Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৩ এপ্রিল ২০২১ ||  চৈত্র ৩০ ১৪২৭ ||  ২৮ শা'বান ১৪৪২

রিয়ালের ড্রয়ে ব্যবধান ঘুচল বার্সার

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৪:০৫, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ০৫:২২, ৩১ আগস্ট ২০২০
রিয়ালের ড্রয়ে ব্যবধান ঘুচল বার্সার

চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার চেয়ে ৩ পয়েন্টে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ ছিল রিয়াল মাদ্রিদের সামনে। সেটি কাজে লাগাতে পারেনি তারা। রোববার রাতে ঘরের মাঠে সেল্টা ভিগোর সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করেছে লস ব্লাঙ্কোসরা। তাতে বার্সার সঙ্গে তাদের পয়েন্ট ব্যবধান কমে দাঁড়িয়েছে ১ এ। এতে আরো জমে উঠল লা লিগার শিরোপার লড়াই।

রোববার সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে ম্যাচের ৭ মিনিটেই পিছিয়ে পড়ে রিয়াল মাদ্রিদ। এ সময় সেল্টা ভিগোর রাশিয়ান স্ট্রাইকার ফেদোর এসমলোভ গোল করে এগিয়ে নেন দলকে। শুরুতেই পিছিয়ে পড়ায় সমর্থকদের দুয়ো শুনতে হয় রিয়ালের খেলোয়াড়দের।

বিরতির পর অবশ্য দারুণভাবে ম্যাচে ফেরে রিয়াল। ৫২ মিনিটে টনি ক্রুস গোল করে সমতা ফেরান। এর কিছুক্ষণ পর রিয়ালের অধিনায়ক সার্জিও রামোসও অবশ্য গোলের দেখা পেয়েছিলেন। কিন্তু অফসাইডের কারণে সেটি বাতিল হয়। অবশ্য ৬৫ মিনিটে গোলের দেখা পেয়েই যান রামোস। এ সময় তিন মাস পর খেলতে নামা ইডেন হ্যাজার্ডকে ফাউল করেন সেল্টা ভিগোর গোলরক্ষক রুবেন ব্লাঙ্কো। রেফারি পেনাল্টির বাঁশি বাজান। পেনাল্টি থেকে রামোস গোল আদায় করে এগিয়ে নেন দলকে।

এর আগে সাতবার রিয়ালের মাঠে লিগ ম্যাচ খেলতে এসে সাতবারই হেরেছিল সেল্টা। এবারও কী তাদের ভাগ্যে একই পরিণতি লেখা আছে? অবশ্য সেই লিখন পাল্টে দেন স্যান্টি মিনা। ম্যাচের ৮৫ মিনিটে গোল করে তিনি ১ পয়েন্ট পাইয়ে দেন দলকে।

ঘরের মাঠে এভাবে পয়েন্ট হারানোয় কষ্ট পেয়েছেন রিয়ালের কোচ জিনেদিন জিদান, ‘ঘরের মাঠে ২ পয়েন্ট হারানোটা কষ্ট দিচ্ছে। সেল্টা অবশ্য ভালো দল। তাদের পয়েন্ট টেবিলের তলানির দিকে থাকাটা বেমানান। তারপরও দারুণ প্রচেষ্টা চালিয়ে পয়েন্ট হারানোটা বেদনাদায়ক আমাদের জন্য।’

এই ড্রয়ে ২১ পয়েন্ট নিয়ে সেল্টা ভিগো উঠে এসেছে পয়েন্ট টেবিলের ১৭তম অবস্থানে। ২৪ ম্যাচ থেকে ৫৩ পয়েন্ট সংগ্রহ করে রিয়াল রয়েছে শীর্ষে। সমান ম্যাচ থেকে ৫২ পয়েন্ট সংগ্রহ করে বার্সেলোনা রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে।

 

ঢাকা/আমিনুল

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়

শিরোনাম

Bulletলকডাউন: ১৪-২১ এপ্রিল। যা যা চলবে: ১. বিমান, সমুদ্র, নৌ ও স্থল বন্দর এবং তৎসংশ্লিষ্ট অফিস। ২. পণ্য পরিবহন, উৎপাদন ব্যবস্থা ও জরুরি সেবাদানের ক্ষেত্রে এ আদেশ প্রযোজ্য হবে না ৩. শিল্প-কারখানা ৪. আইনশৃঙ্খলা এবং জরুরি পরিসেবা, যেমন, কৃষি উপকরণ (সার, বীজ, কীটনাশক, কৃষি যন্ত্রপাতি ইত্যাদি), খাদ্যশস্য ও খাদ্যদ্রব্য পরিবহন, ত্রাণ বিতরণ, স্বাস্থ্যসেবা, কোভিড-১৯ টিকা প্রদান, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস/জ্বালানি, ফায়ার সার্ভিস, বন্দরগুলোর (স্থল, নদী ও সমুদ্রবন্দর) কার্যক্রম, টেলিফোন ও ইন্টারনেট (সরকারি-বেসরকারি), গণমাধ্যম (প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া), বেসরকারি নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ডাক সেবাসহ অন্যান্য জরুরি ও অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ও সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অফিসসমূহ, তাদের কর্মচারী ও যানবাহন এ নিষেধাজ্ঞার আওতা বর্হিভূত থাকবে। ৫. ওষুধ ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ক্রয়, চিকিৎসা সেবা, মৃতদেহ দাফন/সৎকার ৬. খাবারের দোকান ও হোটেল-রেস্তোরাঁয় দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা এবং রাত ১২টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত কেবল খাদ্য বিক্রয়/সরবরাহ করা যাবে। ৭. কাঁচাবাজার এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি সকাল ৯টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত উন্মুক্ত স্থানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রয়-বিক্রয় করা যাবে || যা যা বন্ধ থাকবে: ১. সব সরকারি, আধাসরকারি, সায়ত্ত্বশাসিত ও বেসরকারি অফিস, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে ২. সব ধরনের পরিবহন (সড়ক, নৌ, অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ফ্লাইট) বন্ধ থাকবে ৩. শপিংমলসহ অন্যান্য দোকান বন্ধ থাকবে