Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ১১ এপ্রিল ২০২১ ||  চৈত্র ২৮ ১৪২৭ ||  ২৭ শা'বান ১৪৪২

হাবিবুলের ক্রিকেট পাঠশালা (প্রথম পর্ব)

হাবিবুল বাশার সুমন || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৯:৪৩, ৬ মার্চ ২০২১   আপডেট: ১২:১২, ১১ মার্চ ২০২১
হাবিবুলের ক্রিকেট পাঠশালা (প্রথম পর্ব)

অলংকরণ: অপূর্ব আহমেদ সিজার

ক্রিকেটকে সাধারণত ব্যাটসম্যানদের খেলা বলা হয়ে থাকে। আমরা যদি ক্রিকেটের নিয়মাবলীতে নজর দেই তাহলে দেখবো, কিছুটা হলেও ব্যাটসম্যানদের বেশি সুযোগ দেওয়া হয়ে থাকে। নিয়মগুলো বোলার-ব্যাটসম্যান সবার জন্য করা হলেও, ব্যাটসম্যানদের ক্ষেত্রে নিয়মের সুবিধা সম্ভবত কিছুটা এগিয়ে থাকে। যদিও পরিসংখ্যান বলে বোলিং দলের জেতার সংখ্যা বেশি, তবে ব্যাটিংয়ের কাজটা কিন্তু অনেক কঠিন। আর এই কারণে, ব্যাটসম্যানদের পক্ষে নিয়মের কিছুটা আধিক্য দেখা যায়।

নিঃসন্দেহে ব্যাটিং একটা শিল্প। বোলারদের চেয়েও ব্যাটসম্যানদের জন্য ম্যাচ পরিস্থিতি কঠিন থাকে। সাধারণত দেখা যায়, ম্যাচে বোলাররা কোনো ভুল করে থাকলেও তাদের ফিরে আসার সুযোগ থাকে। কোনো নির্দিষ্ট স্পেলে খারাপ করলেও পরবর্তীতে ভালো করে সেটি পুষিয়ে দেওয়ার সুযোগ থাকে। সে হিসেবে বলতে গেলে, ব্যাটসম্যানদের জন্য কোনো সুযোগই থাকে না। ভুল করা মানে সোজা প্যাভিলিয়নের পথ ধরা।

একজন ব্যাটসম্যানের কেমন হওয়া উচিত

যেকোনো নতুন ব্যাটসম্যানের ক্ষেত্রে আমরা প্রথমে তার ব্যাট ধরে দাঁড়ানো দেখতে চাই। আমরা তখন তাদের কিছু দিকে নজর দিয়ে থাকি। প্রথমত, তারা কীভাবে ব্যাটটা গ্রিপ করলো, দ্বিতীয়ত তাদের স্টান্স এবং তাদের ব্যাকলিফট। আর ব্যাটসম্যানদের জন্য এই বেসিকগুলো ঠিক থাকা খুব গুরুত্বপূর্ণ। পরবর্তী জীবনেও এগুলো কাজে লাগে। এমনকি এটা দেখে বুঝা যায় যে, একটা ব্যাটসম্যান ক্যারিয়ারে কতদূর যাবে। এমনকি কতটা সফল বা ব্যর্থ হবে, সেটাও বুঝা যায়। ক্রিকেট কোচিংয়ের সব বইয়ে ব্যাটিংয়ের বেসিকগুলো একরকমই থাকে।

কিন্তু আমরা যাদের দেখি, তাদের সবার ব্যাটিং স্টাইল কিন্তু বইয়ে দেখানো ছবির মতো পারফেক্ট হয় না। এমনকি সবার গ্রিপ, স্টান্স এমনকি ব্যাকলিফটও একরকম হয় না। তাই আমাদের সর্বপ্রথম এসব নিয়ে কাজ করতে হয়।

আমরা গ্রিপ নিয়ে যদি বলি, সঠিকভাবে ব্যাট গ্রিপ করতে না পারলে, ব্যাট চালানো কখনো ভালো হয় না। ব্যাট সুইংও যথেষ্ট দ্রুততার সঙ্গে করা যায় না। আর তাই ব্যাটে সঠিক গ্রিপ করা খুব গুরুত্বপূর্ণ।

স্টান্সের ক্ষেত্রে বেশিরভাগ ক্রিকেটাররা একই রকম দাঁড়ায়। সাধারণত, ওপেন স্টান্স এবং সাইড স্টান্সে দাঁড়াতে দেখা যায়। তবে বেশিরভাগই ওপেন স্টান্সে দাঁড়ায়। ওপেন স্টান্সে দাঁড়ালে একটা সুবিধা হচ্ছে, শট করার জন্য জায়গা বেশি পাওয়া যায়। বল দেখতে সুবিধা হয়। আর বেশি শক্তি পাওয়া যায়। আর তাই ব্যাটসম্যানরা ওপেন স্টান্স বেশি পছন্দ করে।

সাইড স্টান্সে যারা দাঁড়ায়, তাদের মূলত অফ স্ট্যাম্পের বাইরের বলে শট খেলতে বেশি সুবিধা হয়। আগেকার সময়ের ক্রিকেটাররা বেশিরভাগই সাইড স্টান্সে খেলতেন। তবে এখনকার আধুনিক ক্রিকেটে ব্যাটসম্যানরা জায়গা করে নিয়ে শট খেলতে পছন্দ করে, আর তাই ওপেন স্টান্স বেশিরভাগ জনপ্রিয়।

তবে ওপেন স্টান্সে অনেক সময় সুইং বোলিং হলে ঝামেলা তৈরি হয়ে যায়। এক্ষেত্রে বিরাট কোহলিকে আদর্শ মানা যায়। সে ওপেন স্টান্সে দাঁড়ালেও কিছুটা সাইড স্টান্স লক্ষ্য করা যায়। আবার এখনকার সময় স্টিভেন স্মিথ পুরো ব্যতিক্রম ভঙ্গিতে দাঁড়ায়। কিন্তু সে নিয়মিত রান করে যাচ্ছে। স্মিথ, শিবনারায়ন চন্দরপালদের দাঁড়ানো সম্পূর্ণ ব্যতিক্রম। এগুলো উদাহরণ হতে পারে না। তবে ব্যাটসম্যানের স্টান্স চয়েজের ক্ষেত্রে নিজের সুবিধা বোঝা উচিত। যে স্টান্স নিলে বলে কাছে যেতে, পায়ের মুভমেন্টে সুবিধা হয় সেটাতে ঠিক থেকে বাকি কাজ করা উচিত।

ব্যাটিংয়ের জন্য সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে মাথার পজিশন। ব্যাটিংয়ের সময় খেয়াল রাখতে হবে যেন, মাথা সঠিক পজিশনে থাকে। আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, শরীরের ভারসাম্য সঠিক ভাবে ধরে রাখা। যদি শরীরে সঠিক ভারসাম্য না থাকে, তাহলে শটে পাওয়ার আসবে না। ভুল শট বেশি হবে। লক্ষ্য করলে দেখা যাবে, ভালো ব্যাটসম্যানদের শরীরের ভারসাম্য সবসময় সঠিক থাকে। সেটা অ্যাটাকিং শটেই হোক কিংবা ডিফেন্স করা হোক। আর শরীরে ভারসাম্য বেশি ঠিক থাকে যখন মাথার পজিশন সঠিক থাকে। কারণ, ব্যাটিংয়ের সময় মাথার পজিশন শরীর নিয়ন্ত্রণ করে। মাথার পজিশনে নড়বড় হলে শরীরের নিয়ন্ত্রণেও ভুল হয়। আর তাই এটা খুব গুরুত্বপূর্ণ।

(চলবে)

অনুলিখন: ইয়াসিন হাসান

ঢাকা/ইয়াসিন

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়