-প্রচারণায় শুধুই নৌকা

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে বান্দরবান ৩০০নং আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর পক্ষে জোরেশোরেই চলছে নির্বাচনি প্রচারণা। অন্য প্রার্থীদের প্রচারণা নেই। দেখা যায়নি অন্য প্রার্থীদের কোনো পোস্টার। বিএনপি অংশ নিচ্ছে না। প্রার্থী নেই আঞ্চলিক দলের, তাই জমে ওঠেনি নির্বাচনি প্রচারণা।

প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে আওয়ামী লীগ ছাড়া জাতীয় পার্টির প্রার্থী ও তাদের অনুসারীদের তৎপরতা তেমন চোখে পড়েনি। বান্দরবান আসনের আওয়ামী লীগের প্রার্থী বীর বাহাদুর উশৈসিং থানচি, রুমা, রোয়াংছড়ি, নাইক্ষ্যংছড়ি, লামা ও আলীকদমে নির্বাচনি প্রচারণা করেছেন। তার পক্ষে নেতাকর্মীরা জেলা শহর ও প্রতিটি উপজেলায় মিছিল, মাইকিং ও লিফলেট বিতরণের মাধ্যমে প্রচারণা চলমান রেখেছে। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী জাতীয় পার্টির এটিএম শহিদুল ইসলামের তৎপরতা এখনো চোখে পড়েনি। পোস্টারও নেই কোনো উপজেলায়। বান্দরবান বাজারে ও নিজ এলাকা লামা উপজেলায় ভোটারদের কাছে গিয়ে দোয়া চাওয়ার মাধ্যমে তার প্রচারণা সীমাবদ্ধ।

রিটার্নিং কর্মকর্তাদের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বান্দরবান ৩০০নং সংসদীয় আসনে দু’জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ছয়বারের সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের প্রার্থী বীর বাহাদুর উশৈসিংয়ের সঙ্গে লাঙ্গল নিয়ে লড়বেন জাতীয় পার্টির এটিএম শহিদুল ইসলাম। এ আসনে ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৮৮ হাজার ২৯ জন। ভোটকেন্দ্র রয়েছে ১৮২টি। তার মধ্যে ১ লাখ ৪৮ হাজার ৫৮৩ জন পুরুষ এবং ১ লাখ ৩৯ হাজার ৪৪৬ জন নারী ভোটার রয়েছেন।

ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আওয়ামী লীগের বাইরে জেলায় শক্ত অবস্থানে রয়েছে বিএনপি। দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশ না নেওয়ায় নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হওয়ার সম্ভাবনা নেই বলে মনে করছেন ভোটাররা। ভোটারদের নির্বাচন নিয়ে আগ্রহ কম থাকায় তাদের কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়াও কঠিন হবে বলেও অভিমত অনেক ভোটারের।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লক্ষ্মীপদ দাশ বলেছেন, প্রতিদ্বন্দ্বী কোনো প্রার্থীকে ছোট-বড় ভাবার সুযোগ নেই। তাই প্রতিটি উপজেলা, ইউনিয়ন, ওয়ার্ডে সংগঠিত হয়ে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা চালানো হচ্ছে।

জাতীয় পার্টির প্রার্থী এটিএম শহিদুল ইসলাম জানান, লামা ও আলীকদম উপজেলায় নির্বাচনি প্রচারণা করেছেন এবং পোস্টারও প্রস্তুত হয়েছে। তবে দলে নেতাকর্মীদের কোন্দলের কারণে পোস্টার লাগানো সম্ভব হয়নি। তার পক্ষে প্রচারণার জন্য নেতাকর্মীরা টাকা দাবি করেছেন।

চাইমং/ফয়সাল

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়