ঢাকা     বুধবার   ২৫ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯ ||  ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

শুরু আর শেষের ঝড়ে চট্টগ্রামের সর্বোচ্চ সংগ্রহ

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:২৮, ২৪ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ২১:৩৪, ২৪ জানুয়ারি ২০২২
শুরু আর শেষের ঝড়ে চট্টগ্রামের সর্বোচ্চ সংগ্রহ

প্রথম বল থেকেই কেনার লুইস ও উইল জ্যাকসের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে শুরু হয়েছিল চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের ইনিংস। মাঝে সাব্বির রহমান-মেহেদি মিরাজদের ব্যাটিংয়ে রানের গতি কিছুটা কমে। শুরুর মতো শেষটা হয়েছে ঝড় দিয়ে। বিদেশি বিনি হাওয়েল আর দেশি নাঈম ইসলাম ছিলেন শেষের নায়ক।

বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) তৃতীয় দিনের দ্বিতীয় খেলায় টস হেরে ব্যাটিং করে চট্টগ্রাম। শুরু ও শেষের ঝড়ে বিপিএলের চলতি আসরে সর্বোচ্চ ১৯০ রান তোলে দলটি। এ সময় সাগরিকা পাড়ের দলটি উইকেট হারিয়েছে ৭টি।

লুইস-জ্যাকসে প্রথম দুই ওভারে চট্টগ্রামের আসে ৩২ রান, হারায় ১ উইকেট। আবার শেষ দুই ওভারেও হাওয়েল-নাইমের ব্যাটে সমান ৩২ রান তুলে ১ উইকেট হারিয়ে।

ঝড়ো শুরুর পর অবশ্য দ্বিতীয় ওভারের তৃতীয় বলে আউট হন জ্যাকস (৭ বলে ১৭)। এরপর আফিফকে সঙ্গে নিয়ে ব্যাট চালিয়ে যান লুইস। তিনিও থেমে যান পাওয়ার প্লে শেষ হওয়ার আগেই, চতুর্থ ওভারে। তার ব্যাট থেকে আসে ১৪ বলে ২৫ রান।

লুইস ফিরলে আফিফের সঙ্গী হন সাব্বির। দুজনে স্ট্রাইক রোটেট করে খেলার চেষ্টা করছিলেন। দুই ওপেনার ফেরায় বাউন্ডারি-ওভার বাউন্ডারি কমে গিয়েছিল। এ দুজনের জুটি লম্বা হয়নি ভুল বোঝাবুঝিতে। আফিফ ১৩ বলে ১৫ করে ফেরেন রান আউট হয়ে। সাব্বির এবার মিরাজকে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন। যদিও সাব্বির তার সহজাত ব্যাটিং করতে পারেননি। ডট বল খেলেছেন শুরু দিকে। মিরাজ দ্রুত রান তোলার চেষ্টা করেছেন। আউট হয়েছেন ২৩ বলে ৩০ রান করে নাভীন উল হকের বলে। সাব্বিরও ফেরেন ৩২ বলে ৩৩ রান করে ফরহাদ রেজার বলে বোল্ড হয়ে।

ক্রিজে থাকা হাওয়েল শামীম পাটোয়ারিকে নিয়ে এগোচ্ছিলেন। তবে শামীম যেন নিজের খোলস ছেড়ে বের হতে পারছেন না। ৬ বলে ৯ করে রানআউট হয়ে ফেরেন তিনি। এরপর শুরু হয় চট্টগ্রামের শেষের ঝড়। হাওয়েল-নাঈম মাতিয়ে রাখেন মিরপুর। দুজনে চার-ছয়ের ফুলঝুরি ফোটান শেষ দুই ওভারে। যদিও নাঈম শেষ বলে আউট হন স্ট্যাম্পিংয়ের শিকার হয়ে। তিনি ৫ বলে ১৫ রান করেন। হাওয়েল ২০ বলে ৩৪ রান করে অপরাজিত ছিলেন।

খুলনা যেন ক্যাচ আর ফিল্ডিং মিসের মহড়া দিয়েছিল। সর্বোচ্চ ২ উইকেট নিয়েছেন কামরুল ইসলাম। ১টি করে উইকেট নিয়েছেন নাভীন উল হক ও ফরহাদ রেজা। নাভীন ছিলেন সবচেয়ে খরুচে, তিনি ৪ ওভারে ৪৮ রান দেন।

রিয়াদ/আমিনুল

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়