RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ২৩ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ৯ ১৪২৭ ||  ০৮ জমাদিউস সানি ১৪৪২

অদম্য কর্নওয়াল, প্রাণপ্রাচুর্যে ভরপুর

ইয়াসিন হাসান  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:১১, ১৪ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ২২:১২, ১৪ জানুয়ারি ২০২১
অদম্য কর্নওয়াল, প্রাণপ্রাচুর্যে ভরপুর

ওজন ১৪০ কেজি। উচ্চতা ৬ ফুট ৫ ইঞ্চি। ২২ গজে এমন হেভিওয়েট কাউকে দেখলে যে কেউ-ই চমকে যেতে পারেন! কিন্তু রাকিম কর্নওয়ালকে দেখে কেউ চমকায়নি। বরং প্রেরণা দিয়েছে। দিয়েছে আত্মবিশ্বাস। হাসি কিংবা ঠাট্টা করে কেউ তাকে আটকানোর চেষ্টা করেনি। সতীর্থদের ভালোবাসা ও নিজের অদম্য মনোবলে রাকিম কর্নওয়াল অসম্ভবকে করেছেন সম্ভব। খেলেছেন ক্রিকেটের সবচেয়ে মর্যাদার টেস্ট ম্যাচ। 

২০১৯ সালের আগস্টে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভারতের বিপক্ষে টেস্ট অভিষেক রাকিমের। এবার তিনি উড়ে এসেছেন বাংলাদেশে। প্রথমবার বাংলার মাটিতে পা রেখে তিন দিন ছিলেন কোয়ারেন্টাইনে। মুক্তি পেয়ে বৃহস্পতিবার পা মাড়িয়েছেন মিরপুরের সবুজ গালিচায়। তাকে দেখতে বাড়তি আগ্রহও ছিল গণমাধ্যমকর্মীদের। অনুশীলনে কি করেন সেসব তো জানাতে হবে পাঠকদের!

৩ টেস্টে ১৩ উইকেট নেওয়া রাকিমের অনুশীলনের শুরুটা একদমই সাদামাটা। সতীর্থরা যখন গা গরমের জন্য ফুটবল নিয়ে ব্যস্ত তখন নিজেকে হাল্কা জগিংয়ে সীমাবদ্ধ রাখেন। এরপর বল হাতে ২২ গজে। সেন্টার উইকেটে একাকি দাঁড়িয়ে দুটি বল করলেন। নিজের বোলিংয়ে বল আনতে হয় বলে এরপর শ্যাডো অনুশীলনেই তৃপ্ত। 

দলগত অনুশীলন শুরুর পর টানা বোলিং করলেন কয়েক ওভার। এরপর খানিকক্ষণের বিশ্রাম। বিশ্রাম নিতে গিয়ে শুয়ে-ই পড়লেন দ্য মাউন্টেন ম্যান। ট্রেনারের কাছে কিছু একটা চাইলেন রাকিম। ট্রেনার ওষুধ জাতীয় কিছু একটা দিলেন। সেটি পানিতে মিশিয়ে পান শেষে আবার ট্রেনিংয়ে কর্নওয়াল ২২ গজে।

এবার টানা অনুশীলন। ডানহাতের মায়াবি যাদুতে অনেকবারই ব্যাটসম্যানকে পরাস্ত করেছেন। উইকেট পাওয়ার উল্লাসও করেছেন। নেচেছেন, আনন্দ করেছেন। আবার কয়েকটি মারও খেয়েছেন। তবুও অনুশীলন থামাননি। প্রায় ঘণ্টাখানেক বোলিং অনুশীলন শেষে তাঁবুর নিচে কর্নওয়াল। দলের অনুশীলনের শেষ পর্যন্ত তার ঠিকানা ছিল সেখানেই।

২০১৪ সালে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অভিষেক কর্নওয়ালের। তখন তার ওজন ছিল প্রায় ১৬০ কেজির বেশি। তার প্রথম দল ছিল লিওয়ার্ডস আইল্যান্ডস। এরপর ৫৫ ম্যাচ খেলেছেন সাদা পোশাকে। বল হাতে উইকেট পেয়েছেন ২৬০টি। আর ব্যাটিংয়ে রান করেছেন ২২২৪। ১ সেঞ্চুরির সঙ্গে রয়েছে ১৩ হাফ সেঞ্চুরি। এছাড়া ওয়েস্ট ইন্ডিজের ঘরোয়া ক্রিকেটের অন্যান্য টুর্নামেন্টেও দিব্যি খেলে যাচ্ছেন এ হেভিওয়েট ক্রিকেটার।

অফ স্পিন দারুণ করেন কর্নওয়াল। উচ্চতার কারণে বাড়তি ফ্লাইট পান। যা যে কোনো ব্যাটসম্যানের জন্য বিপজ্জনক। বড় শরীর নিয়ে স্বাভাবিক ভাবেই রানিং বিট-উইন দ্য উইকেটসে খুব স্বাচ্ছন্দ্য নন তিনি। তাই জোর দেন বড় শট খেলার। এক জায়গায় দাঁড়িয়ে তার মারা লম্বা ছয়গুলো মনে করিয়ে দেয় পোলার্ডকে।

কর্নওয়ালের জন্ম অ্যান্টিগায়। এটি লিওয়ার্ড দ্বীপে অবস্থিত। এই দ্বীপ থেকেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে খেলেছিলেন স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস, কার্টলি অ্যামব্রোজ, অ্যান্ডি রবার্টস, রিচি রিচার্ডসনের মতো কিংবদন্তি ক্রিকেটাররা।কর্নওয়াল তাদেরই একজন। তাইতো হেভিওয়েট হয়েও অদম্য তিনি।

ঢাকা/রিয়াদ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়