ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৮ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪৩১

বিতর্কে ঢাবিকে হারিয়ে বিজয়ী বশেমুরবিপ্রবি

বশেমুরবিপ্রবি সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৪১, ১৬ এপ্রিল ২০২৪  
বিতর্কে ঢাবিকে হারিয়ে বিজয়ী বশেমুরবিপ্রবি

'পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন অব রাজশাহী (পুসার)' কর্তৃক  আয়োজিত আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় বিতর্ক প্রতিযোগিতায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে (ঢাবি) হারিয়ে বিজয়ী হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বশেমুরবিপ্রবি)। গত রোববার (১৪ এপ্রিল) রাজশাহীর জেলা শিল্পকলা অ্যাকাডেমিতে এ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) সদস্য এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক ড. প্রদীপ কুমার পান্ডের সভাপতিত্বে বিতর্ক প্রতিযোগিতায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এবং আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য খাইরুজ্জামান লিটন।

এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাবির সাবেক উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. সারোয়ার জাহান সজল, রাবির সমাজকর্ম বিভাগের অধ্যাপক জান্নাতুল ফেরদৌস, রাজশাহী-২ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা এবং শিল্পী, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের প্রকল্প পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার শামসুল আলম।

বিতর্কের বিষয় ছিল- ‘এই সংসদ, বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি সমর্থন করে না।’ এতে সরকার দল হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিরোধী দল হিসেবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও  প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিযোগিতা করে।

বিজয়ী দলের সদস্যরা হলেন- বশেমুরবিপ্রবির অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী তানহীম রহমান, ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মোহাম্মদ আলী তোহা এবং পরিবেশ বিজ্ঞান ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী নাঈমা সুলতানা। এছাড়া সহযোগী বিতার্কিক হিসেবে ছিলেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী জান্নাতুল ফেরদৌস, ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মামুনুর রশীদ।

বিজয়ীদের মধ্য থেকে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে মোহাম্মাদ আলী তোহা বলেন, এমন একটি প্রতিযোগিতায় বিশ্ববিদ্যালয়কে জয়যুক্ত করতে পেরে খুবই ভালো লাগছে। প্রতিপক্ষ দল ঢাবিকে দেখে প্রথমে আমরা নার্ভাস ছিলাম। কিন্তু পরক্ষণেই মনে হয়েছে, সামর্থ থাকলে আমরা সফল হবোই। বিতর্ক শেষে ফলাফলে বিজয়ী হয়ে খুবই আনন্দ লাগছে। বিশ্ববিদ্যালয়কে রিপ্রেজেন্ট করতে পেরে নিজেকে গর্বিত মনে করছি।

অনুষ্ঠান শেষে বিজয়দের হাতে পুরষ্কার তুলে দেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এবং আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য খাইরুজ্জামান লিটন। এসময় তিনি বিজয়ী এবং বিজিত দুই বিশ্ববিদ্যালয়কেই অভিন্দন এবং সবার জন্য শুভকামনা জানান।

/হৃদয়/মেহেদী/

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়