ঢাকা     সোমবার   ১৭ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৩ ১৪৩১

ব্যাটসম্যানদের আতঙ্কের কারণ হতে চান মুশফিক

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:১৫, ৮ জুন ২০২৩   আপডেট: ১৭:২৫, ৮ জুন ২০২৩
ব্যাটসম্যানদের আতঙ্কের কারণ হতে চান মুশফিক

সুলতান অব সুইং খ্যাত ওয়াসিম আকরাম নিজের অটোবায়োগ্রাফি ‘সুলতান ওয়াসিম আকরাম’ এ লিখেছিলেন, ‘পেস বোলার হিসেবে আপনার কাজই হচ্ছে ব্যাটসম্যানদের দ্বিধায় ফেলা। সেই দ্বিধায় ফেলতে হলে তাদেরকে আতঙ্কিত করতে হবে। সেই আত্মঙ্কের জন্য দেখাতে হবে আগ্রাসন।’

পেস বোলার মানেই একটা খ্যাপাটে চরিত্র। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেস চতুষ্টয়ের কথা মনে আছে? পেটারসন, মাইকেল হোল্ডিং, জোয়েল গার্নার ও ম্যালকম মার্শাল ছিলেন ব্যাটসম্যানদের জন্য আতঙ্কের এক নাম। তাদের ভয়ংকর সব ডেলিভারিতে ব্যাটসম্যানরা ছিলেন স্রেফ অসহায়। বাংলাদেশের প্রতিশ্রুতিশীল এক পেসার তেমন আতঙ্কের কারণই হতে চান।

মুশফিক হাসান বাংলাদেশের পেস আক্রমণের নতুন মুখ। আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট দলে তাকে নেওয়া হয়েছে। যুব ক্রিকেট থেকে ওঠে আসা এ পেসার মাত্র এক বছর হলো লাল বলের ক্রিকেট খেলছেন। তাতেই নজর কেড়েছেন সবার। এইচপি, বাংলাদেশ ‘এ’ দলের হয়ে ভালো খেলে ডানহাতি দ্রুতগতির বোলার পৌঁছে গেছেন জাতীয় দলের দুয়ারে। স্বপ্নের ঠিকানায় পৌঁছে এখন ডানাপালা মেলার অপেক্ষায় ২০ বছর বয়সী পেসার।

নিজের শক্তি ও সামর্থ্য সম্পর্কে সব জানা তার। তাইতো লক্ষ্যটাও বিরাট বড়, ‘এটা তো অবশ্যই (পেসাররা খুনি মেজাজে হয়)। লাইন লেন্থ ঠিক রেখে সারপ্রাইজ করার চেষ্টা। ব্যাটসম্যানকে আতঙ্কিত করার জন্য কিছু করার চেষ্টা করি। এটাই  আমার শক্তির জায়গা।’

নিজের বোলিং নিয়ে মুশফিক বলেছেন, ‘বোলিংয়ে আমি প্রথমে লাইন লেন্থ অ্যাকুরেসি এইগুলো অ্যাডজাস্ট করি। তারপর জোর। এখান থেকে মনে হয় ভালো ফিল করি।’

জাতীয় দলে ডাক পাওয়ার পর আজই প্রথম ক্যাম্পে যোগ দিয়েছেন মুশফিক। ক্যাম্পে তাকে স্বাগত জানিয়েছেন টেস্ট দলপতি সাকিব আল হাসান। সাকিবের সঙ্গে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে মোহামেডানের ড্রেসিংরুমও ভাগাভাগি করেছেন মুশফিক। তাইতো তার প্রস্তুতিটাও শুরু হয়েছে অনেক আগের থেকে, ‘ওনার কাছ থেকে অনেক কিছু শিখতে পেরেছি (ঢাকা লিগে)। অনেক হেল্প করছে। মানে ওইরকম ভাবে কথা হয়নি। যখন মাঠে খেলছিলাম, তখন বুঝিয়ে দিয়েছে এটা কর, ওটা কর। জিজ্ঞাসা করতেছি, সুন্দরভাবে উত্তর দিয়েছে।’

এইচপি ক্যাম্পে থাকাকালীন জাতীয় দলের নেটে বোলিং করেছিলেন মুশফিক। তার ওয়ার্কলোড দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন কোচ অ্যালান ডোনাল্ড। আজ তার অধীনে ক্যাম্প করে আপ্লুত মুশফিক, ‘অনেক ভালো লাগছে। এখানে আজকে ক্যাম্পে জয়েন করলাম। অ্যালান ডোনাল্ডের সঙ্গে আগে কাজ করছিলাম। আমাকে ওয়েলকাম করেছে। বলছে গুড। লাস্ট ইয়ার আমি এইচপিতে ছিলাম। ওইখানে হার্ডওয়ার্ক করছি ফিটনেস নিয়ে। বোলিং নিয়ে। অনেক পরামর্শ করছি।’

রাবাদার বোলিং ও আগ্রাসন দেখে তাকে অনুসরণ করতেন মুশফিক। তবে বাংলাদেশের পেস বোলার তাসকিন, ইবাদতরা যেভাবে নিজেদের মেলে ধরেছেন তাতে তারাই এখন অনুপ্রেরণা দিতে যথেষ্ট। মুশফিক সেই কথাই বলেছেন, ‘এখন আমি ইন্সপায়রেশন পাই বাংলাদেশের পেস বোলারদের থেকে। আমি ফলো করি রাবাদাকে।’

টেস্ট ক্রিকেটকে উপভোগ করা এ পেসার সামনে লম্বা ক্যারিয়ার গড়তে চান। এজন্য নিজের প্রতি যত্নশীলও হচ্ছেন তিনি।

ইয়াসিন/আমিনুল

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়