ঢাকা     শনিবার   ০১ অক্টোবর ২০২২ ||  আশ্বিন ১৬ ১৪২৯ ||  ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪১৪

বাইরের কেউ কী বলছে, তাতে কিছু যায় আসে না: মাশরাফির মন্তব্যে গিবসন

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:০০, ২৬ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ২০:১৭, ২৬ অক্টোবর ২০২১
বাইরের কেউ কী বলছে, তাতে কিছু যায় আসে না: মাশরাফির মন্তব্যে গিবসন

জাতীয় দলের বর্তমান কোচিং স্টাফদের নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। তার দাবি, দক্ষিণ আফ্রিকার চাকরি না পাওয়া কোচগুলো বাংলাদেশে একসঙ্গে রিহ্যাব সেন্টারে চাকরি করছেন।

এছাড়া বাংলাদেশ দলের কোচ হওয়ার যোগ্যতা, সামর্থ্য কোচিং স্টাফদের আছে কি না তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন বাংলাদেশের সফলতম ওয়ানডে অধিনায়ক। মাশরাফির মন্তব্য নিয়ে আজ জানতে চাওয়া হয়েছিল বাংলাদেশের বোলিং কোচ ওটিস গিবসনের কাছে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বিশ্বকাপের পরবর্তী ম্যাচের আগে দলের প্রতিনিধি হয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসেছিলেন তিনি।

মাশরাফির মন্তব্যে গিবসনের বার্তা, ‘আমার কোনো চিন্তা নেই। আমাদের জানাশোনার বাইরের কেউ কী বলছে তাতে আমার আগ্রহ বা উদ্বেগ নেই। কোচিং গ্রুপ হিসেবে আমরা এখানে কী করি তা আমরা জানি, তাই গ্রুপের বাইরের কেউ যা বলছে তাতে কিছু যায় আসে না।’

মাশরাফি নিজের ফেসবুকে লিখেছেন,‘ এখন টিম ম্যানেজমেন্ট দেখলে মনে হয় একটা রিহ্যাব সেন্টার, যেখানে সাউথ আফ্রিকার সব চাকরি না পাওয়া কোচগুলো একসঙ্গে আমাদের রিহ্যাব সেন্টারে চাকরি করছে। এদের বাদ দেওয়া আরো বিপদ, কারণ চুক্তির পুরো টাকাটা নিয়ে চলে যাবে। তাহলে দাড়াল কী, তারা যতদিন থাকবে আর মন যা চাইবে তাই করবে। হেড কোচ এক এক করে নিজ দেশের সবাইকে আনছে এরপর যারা অস্থায়ীভাবে আছে তাদেরও সরাবে আর নিজের মতো করে ম্যানেজমেন্ট সাজাবে। তাও মেনে নিলাম কিন্তু রাসেল (হেড কোচ) ম্যানেজমেন্টের জন্য যেভাবে স্টেপআপ করে মূল দলের জন্য তাহলে লুকিয়ে কেন। কেন তামিম, মুশফিক, রিয়াদ ভালো থাকে না।  এটা ঠিক করা কি তার কাজ না!’

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশের বর্তমান কোচিং স্টাফদের সঙ্গে সাবেক অধিনায়কের সম্পর্ক মধুর নয়। মাশরাফিকে দলে না নেওয়া, পরিকল্পনার বাইরে ফেলে দেওয়ার কাজটা করেছেন ডমিঙ্গো, গিবসন। গিবসন একাধিক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘মাশরাফি আমাদের পরিকল্পনার মধ্যে নেই।’

ডমিঙ্গো দায়িত্ব নেওয়ার সময় মাশরাফি অধিনায়ক থাকলেও তার সঙ্গে কোনো আলাপ আলোচনা হয়নি। মাশরাফি সবশেষ জাতীয় দলে খেলেছেন ২০২০ সালের মার্চে। অধিনায়ক হিসেবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজ খেলে ৫০ জয় নিয়ে দায়িত্ব ছাড়েন। এরপর তাকে বাতিলের খাতায় ফেলে দেয় টিম ম্যানেজমেন্ট। 

ঢাকা/ইয়াসিন/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়